আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ১২-০১-২০১৭ তারিখে পত্রিকা

হাঁটু ব্যথায় ফিজিওথেরাপি

জীবনে চলতে চলতে আমরা প্রতিনিয়ত বার্ধক্যের দিকে অগ্রসর হচ্ছি। বয়স বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে যদি যুক্ত হয় ব্যথা বা এমন কোনো সমস্যা, যা জীবন চলতে বা চলাফেরা বন্ধ করে দিতে চায়, তা সত্যিই কষ্টদায়ক। তবে কষ্ট যাই হোক না কেন, আজ চিকিৎসা বিজ্ঞানের নিত্যনতুন আবিষ্কার এবং ফিজিওথেরাপি বিজ্ঞানীরা মাস্কুলোস্কেলিটাল অসুস্থতার জন্য অপারেশনবিহীন চিকিৎসা আবিষ্কার করে আমাদের জীবনকে করেছেন স্বস্তিময়। হাঁটু ব্যথার জন্য অত্যাধুনিক চিকিৎসা আবিষ্কার হওয়ায় রোগীরা আগের চেয়ে অনেক উপকৃত হচ্ছেন। সুপ্রিয় পাঠক, আজ আমার এ ছোট লেখার মধ্যে উপস্থাপন করতে চেষ্টা করব কোনো অসুস্থতাই যেন আমাদের জীবন চলা বন্ধ করে দিতে না পারে। আর সেই সুবাদে হাঁটু ব্যথায় আমার আধুনিক চিকিৎসা রোগীকে করবে কষ্টমুক্ত।
মিসেস মেহেরুন্নেছা। বয়স ৪৩ বছর। পেশায় গৃহিণী, থাকেন ডুপ্লেক্স ফ্ল্যাটে। ১৯ মাস ধরে বাঁ হাঁটুর ব্যথায় ভুগছেন তিনি। এ ১৯ মাসে অনেক বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী বিভিন্ন ধরনের ওষুধ সেবন করেছেন। কিন্তু তার বাঁ হাঁটুর ব্যথার কোনো উন্নতি হয়নি। হাঁটু পরীক্ষা করে দেখা গেল, বাঁ হাঁটু সম্পূর্ণ সোজা হয় না এবং বাঁকাও হয় না। বাঁকা বেশি কমে গেছে সোজা হওয়ার চেয়ে। তার হাঁটুর বাটির পাশে চাপ দিয়ে দেখা গেল কোয়ার্ডিসেফ এক্সপানশনের দুই জায়গায় ব্যথা। এছাড়াও মিডিয়াল হ্যামস্ট্রিং মাসেলের মাস্কুলো টেন্ডিনিয়াস জাংশন এবং টেন্ডোনে ব্যথা। এক্স-রে রিপোর্টে বলা হয়েছে হাড়ের কোনো সমস্যা নেই। 
মিসেস মেহেরুন্নেছার জন্য সঠিক চিকিৎসা পরিকল্পনা হবে ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা। ব্যথাযুক্ত টিস্যুগুলোতে ওয়াক্সপ্যাক স্ট্রোকিং করে, সফট টিস্যু মোবালাইজেশন এবং ডিপ ট্রানভার্সফিকশন করতে হবে। এর সঙ্গে ইলেকট্রিক্যাল মোডালিটিসের মধ্যে লো-লেভেল লেজার থেরাপি ব্যবহার করতে হবে। হ্যামস্ট্রিং এবং কোয়ার্ড্রিসেফ স্ট্রেসিং ও স্ট্রেন্দেনিং করতে হবে সঠিক নিয়ম অনুযায়ী। বায়োমেকানিক্স অনুযায়ী হাঁটুর মোবালাইজেশন করে হাঁটুকে সম্পূর্ণ বাঁকা এবং সোজা করতে হবে। সোজা-বাঁকা বাড়ানো বা রেঞ্জ বাড়ানো সম্ভব। এরপর হোল্ড রিলাক্স টেকনিকের মাধ্যমে মাংসকে লম্বা এবং আরও শক্তিশালী করতে হবে। এভাবে কয়েক সপ্তাহ চিকিৎসা নিলে আশা করি, মিসেস মেহেরুন্নেছা ব্যথামুক্ত হবেন। এ চিকিৎসার পাশাপাশি কিছু উপদেশ মেনে চলতে হবে তাকে। যেমনÑ সিঁড়িতে ওঠানামা আপাতত কম করতে হবে। ফিজিওথেরাপি চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী বাসায় সঠিক ব্যায়াম করতে 
হবে।
প্রিয় পাঠক, এ ছোট লেখার মাধ্যমে ধারণা দিতে চেষ্টা করেছি, আপনারা যদি এ ধরনের হাঁটুর কষ্টে ভুগেন, তাহলে কোন ধরনের চিকিৎসা নেবেন। মনে রাখবেন, হাঁটু ব্যথা মানেই অস্টিওআর্থ্রাইটিস নয়। এখানে উল্লেখ করা যেতে পারে, আমার চিকিৎসা অন্যদের চেয়ে সর্বাধুনিক, উন্নতর এবং প্রমাণভিত্তিক। আপনার হাঁটুর যতœ নিন, সুস্থ জীবনযাপন করুন। 

প্রফেসর আলতাফ হোসেন সরকার
মাস্কুলোস্কেলিটাল ব্যথা বিশেষজ্ঞ
লেজার ফিজিওথেরাপি সেন্টার 
পান্থপথ, ঢাকা।
০১৭৬৫ ৬৬ ৮৮ ৪৬


খবরটি পঠিত হয়েছে ৩১৯৬০ বার