আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ১৭-০৭-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

সংরক্ষিত নারী আসন ২৫ বছর বহাল রাখার প্রতিবাদ

নিজস্ব প্রতিবেদক
| নগর মহানগর

মহাজোটের লিখিত ইশতেহারে সংরক্ষিত নারী আসন সংখ্যা এক-তৃতীয়াংশ বৃদ্ধি ও প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা নারী আসন সংখ্যা বাড়িয়ে ১০০ করার কোনো বাস্তব প্রয়োগ না করে সংরক্ষিত নারী আসন আরও ২৫ বছর বহাল রাখার সিদ্ধান্তটি সাংঘর্ষিক। সোমবার বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সুফিয়া কামাল ভবন মিলনায়তনে ‘সংবিধানের সপ্তদশ সংশোধনীর মাধ্যমে নির্বাচনের বিধান না রেখে মনোনয়নের মাধ্যমে জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসন আরও ২৫ বছর বহাল রাখার প্রতিবাদে’ আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ মন্তব্য করা হয়।
নেতারা বলেন, ২০০৯ সালের ৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা দেন, সংসদে সংরক্ষিত নারী আসনের সংখ্যা বাড়িয়ে ১০০ করা হবে, তারা সরাসরি ভোটের মাধ্যমে নির্বাচিত হবেন; কিন্তু প্রতিশ্রুতি থাকলেও তার বাস্তব প্রয়োগ নেই। সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত আন্দোলন সম্পাদক রেখা চৌধুরী সংগঠনের পক্ষে লিখিত বক্তব্যে বলেন, আমরা জাতীয়ভাবে এবং ধারাবাহিকভাবে জাতীয় সংসদে নারীর আসন সংখ্যা বৃদ্ধির জন্য প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষভাবে আন্দোলন করছি এবং এ আন্দোলনের ফসল হিসেবে জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত নারী আসন সংখ্যা ১০-১৫ ও ১৫-৫০ এ বৃদ্ধি পেয়েছে।
সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আয়শা খানম মডারেটরের দায়িত্বে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সহ-সভাপতি ডা.ফওজিয়া মোসলেম, লক্ষ্মী চক্রবর্তী, সাধারণ সম্পাদক মালেকা বানু, সহ-সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মাসুদা রেহানা বেগম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রাখী দাশ পুরকায়স্থ এবং সীমা মোসলেম, অর্থ সম্পাদক দিল আফরোজ বেগম প্রমুখ।