আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ২-০৯-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

চেনা প্রতিপক্ষ পেল বাংলাদেশ

স্পোর্টস রিপোর্টার
| খেলা

দুই দিন বাদে ঘরের মাঠে সাতজাতির সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ; দ্বাদশ আসরে অংশ নিতে দক্ষিণ এশিয়ার দলগুলো ঢাকা আসতে শুরু করবে। বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামের ভেতরে পা রাখলে বোঝা যাবেÑ এখানে বড় কিছু হবে!
ডামাঢোলের মধ্যেই বাজানো হলো আরেকটি আন্তর্জাতিক ফুটবলযজ্ঞের বাঁশি, পঞ্চম বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ; যেটি শুরু হবে ১ অক্টোবর, চলবে ১২ দিন। রাজধানীর পাঁচতারকা হোটেলে বর্ণিল আয়োজনে হলো ছয়জাতির টুর্নামেন্টের গ্রুপ ড্র। বর্ণিল বলতে প্রথার বাইরে ঠুসঠাস কনফেত্তিÑ আর শেষে আধুনিক ঘরানার নারীদের কোমর দোলানো নাচ। ড্রয়ে স্বাগতিক বাংলাদেশ পড়েছে ‘বি’ গ্রুপে, যেখানে প্রতিপক্ষ ফিলিপাইন ও লাওস। অন্য গ্রুপে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন নেপালের প্রতিপক্ষ ফিলিস্তিন ও তাজিকিস্তান। সাফের ঠিক আগে গ্রুপিং হলেও বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ নিয়ে এখনই মাথা ঘামাতে চান না কোচ জেমি ডে, বলেছেনও, ‘সাফ আমাদের জন্য বড় পরীক্ষা। এ মুহূর্তে ভাবনাজুড়ে সাফ ফুটবল, মনোযোগ এদিকে রাখতে চাই। সাফ শেষ হলে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ নিয়ে পরিকল্পনা।
বিশ্ব ফুটবলের র‌্যাঙ্কিংয়ে ৭৯ ও ১৬ ধাপ উপরে থাকলেও প্রতিপক্ষ কিন্তু পরিচিত লাল-সবুজ দলের কাছে। ১৯৯১ সিউলে অলিম্পিক বাছাইয়ে ইমতিয়াজ আহমেদ নকীবের (পাঁচটি) হ্যাটট্রিকে ৮-০ গোল ফিলিপাইনকে হারিয়েছিল বাংলাদেশ। ২০ বছর পর চ্যালেঞ্জ কাপে তাদের কাছে হার ০-৩ এ। আর ২০০১ এশিয়ান কাপ বাছাইয়ে ১-২ গোলে লাওসের কাছে হারলেও গেল ২৭ মার্চে ভিয়েনতিয়েনে ২-২ ব্যবধানে দূরন্ত ড্র দিয়ে আন্তর্জাতিক উঠানে ফিরেছে লাল-সবুজ দল।
ড্র’য়ের পর বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন সভাপতি কাজী সালাহউদ্দিন বলেন, ‘ফিফা-এএফসির ব্যস্ত সূচি থাকায় দক্ষিণ এশিয়ার অন্য দেশগুলো আন্তর্জাতিক ইভেন্ট আয়োজন করতে আগ্রহী না, সেখানে আমরা উচ্চাভিলাষী হয়ে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ করছি, আমরা গর্বিত।’ ১৯৯৬ সালে প্রথম আসরে খেলেছিল ১২টি ক্লাব, তিন বছর পর দ্বিতীয় আসরে জাতীয় দল, যুব দল ও হাঙ্গেরির ক্যারোলেট এফসি। কাজী সালাহউদ্দিন ২০০৮ সালে সভাপতি হওয়ার পর ২০১৫ ও ২০১৬ সালে দুটি টুর্নামেন্ট করেছে বাফুফে, খেলেছে জাতীয়, অলিম্পিক দল ও ক্লাব। টুর্নামেন্টের পরিধি বাড়াতে দক্ষিণ ও পূর্ব এশিয়া, মধ্যপ্রাচ্যের পর মধ্য এশিয়ার দল আনা হয়েছে। বাফুফে সভাপতি জানান, ‘এশিয়ার প্রতিটি অঞ্চল থেকে একটা করে দল আনছি, যেন সবাই এশিয়ান ফুটবলের স্বাদ নিতে পারে।’ ব্যাপকতা বাড়ায় খেলা বহির্বিশ্বে সম্প্রচারের চেষ্টা চালাচ্ছে টুর্নামেন্টের স্বত্ব কেনা কে স্পোর্টস; প্রধান নির্বাহী ফাহাদ করিম বলেন, ‘বাংলাদেশে সব ক’টি ম্যাচ বিটিভি সরাসরি দেখাবে, প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে আমাদের আলোচনা ইতিবাচকই। এছাড়া চেষ্টা করছি দেশের বাইরেও দেখাতে।
বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের প্রথম পর্ব শুরু হবে ১ অক্টোবর সিলেটে। বাফুফের পরিকল্পনা দুই সেমিফাইনাল ও ফাইনাল ছাড়াও গ্রুপ পর্বের তিনটি ম্যাচ বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে করার। কিন্তু ২৯ আগস্ট নীলফামারীতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচের দর্শকের ঢল দেখে নতুন করে ভাবছে বাফুফে, স্বীকার করেছেন কাজী সালাহউদ্দিন। ঢাকা ও সিলেটে খেলা আয়োজন প্রায় চূড়ান্ত ছিল। ঢাকার বাইরে খেলা হলে দর্শক বেশি হবে। তাই শ্রীলঙ্কা ম্যাচের পর নীলফামারীতে একটি সেমিফাইনালসহ গ্রুপ পর্বের কিছু ম্যাচ করা যায় কিনা, ভাবছি।’ ঢাকার বাইরে খেলা নেওয়ার পক্ষে স্বত্ব কেনা কে স্পোর্টসও, প্রধান নির্বাহী ফাহাদ করিমর মন্তব্য, ‘নীলফামারীতে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের খেলা হবে এখনই বলছি না, তবে সেদিনের ম্যাচটি দেখার পর আমাদের আগ্রহ বেড়ে গেছে, বিষয়টি নিয়ে বাফুফের সঙ্গে আমাদের কথাও হয়েছে।’
২০১৫ সালে তৃতীয় আসরে মালয়েশিয়া অনূর্ধ্ব-২৩ দলের কাছে ৩-২ গোলে হেরে রানার্সআপ হওয়া বাংলাদেশের সর্বোচ্চ পাওয়া। ২০১৬ সালে সেমিফাইনালে বাহরাইন অলিম্পিক দলের কাছে ১-০ হারে স্বাগতিকরা।