logo
প্রকাশ: ১২:১০:৩৬ AM, রবিবার, সেপ্টেম্বর ২, ২০১৮
স্বপ্ন যখন বাংলাবিদ হওয়ার
ইমানুল সোহান

বাবা চেয়েছিলেন ডাক্তার বানাতে; কিন্তু আমার পছন্দ ছিল বাংলা। তাই বাংলাকে ভালোবেসে ভর্তি হয়েছি বাংলা বিভাগে। চোখ বুজলেই এখন স্বপ্ন দেখি বড় সাহিত্যিক হওয়ার। বলছি ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে আসা বাংলা বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী রেদওয়ান রনির কথা।
ছোটবেলা থেকে নাকি বাংলার প্রতি গভীর ভালোবাসা ছিল। তাই ভবিষ্যতে বাংলা নিয়ে অনেক কিছু করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন তিনি। এরকম স্বপ্ন বুকে লালন করে এগিয়ে যাচ্ছে এই বিভাগের শিক্ষার্থীরা। 
শৈশবেই নাকি বাংলা পড়ার ইচ্ছে ছিল প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী নুসরাত জাহানের। তিনি বলেন, প্রবল ইচ্ছাশক্তি থাকার কারণে আমি আমার স্বপ্নের বিষয়ে পড়তে পেরে খুবই খুশি। কিন্তু বর্তমানে আমি চিন্তিত কারণ আমরা সঠিকভাবে বাংলা ভাষা ব্যবহার করছি না। আমরা ইংরেজির প্রতি নির্ভরশীল হয়ে যাচ্ছি। 
এই বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী অনি আতিকুর রহমান বলেন, এই বিভাগ থেকে পাওয়া শিক্ষা কাজে লাগিয়ে আমি বড় সাহিত্যিক হতে চাই। যে কষ্টের বিনিময়ে আমরা এই ভাষা অর্জন করেছি তা যেন অপসংস্কৃতির রোষানলে পড়ে মান না হারায় তা নিয়ে আমি কাজ করতে চাই। মায়ের ভাষাকে আঁকড়ে ধরে জীবনে অনেক বড় হতে চাই। 
এই বিভাগে পড়া অনার্স শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী জানান, ১৯৫২ সালে বুকের রক্ত দিয়ে আমরা এই ভাষা অর্জন করেছি। বর্তমানে প্রতিনিয়ত আমরা বাংলার মধ্যে ইংরেজি শব্দ ব্যবহার করি; যা বাংলা ভাষার মানকে কমিয়ে দিচ্ছে। চাকরির বাজারে এখন এ ভাষার মান দেওয়া হয় না; কিন্তু এমনটা কি হওয়ার কথা ছিল। আমরা আবার সেই পাশ্চাত্য সভ্যতা বুকে লালন করছি; যা ধ্বংসের কারণ হয়ে দাঁড়াবে এক সময়। তবুও দু-চোখ ভরে স্বপ্ন দেখি রবীন্দ্রনাথ, নজরুল হওয়ার, তাদের মতো হয়তবা হতে পারব না। তবে স্বপ্ন দেখতে তো কোনো মানা নেই। সবশেষে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সেই বিখ্যাত উক্তি ‘আগে চাই বাংলা ভাষার গাঁথুনি, পরে ইংরেজি ভাষার পত্তন।’
শিক্ষার্থী 
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, কুষ্টিয়া

সম্পাদক ও প্রকাশক : কাজী রফিকুল আলম । সম্পাদক ও প্রকাশক কর্তৃক আলোকিত মিডিয়া লিমিটেডের পক্ষে ১৫১/৭, গ্রীন রোড (৪র্থ-৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২০৫ থেকে প্রকাশিত এবং প্রাইম আর্ট প্রেস ৭০ নয়াপল্টন ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত। বার্তা, সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক বিভাগ : ১৫১/৭, গ্রীন রোড (৪র্থ-৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২০৫। ফোন : ৯১১০৫৭২, ৯১১০৭০১, ৯১১০৮৫৩, ৯১২৩৭০৩, মোবাইল : ০১৭৭৮৯৪৫৯৪৩, ফ্যাক্স : ৯১২১৭৩০, E-mail : [email protected], [email protected], [email protected]