logo
প্রকাশ: ০৬:৪১:৩৭ PM, বুধবার, সেপ্টেম্বর ৫, ২০১৮
মেয়ে যখন বাবার বস
অনলাইন ডেস্ক

তার খাকি উর্দির বয়স তিন দশকেরও বেশি। অন্যজনের খাকি উর্দির বয়স মাত্র চার বছর। কিন্তু তিন দশকেরও বেশি বয়সের খাকি উর্দি হাঁটুর বয়সী খাকি উর্দিকে দেখে স্যালুট জানালেন। কারণ তিন দশকেরও পুরনো খাকি উর্দিধারী চার বছরের খাকি উর্দিধারীর বাবা। হ্যাঁ, বাবা ও মেয়ে দু’জনেই পুলিশে কর্মরত।

তিন দশকেরও বেশি সময় ধরে পুলিশ বাহিনীতে কাজ করছেন এ আর উমামহেশ্বর শর্মা। বর্তমানে যিনি ডেপুটি কমিশনার পদে দায়িত্ব সামলাচ্ছেন। অন্যদিকে সবে চার বছর হল মেয়ের গায়ে উঠেছে খাকি পোশাক। ভারতের তেলেঙ্গানার জাগতিয়াল জেলার পুলিশ সুপারের চেয়ারে বসেন সিন্ধু শর্মা। পদের নিরিখে বাবার থেকে সিনিয়র মেয়ে। অগত্যা মেয়েকে দেখেই স্যালুট জানালেন বাবা।

রোববার কঙ্গারা কালান এলাকায় তেলেঙ্গানা রাষ্ট্র সমিতির একটি সভায় এই প্রথমবার খাকি পোশাক গায়ে মুখোমুখি হলেন বাবা-মেয়ে। যে অনুষ্ঠানেই মেয়েকে দেখে স্যালুট জানালেন বাবা। এ প্রসঙ্গে গর্বিত বাবা সংবাদ সংস্থা আইএএনএসকে বললেন, “এই প্রথম আমরা একসঙ্গে কাজ করলাম। ওর সঙ্গে কাজ করতে পেরে খুব সৌভাগ্যবান মনে হচ্ছে নিজেকে।” সাব ইন্টপেক্টর হিসেবে কাজ শুরু করেছিলেন উমামহেশ্বর। পরে তাঁকে আইপিএস র‌্যাঙ্ক দেওয়া হয়।

এ প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, “ও আমার সিনিয়র অফিসার। তাই ওকে দেখলে আমি স্যালুট করি। আমরা আমাদের কাজ করি। তবে কাজ নিয়ে কখনই বাড়িতে আলোচনা করি না। বরং বাড়িতে আর চার-পাঁচজন বাবা-মেয়ের মতোই আমাদের সম্পর্ক।”

এ প্রসঙ্গে তার মেয়ে পুলিশ সুপার সিন্ধু বলেন, ‘‘আমি খুব খুশি। বাবার সঙ্গে একসঙ্গে কাজ করতে পারাটা দারুণ ব্যাপার।”

আগামী বছরই অবসর গ্রহণ করবেন উমামহেশ্বর। বর্তমানে মালকাজগিরি এলাকার ডিসিপি হিসেবে কাজ করছেন তিনি। অন্যদিকে ২০১৪ সালের ব্যাচের আইপিএস অফিসার সিন্ধু।

সম্পাদক ও প্রকাশক : কাজী রফিকুল আলম । সম্পাদক ও প্রকাশক কর্তৃক আলোকিত মিডিয়া লিমিটেডের পক্ষে ১৫১/৭, গ্রীন রোড (৪র্থ-৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২০৫ থেকে প্রকাশিত এবং প্রাইম আর্ট প্রেস ৭০ নয়াপল্টন ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত। বার্তা, সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক বিভাগ : ১৫১/৭, গ্রীন রোড (৪র্থ-৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২০৫। ফোন : ৯১১০৫৭২, ৯১১০৭০১, ৯১১০৮৫৩, ৯১২৩৭০৩, মোবাইল : ০১৭৭৮৯৪৫৯৪৩, ফ্যাক্স : ৯১২১৭৩০, E-mail : [email protected], [email protected], [email protected]