logo
প্রকাশ: ০২:১৮:১৬ PM, বুধবার, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৮
বলিউড ছাড়ছেন তনুশ্রী!
অনলাইন ডেস্ক

তিনি মিস ইন্ডিয়া ২০০৪। কিন্তু তার থেকে বেশি পরিচিতি পেয়েছিলেন ২০০৫-এ বলি টাউনে তার ডেবিউ ছবি 'আশিক বানায়া আপনে'-র মাধ্যমে। তিনি বঙ্গকন্যা তনুশ্রী দত্ত।

তনুশ্রী দত্ত বলিউডে এসেই অনেকের নজর কেড়ে ছিলেন। একসময় তিনি বলিউডে দাপিয়ে বেড়িয়েছেন। তার সাহসী পোশাক ও ছিপছিপে দেহ অনেক পুরুষের মনেই কাঁপন জাগিয়েছিল। তিনি তনুশ্রী দত্ত। কিন্তু এখন ইন্ডাস্ট্রি থেকে তিনি বাইরে। কিন্তু কেন? শোনা যায় তনুশ্রীকে বলিউড থেকে বের করে দেওয়ার পিছনে নাকি রয়েছেন নানা পাটেকর।

২০০৮ সালে শুটিং চলছিল ‘হর্ন ওকে প্লিজ’ ছবির শুটিং। ছবির একটি গানের শুটিং করছিলেন তনুশ্রী। তখন নাকি নানা পাটেকর তাকে অশালীনভাবে স্পর্শ করার চেষ্টা করেন। এরপর তিনি অভিনেতার সঙ্গে কোনো রকম ঘনিষ্ঠ দৃশ্য করতে চাননি। ঘটনাটি এখানেই থামিয়ে দেননি তনুশ্রী। অন্যায়ের বিরুদ্ধে তিনি এফআইআর দায়ের করেন। এর ফলে, তাকে ছবি থেকে বের করে দেয়া হয়। কারণ নানা পাটেকর বড় অভিনেতা ও ছবির প্রধান নায়ক ছিলেন। স্বভাবতই তার কথাই শোনা হয়। তনুশ্রীকে কেউ পাত্তাও দেয়নি।

এরপর ওই গানটিতে আইটেম ডান্স করেন রাখি সাওয়ান্ত। তনুশ্রী এরপর আরো একটি অভিযোগ দায়ের করেন। বলেন, তার কাছ থেকে নির্মাতারা কোনও এনওসি-ও চাননি। তারপরেই কীভাবে রাখি সাওয়ান্ত ওই গানে পারফর্ম করতে পারেন? এই একটি ঘটনা তনুশ্রীর জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দেয়। বলিউডকে চিরবিদায় জানাতে হয় তাকে। এরপর থেকে কোনও ছবিতেই ডাক পাননি তিনি। অভিনয়ের কেরিয়ার শেষ হয়ে যায় তার।

এখন আমেরিকার বাসিন্দা তনুশ্রী। মাস দুয়েক আগে দেশে ফিরেছেন। শোনা যাচ্ছে, ‘বিগ বস’-এর এই মরশুমে দেখা যেতে পারে তনুশ্রী দত্তকে। তবে এই রিয়ালিটি শোয়ে এমন ভাঙাগড়া চলে, যে ‘বিগ বস’ হাউজে প্রবেশের আগে পর্যন্ত বোঝাই যায় না কে কে থাকবেন প্রতিযোগিতায়। তবে তনুশ্রী যদি প্রতিযোগিতায় আসেন, তাহলে এই ইস্যুটি তিনি ক্যামেরার সামনে তুলতে পারেন বলে মনে করা হচ্ছে।

সম্পাদক ও প্রকাশক : কাজী রফিকুল আলম । সম্পাদক ও প্রকাশক কর্তৃক আলোকিত মিডিয়া লিমিটেডের পক্ষে ১৫১/৭, গ্রীন রোড (৪র্থ-৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২০৫ থেকে প্রকাশিত এবং প্রাইম আর্ট প্রেস ৭০ নয়াপল্টন ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত। বার্তা, সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক বিভাগ : ১৫১/৭, গ্রীন রোড (৪র্থ-৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২০৫। ফোন : ৯১১০৫৭২, ৯১১০৭০১, ৯১১০৮৫৩, ৯১২৩৭০৩, মোবাইল : ০১৭৭৮৯৪৫৯৪৩, ফ্যাক্স : ৯১২১৭৩০, E-mail : [email protected], [email protected], [email protected]