logo
প্রকাশ: ০৩:২১:০০ PM, বুধবার, জানুয়ারী ৯, ২০১৯
ছেলের চুল কাটাতে শাকিবের তিন ঘণ্টা অপেক্ষা!
বিনোদন ডেস্ক

‘জয়ের বাবা শাকিব খান খুবই ধৈর্যশীল। জয় এখন খুব দুষ্টু। এক মুহূর্ত স্থির থাকতে চায় না। ওর চুল কাটাতে প্রায় তিন ঘণ্টা সময় লেগেছে। এই তিন ঘণ্টা অপেক্ষা করেছে শাকিব! ওর বাবার খুব ধৈর্য। চুল কাটার পুরোটা সময় ছেলের সঙ্গেই থেকেছে। নিজের পছন্দ মতো স্টাইল ঠিক করে দিয়েছে।’ শাকিব ও ছেলে সম্পকে এভাবেই জানালেন অপু বিশ্বাস।

আব্রাম খান জয়ের বয়স এখন দুই বছর তিন মাস। তাঁকে স্কুলে ভর্তি করা হয়েছে বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার ইন্টারন্যাশনাল স্কুল ঢাকাতে প্রি স্কুলে জয় নিয়মিত যাচ্ছে। এর আগে মা শখ করে ছেলের চুল বড় করেছিলেন। ছেলের চুলের ঝুঁটি দেখে তখন মা খুব আনন্দ পেয়েছেন। এবার স্কুল থেকে অনুরোধ, ছেলের চুল ছোট করতে হবে।

বাবাকে জানাতেই তিনি সব ব্যবস্থা করেন। ছেলেকে নিজের বাসায় নিয়ে যান। খবর দিয়ে চুল কাটার লোককে বাসায় নিয়ে আসা হয়। এবার ছেলের চুলের স্টাইল কেমন হবে, তা শাকিব খান নিজেই ঠিক করে দেন। 

সোমবার রাত ১২টার দিকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছেলের নতুন লুকের ছবি দিয়েছেন অপু বিশ্বাস। তিনি জানান, চার দিন আগে শাকিব খান তাঁর ছেলের এই নতুন লুক দিয়েছেন। শাকিব খান এখন ছেলেকে যথেষ্ট সময় দেন। যখন কাজের চাপ কম থাকে, ছেলেকে নিজের কাছে নিয়ে যান। ছেলের সঙ্গে সময় কাটান, ছেলেকে নিয়ে ঘুরতে বের হন।

অপু বিশ্বাস বলেন, ‘আমি এখন বিভিন্ন কাজের সঙ্গে যুক্ত হয়ে গেছি। যুক্ত আমাকে হতে হয়েছে। প্রায় দিনই আমাকে এসব কাজের জন্য বাইরে বের হতে হয়। ওই সময় জয়ের বাবা যদি ফ্রি থাকে, তাহলে আমি ছেলেকে তাঁর কাছে পাঠিয়ে দিই। আমি চাই, আমাদের ছেলে মায়ের আদর যেমন পাচ্ছে, পাশাপাশি বাবার আদরও যেন পুরোটাই পায়। আর শাকিব নিজেও এই ব্যাপারটা বুঝতে পেরেছে। তা আমার কাছেও ভালো লাগে। আমি কিন্তু এটাই চেয়েছি।’

সব শেষে অপু বিশ্বাস মজা করে বললেন, ‘জয়কে একটু খেয়াল করুন, দেখতে ও কিন্তু ওর বাবার কপি হয়েছে।’

সম্পাদক ও প্রকাশক : কাজী রফিকুল আলম । সম্পাদক ও প্রকাশক কর্তৃক আলোকিত মিডিয়া লিমিটেডের পক্ষে ১৫১/৭, গ্রীন রোড (৪র্থ-৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২০৫ থেকে প্রকাশিত এবং প্রাইম আর্ট প্রেস ৭০ নয়াপল্টন ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত। বার্তা, সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক বিভাগ : ১৫১/৭, গ্রীন রোড (৪র্থ-৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২০৫। ফোন : ৯১১০৫৭২, ৯১১০৭০১, ৯১১০৮৫৩, ৯১২৩৭০৩, মোবাইল : ০১৭৭৮৯৪৫৯৪৩, ফ্যাক্স : ৯১২১৭৩০, E-mail : [email protected], [email protected], [email protected]