logo
প্রকাশ: ০৮:২৬:১৯ PM, শনিবার, অক্টোবর ১৯, ২০১৯
ভেঙে যাওয়া বিয়ে দিয়ে ফের আলোচনায় সেই জাহিদুল ইসলাম
এম সুজন আকন

রাজধানীর খিলগাঁওয়ে একটি সুপার শপ থেকে দুধ চুরি করতে গিয়ে ধরা পড়ে গণধোলাইয়ের শিকার হয়েছিলেন এক বেকার বাবা। একপর্যায়ে প্রকৃত ঘটনা জানতে পেরে ওই বাবাকে বাঁচাতে এগিয়ে যান ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের খিলগাঁও জোনের সহকারী কমিশনার জাহিদুল ইসলাম।

ওই ঘটনার বিস্তারিত তুলে ধরে নিজের ফেসবুকে পোস্ট করেন তিনি। যা পরে ভাইরাল হয়ে যায়। এবার তিনি পেশাগত দায়িত্বের বাইরে গিয়ে আরেকটি কাজ করে আলোচনায় এসেছেন।

আজ শনিবার তার ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাসে জানা যায়- দু’পক্ষের ঝামেলায় একটি বিয়ে প্রায় ভেঙে যাচ্ছিল, আর সেই বিয়ে নিজে দাঁড়িয়ে থেকে পড়িয়ে দেন তিনি।

বিস্তারিত জানুন তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে-

পেশাগত দায়িত্বের বাইরেও সমাজের সাধারণ মানুষ হিসেবে পালন করা কিছু দায়িত্ব মনে প্রশান্তি এনে দেয়। এমনই একটা ঘটনা আজ শেয়ার করবো।

"গত ১৭/১০/২০১৯ খ্রি: তারিখ রাতে মতিঝিল বিভাগের সেন্ট্রাল নাইট রাউন্ড ডিউটি করছিলাম। রাত আনুমানিক ১:৩০ এর দিকে খিলগাঁও কমিউনিটি সেন্টারে বিশৃংখলার খবর পাই। তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে পৌঁছার পর জানতে পারি, বিয়ের অনুষ্ঠানে অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতির উদ্ভব হওয়ায় বিয়েটা প্রায় ভেঙে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে বিয়ের ভোজন পর্বও শেষ। দুই পক্ষের ঝামেলা দেখে কাজী সাহেবও সটকে পড়েছেন। বরপক্ষ খুবই উত্তেজিত! পরিস্থিতি ক্রমশ খারাপের দিকে যাচ্ছিল। বরপক্ষ বিয়ে না করেই বিয়ের আসর ছেড়ে চলে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন! এমনই পরিস্থিতির এক পর্যায়ে কনের বাবা খুব ভেঙে পড়েন।

পরে বাধ্য হয়ে হস্তক্ষেপ করলাম। (দুঃখ প্রকাশ করছি; যে বিষয়টি নিয়ে তারা উত্তেজিত ছিল তা শেয়ার করতে পারছিনা।) প্রথমে বরের সাথে একান্তে কথা বললাম। বর আমাকে সোজাসাপ্টা জানিয়ে দিলো যে, "আমি বিয়ে করতে রাজি কিন্তু আমার বাবা মা রাজি না থাকলে আমি বিয়ে করতে পারবোনা।" এরপর বরের পিতা-মাতার সাথে কথা বললাম।

দুই পক্ষকে নিয়ে দীর্ঘক্ষণ আলোচনার পর পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হলে পুলিশ পাঠিয়ে কাজী সাহেবকে বিয়ের আসরে নিয়ে আসলাম। পরে রাত আনুমানিক ৩:৩০ ঘটিকার দিকে নিজে দাঁড়িয়ে থেকে বিবাহ অনুষ্ঠান সম্পন্ন করি।"

আল্লাহ্ নব দম্পতিকে সুখে রাখুন..মানুষের জন্য কিছু করতে পারার মধ্যে যে আনন্দ তা জগতের অন্য কিছুতে নাই। দিনশেষে আত্মতৃপ্তি নিয়ে ঘুমাতে যাওয়া সকলের ভাগ্যে জোটে না....সেদিক থেকে আমি নিঃসন্দেহে ভাগ্যবান।

সম্পাদক ও প্রকাশক : কাজী রফিকুল আলম । সম্পাদক ও প্রকাশক কর্তৃক আলোকিত মিডিয়া লিমিটেডের পক্ষে ১৫১/৭, গ্রীন রোড (৪র্থ-৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২০৫ থেকে প্রকাশিত এবং প্রাইম আর্ট প্রেস ৭০ নয়াপল্টন ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত। বার্তা, সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক বিভাগ : ১৫১/৭, গ্রীন রোড (৪র্থ-৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২০৫। ফোন : ৯১১০৫৭২, ৯১১০৭০১, ৯১১০৮৫৩, ৯১২৩৭০৩, মোবাইল : ০১৭৭৮৯৪৫৯৪৩, ফ্যাক্স : ৯১২১৭৩০, E-mail : [email protected], [email protected], [email protected]