আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ২৫-১১-২০১৭ তারিখে পত্রিকা

বাকৃবিতে বেড়েছে মাদক সেবন

বাকৃবি প্রতিনিধি
| নগর মহানগর

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) সম্প্রতি আশঙ্কাজনক হারে বেড়েছে মাদক সেবন। ফোন দিলে বাকৃবির বিভিন্ন স্থানসহ হলে এসেও বহিরাগত এজেন্টরা এসব মাদকদ্রব্য সরবরাহ করছে বলে জানা গেছে। দামে কম ও সহজলভ্য হওয়ায় হাতের নাগালেই মিলছে গাঁজা, মদ, আর ইয়াবা। এসব মাদক হাতে পেয়ে নেশায় মেতে থাকছেন মাদকসেবী শিক্ষার্থীরা। ছাত্রদের আবাসিক হলগুলোতে প্রতি রাতেই বসছে মাদকের আসর। অভিযোগ রয়েছে হলগুলোয় প্রকাশ্যে মাদকের আসর বসলেও কার্যকর কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছে না হল প্রশাসন। তবে বিষয়টি নিয়ে জেলা প্রশাসন ও গোয়েন্দা পুলিশের সহায়তায় তৎপরতা জোরদার করা হবে জানায় বাকৃবি প্রশাসন। 

অনুসন্ধানে জানা গেছে, ক্যাম্পাসের পাশের শেষ মোড়, পাগলার বাজার, ব্রহ্মপুত্রনদের পাড়,  কেওয়াটখালী ও ময়মনসিংহ শহরের বিভিন্ন এজেন্টের মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ে মাদক প্রবেশ করে। পরে তা ক্যাম্পাসের জব্বারের মোড়, শেষ মোড়, কৃষিতত্ত্ব বিভাগের খামার, ফজলুল হক হলের পেছনের পুকুর পাড় সংলগ্ন রাস্তা, পোলট্রি ও ডেয়রি ফার্মসংলগ্ন রাস্তা, ব্যাচেলর কোয়ার্টারসহ বিভিন্ন স্থানে লেনদেন হয়ে থাকে। এভাবেই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের ৯ হলে ঢুকছে মাদকদ্রব্য। ময়মনসিংহ শহরের গাঙ্গিনার পাড়, রেলস্টেশন এলাকা, ব্রিজ মোড়, কেওয়াটখালী ও ছায়াবাণী সিনেমা হল মোড় এলাকার এজেন্টকে ফোন দিলেই তারা ক্যাম্পাসে মাদক পৌঁছে দেয়। এছাড়া বাংলা মদের উৎস ব্রহ্মপুত্রনদের পাড়। ফোন করলেই হেরোইন দিয়ে যায় ডিলাররা। আবাসিক হলের ছাদ, ক্যাম্পাসের পাশের ব্রহ্মপুত্রনদের পাড়, ব্যাচেলর কোয়ার্টার, খামারসহ বিভিন্ন স্থানে বসে এ আসর। জামাল হোসেন হল, ফজলুল হক হল, সোহরাওয়ার্দী হল, শহীদ নাজমুল আহসান হল, শামসুল হক হল এবং আশরাফুল হক হলে প্রায় প্রতিদিন বিভিন্ন কক্ষে গাঁজা ও ইয়াবার আসর বসে বলে জানা গেছে। সপ্তাহের ছুটির দিনে এ আসর আরও জমে ওঠে। আরও জানা গেছে, মাদকাসক্তরা প্রতি পুরিয়া গাঁজা কেনেন ৪০ থেকে ৬০ টাকায়। কয়েকজন মিলে একসঙ্গে গাঁজা কিনে কক্ষের ভেতরেই আসর বসান। তবে বর্তমান সময়ে মাদকসেবী ছাত্ররা ইয়াবা সেবনের প্রতি বেশি ঝুঁকেছেন। প্রতিটি ট্যাবলেট মিলছে ৩০০ থেকে সাড়ে ৩০০ টাকায়। মাদকাসক্ত এসব শিক্ষার্থী রাতভর নেশা করার কারণে ঠিকভাবে ক্লাস-পরীক্ষায় অংশ নিতে পারছেন না। ফলে একই লেভেলে বারবার থাকতে হচ্ছে।