logo
প্রকাশ: ০৯:৪৮:২৭ PM, সোমবার, ফেব্রুয়ারী ৮, ২০১৬
মুহাম্মদ ইব্রাহিমের বইয়ের প্রকাশনা উৎসব
অনলাইন রিপোর্ট

ড. মুহাম্মদ ইউনুসের ছোটভাই অধ্যাপক মুহাম্মদ ইব্রাহিমের ‘আত্মজীবনীতে মানুষ-দেশ-বিজ্ঞান’ বইয়ের প্রকাশনা উৎসব হয়ে গেল আজ সোমবার।

সন্ধ্যায় জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে  প্রকাশনা উৎসবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক আব্দুল্লাহ আবু সায়ীদ  ও এমিরেটাস অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরীসহ বিশিষ্টজনেরা।
বই সম্পর্কে আলোচনা করতে গিয়ে আব্দুল্লাহ আবু সায়ীদ বলেন, আত্মজীবনীতে দেখা যায় মুহাম্মদ ইব্রাহিম একটি রক্ষণশীল পরিবারের সন্তান ছিলেন। ছোট বেলায় তাদের একটি নাটকের মহড়া তার দাদা ভেঙে দিয়েছিলেন। ঘটনা চলছে চলতে এক পর্যায়ে তিনি লিখেছেন, বারটা বেজে গে। ‘এই বারোটা বেজে গেল’ কথাটা দিয়ে তিনি অনেক বড় বিষয় বুঝাতে চেয়েছেন।
তিনি আরো বলেন, জীবনে কিছু কষ্টকর মুহূর্ত বা কষ্টার্জিত সাফল্য এলেই মানুষ তার আত্মজীবনী লিখে। প্রফেসর ইব্রাহিম যে পরিবারে বেড়ে উঠেছেন, সেখান থেকে একজন বড় বিজ্ঞানী হওয়াটাই স্বাভাবিক।
আব্দুল্লাহ আবু সায়ীদ বলেন, এক সময় বিজ্ঞান সাময়িকীর সব সংখ্যা আমার সংগ্রহে ছিল। তবে ওই সময় বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের বেহাল দশা থাকায় আমি ওইসব সংরক্ষণ করে রাখতে পারিনি। আমি আবার মোহাম্মদ ইব্রাহিমের কাছে বিজ্ঞান সাময়িকীর সব কপি চাইব, যেন স্মৃতি হিসাবে ও ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য সংরক্ষণ করা যায়।
অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশের  স্বাধীনতা যুদ্ধ অনেকটা অগোছালো ছিল। সে সময়টাতে বাঙালিরা ঐক্যবদ্ধ ছিলেন না। তবে বাংলার মানুষের মধ্যে জাগরণ সৃষ্টি হয়েছিল। আগোছালো থাকলেও সবাই যে যার অবস্থান থেকে যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েন। এই বিষয়গুলো মুহাম্মদ ইব্রাহিমের বইয়ে খুব সুন্দরভাবে উঠে এসেছে।
তিনি আরো বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আগে রাজনীতির পাশাপাশি বিজ্ঞানচর্চা হত। তবে আশার বিষয় হল এখন তরুণরা বিজ্ঞানচর্চায় এগিয়ে আসছে। এমনকি গ্রামের ছেলে-মেয়েরাও বিজ্ঞানচর্চা করছে।       

 

সম্পাদক ও প্রকাশক : কাজী রফিকুল আলম । সম্পাদক ও প্রকাশক কর্তৃক আলোকিত মিডিয়া লিমিটেডের পক্ষে ১৫১/৭, গ্রীন রোড (৪র্থ-৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২০৫ থেকে প্রকাশিত এবং প্রাইম আর্ট প্রেস ৭০ নয়াপল্টন ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত। বার্তা, সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক বিভাগ : ১৫১/৭, গ্রীন রোড (৪র্থ-৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২০৫। ফোন : ৯১১০৫৭২, ৯১১০৭০১, ৯১১০৮৫৩, ৯১২৩৭০৩, মোবাইল : ০১৭৭৮৯৪৫৯৪৩, ফ্যাক্স : ৯১২১৭৩০, E-mail : [email protected], [email protected], [email protected]