আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ২-০৯-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

৬ মাস আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে বহিষ্কার

নিষিদ্ধই হলেন সাব্বির

স্পোর্টস রিপোর্টার
| খেলা

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ৬ মাসের জন্য নিষিদ্ধ হচ্ছেন সাব্বির রহমান। গতকাল বিসিবির শৃঙ্খলা কমিটির মিটিংয়ে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে দ্বিতীয় ওয়ানডের পর ফেইসবুকে এক ক্রিকেট-সমর্থককে ‘হুমকি দেওয়ায় তার বিরুদ্ধে এ শাস্তির সুপারিশ করে বিসিবির শৃঙ্খলা কমিটি। এ সুপারিশ অনুমোদনের জন্য পাঠানো হবে বিসিবি প্রেসিডেন্টের কাছে। তিনি অনুমোদন করলে শাস্তি কার্যকর হবে রোববার থেকেই। সাব্বিরের শাস্তি হলেও শুধু সতর্ক করে ছেড়ে দেওয়া হয় মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতকে, যার বিরুদ্ধে যৌতুক ও নির্যাতনের মামলা করেন তার স্ত্রী সামিয়া শারমিন ঊষা।
এর আগে জাতীয় লিগে দর্শক পিটিয়ে ঘরোয়া ক্রিকেটে ছয় মাসের নিষেধাজ্ঞা ও ১০ লাখ টাকা জরিমানা গুণেছেন সাব্বির। ওই শাস্তি শেষ না হতেই আরও বড় শাস্তির মুখোমুখি হলেন তিনি। বিসিবির ডিসিপ্লিনারি কমিটির সদস্য ইসমাইল হায়দার বলেছেন, ফেইসবুকের এ ব্যাপারে এ শাস্তিকেই যথেষ্ট মনে করছেন তারা। তবে এতেও সাব্বির ‘নিজেকে শোধরাতে না পারলে আরও বড় শাস্তির মুখোমুখি হবেন তিনি। ফেইসবুকের ওই ঘটনার ব্যাপারে সাব্বিরকে গতকাল ডিসিপ্লিনারি কমিটিতে ডাকা হয়েছিল। সমর্থককে হুমকি দেওয়ার ব্যাপারে সাব্বির বলেছেন, তার অ্যাকাউন্ড হ্যাক করা হয়েছিল। তবে বাকি ঘটনার বিষয়ে অনুতপ্ত বলে কমিটিকে জানান। এ প্রসঙ্গে ইসমাইল হায়দার বলেন, ‘ছয় মাসই অনেক শাস্তি এক্ষেত্রে, ফেইসবুকের ওই ঘটনার ব্যাপারে। মূলত ওই ঘটনার কারণেই আজ (গতকাল) তাকে ডাকা হয়েছিল। এরই মধ্যে সেই শাস্তির মধ্যে আছে, ঘরোয়া ক্রিকেটে। বাকি (ঘটনার) শাস্তি আগেই দেওয়া হয়েছে। এটা নতুন ঘটনার জন্য।’ এর আগে বেশ মোটা অঙ্কের জরিমানাসহ নিষেধাজ্ঞা; বিসিবির মতে, সব মিলিয়ে যে শাস্তির আর্থিক পরিমাণ প্রায় দেড় কোটি টাকার মতো। তারপরও বিতর্কিত কর্মকা-ের পিছু ছাড়েননি সাব্বির। তার এমন কা-ের পেছনে দিক-নির্দেশনার অভাব দেখছেন ইসমাইল হায়দার, ‘আমি বলব দিক-নির্দেশনার অভাব পরিবারের কাছ থেকে, যেসব বন্ধু-বান্ধব আছে তাদের কাছ থেকে। (শাস্তির পর) কেউ নিজেকে শুধরিয়ে নেয়, কেউ নেয় না। তবে ডিসিপ্লিনের ক্ষেত্রে আমরা ছাড় দেব না। সাব্বির ছাড়াও গতকাল শুনানিতে ডাকা হয়েছিল আরেক ক্রিকেটার মোসাদ্দেক হোসেনকে। তবে তার ব্যাপারটি পারিবারিক এবং আদালতে নিষ্পত্তিযোগ্য বলে তাকে শুধু সতর্ক করে ছেড়ে দিয়েছে ডিসিপ্লিনারি কমিটি। ভবিষ্যতে এসব ঝামেলায় না জড়াতেও পরামর্শ দেওয়া হয়েছে তাকে। এ শুনানিতে আরেক ক্রিকেটার নাসির হোসেনের আসার কথাÑ বিসিবি সভাপতি এর আগে উল্লেখ করলেও শৃঙ্খলা কমিটি ডাকেনি তাকে। চোটের কারণে ক্রিকেটের বাইরে আছেন বলে আপাতত তার শাস্তির ব্যাপারে ভাবছে না বিসিবি। বোর্ডের এ ডিসিপ্লিনারি কমিটির প্রধান ছিলেন পরিচালক শেখ সোহেল। আর ইসমাইল হায়দার ছাড়াও এ কমিটিতে ছিলেন বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন।