logo
প্রকাশ: ১১:৫৩:১২ PM, মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৮
আগামী প্রজন্মকে একুশ শতকের উপযোগী করে গড়ে তুলতে হবে
প্রযুক্তি প্রতিবেদক

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, আগামী প্রজন্মকে একুশ শতকের উপযোগী করে গড়ে তুলতে তথা তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর সমৃদ্ধ জাতি গঠনে সংশ্লিষ্ট সবাইকে সময় উপযোগী পদক্ষেপ নিয়ে এগিয়ে আসতে হবে। মন্ত্রী ধানমন্ডি ইউল্যাব মিলনায়তনে জাম্পার্স ফোরামের উদ্যোগে ঔঁষরধ ঞঙঞ ডড়ৎশংযড়ঢ় ড়হ অৎঃরভরপরধষ ওহঃবষষরমবহপব ধহফ গধপযরহব খবধৎহরহম বিষয়ক ৩ দিনব্যাপী কর্মশালার সার্টিফিকেট প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতা করছিলেন। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান প্রফেসর আবদুল মান্নান, বেসিসের সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবির ও টেকনো হেভেনসের প্রধান নির্বাহী হাবিবুল্লাহ এন করিম। তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী বলেন, তথ্যপ্রযুক্তি খাত গত কয়েক দশকে যে গতিতে এগিয়েছে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ না করলে আগামীতে সেভাবে এগোবে না। আগামী দিনে আমাদের সন্তানরা কী টুলস ব্যবহার করবে তা এখন থেকেই নির্ধারণ করতে হবে। তিনি বলেন, সামনের দিনগুলোতে মানুষ যে ভাষায় কথা বলুক না কেন প্রযুক্তির বদৌলতে স্মার্টফোনের মাধ্যমে কাক্সিক্ষত ভাষায় তা শোনা যাবে। জুলিয়া নিয়ে বাংলাদেশের যারা প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেছেন তারা ভাগ্যবান উল্লেখ করে সংশ্লিষ্টদের এ খাতের উন্নয়ন ও বিকাশে অবদান রাখার ওপর তিনি গুরুত্বারোপ করেন।

মন্ত্রী বলেন, ছোটবেলা থেকেই শিশুদের প্রোগ্রামিংয়ের ওপর শিক্ষা দিতে হবে। কারণ প্রোগ্রামিংয়ের চর্চাটা জন্ম থেকেই হওয়া উচিত। সরকার মনে করে, প্রাথমিক স্তর থেকে প্রোগ্রামিং শেখা বাধ্যতামূলক করা দরকার। আমাদের সন্তানরা অনেক মেধাবী, আমরা আমাদের যে প্রজন্মকে এখন প্রাইমারি স্কুলে যেতে দেখি, তাদের স্মার্টফোনের ব্যবহার শেখাতে হয় না। তাই আমরা তাদের এমন স্থানে নিয়ে যেতে চাই, যেন তারা ছোট থেকেই প্রোগ্রামিং জানতে পারে।
আইসিটি মন্ত্রী বলেন, প্রোগ্রামিং শিক্ষায় সর্বশেষ প্রযুক্তি ব্যবহারে জোর দিতে হবে। তিনি বলেন, একজন প্রোগ্রামারকে যদি বিদেশে পাঠানো যায়, তাহলে তিনি বছরে সোয়া লাখ ডলার আয় করতে পারবেন। অন্যদিকে একজন কায়িক শ্রমিকের ক্ষেত্রে মাসিক আয় ২০ হাজারের মধ্যে সীমিত। তাই সোয়া লাখ ডলারের টার্গেট করাটাই যুক্তিযুক্ত। কর্মশালায় বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও আইটি প্রতিষ্ঠানগুলোর মোট ২৮ জন প্রতিনিধি অংশগ্রহণ করেন। পরে মন্ত্রী ওয়ার্কশপে অংশগ্রহণকারীদের সার্টিফিকেট প্রদান করেন।

সম্পাদক ও প্রকাশক : কাজী রফিকুল আলম । সম্পাদক ও প্রকাশক কর্তৃক আলোকিত মিডিয়া লিমিটেডের পক্ষে ১৫১/৭, গ্রীন রোড (৪র্থ-৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২০৫ থেকে প্রকাশিত এবং প্রাইম আর্ট প্রেস ৭০ নয়াপল্টন ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত। বার্তা, সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক বিভাগ : ১৫১/৭, গ্রীন রোড (৪র্থ-৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২০৫। ফোন : ৯১১০৫৭২, ৯১১০৭০১, ৯১১০৮৫৩, ৯১২৩৭০৩, মোবাইল : ০১৭৭৮৯৪৫৯৪৩, ফ্যাক্স : ৯১২১৭৩০, E-mail : [email protected], [email protected], [email protected]