আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ৪-০৯-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

ধুন্ধুমার ফুটবলের প্রতিশ্রুতি

শফিক কলিম
| প্রথম পাতা

বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম ঘুরে দেখলে বোঝার উপায় নেই নেপাল-পাকিস্তান ম্যাচ দিয়ে আজ বিকালে এখানে শুরু হবে দক্ষিণ এশিয়ার বিশ্বকাপখ্যাত সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের দ্বাদশ আসর! সাত দেশের জাতীয় দল খেলবে, অথচ ঢাকায় প্রচারণায় কিছু পোস্টার সাঁটানো হয়েছে, স্টেডিয়ামের তিন পাশে তিনটি গেট করা হয়েছে। বাংলাদেশ তৃতীয়বার সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের আয়োজক। তবে ২০০৩ ও ২০০৯ আসরের মতো এবার ফুটবলপ্রেমীদের মন ছুঁতে পারছে না সাফ সুজকি কাপ। ফুটবলের সুরটাই পুরো বেজে ওঠেনি, কোথায় যেন ছন্দপতন হয়েছে।

সাফকে ঘিরে স্বাগতিক বাফুফে চাইলে দেশের ফুটবলে উৎসবের রং ছিটাতে পারত; না পারলেও দলগুলোর মধ্যে প্রতিদ্বন্দ্বিতার ঝাঁঝ রয়েছে। তবে কাল দুপুর থেকে মতিঝিলে বাফুফে ভবন গমগম করেছিল, মনে হয়েছে ঢাকায় কিছু একটা হতে যাচ্ছে! টুর্নামেন্টের লোগো উন্মোচন, অংশ নেওয়া সাত দলের ম্যানেজার্স মিটিং, ভারত ছাড়া বাকি দলগুলোর কোচদের টুর্নামেন্টপূর্ব সংবাদ সম্মেলন ঘিরে দিনভর মানুষে গিজগিজ করেছে ভবন। গণমাধ্যমপর্বে সাতটির মধ্যে ছয় দেশের কোচ-অধিনায়ক ‘এখানে কেউ হারতে চায় না, সবাই চ্যাম্পিয়ন হতে এসেছে’ বলে যেন রণসঙ্গীত বাজিয়ে দিলেন। তারুণ্য নির্ভর ভারতীয় দল গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়নি, যানজটের অজুহাতে!

দলীয় শক্তি-সামর্থ্য যাই হোক ‘ফেভারিট কে’Ñ প্রশ্নের মুখোমুখি হয়েছেন সব কোচ। ২০১১, ২০১৫, ২০১৭ সালের তিন সাফে ফাইনালে ভারতের প্রতিপক্ষ ছিল আফগানিস্তান; ২০১৩ আসর চ্যাম্পিয়নরা মধ্য এশিয়া অঞ্চলে চলে গেছে; গেল ১১ ট্রফির সাতটি জেতা ভারত ২০০৯ সালের মতো এবারও ঢাকায় অলিম্পিক দল পাঠাচ্ছে। ফলে এবার স্বাগতিক বাংলাদেশকে ফেভারিট দেখছে ভুটান, শ্রীলঙ্কা, পাকিস্তান, মালদ্বীপ কোচ!

স্বাগতিক কোচ নিজেদের ফেভারিট মানতে নারাজ, পেশাদার কৌশলে বলেন, ‘আমরা নিজেদের খেলাটা খেলতে চাই। কে কী বলছে, সেটা ভাবছি না।’ গেল তিন মাসের প্রস্তুতিতে বেশ গুছিয়ে উঠেছে দল। কাতার-দক্ষিণ কোরিয়া-নীলফামারিতে একাধিক প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছে। এটা ঠিক এশিয়াডে আমরা প্রথমবারের মতো দ্বিতীয় রাউন্ডে ওঠে ভালো করায় এ দলের ওপর দেশবাসীর প্রত্যাশা অনেক বেড়ে গেছে। চেষ্টা করব সাফ ফুটবলে সেটা মেটাতে। তাই বলে স্বাগতিক হিসেবে আমি মোটেও কোনো চাপ অনুভব করছি না, স্বাভাবিক খেলাটাই খেলব। চেষ্টা করব আক্রমণাত্মক ধাঁচে খেলার।’ ভুটানের বিপক্ষে প্রতিশোধের ম্যাচ খেলতে চান না তিনি। নীলফামারীতে প্রীতি ম্যাচে শ্রীলঙ্কার কাছে হারলেও ভাবছেন না কোচ। ভাবনায় ভুটান। চার মাস অনুশীলনের সুফল পেতে সাফের ট্রফি জিততে চান নাসির চৌধুরী। জানালেন, আমরা নিজেদের খেলাটা খেলতে পারলে অবশ্যই চ্যাম্পিয়ন হবো।’ ভুটানের ব্রিটিশ কোচ ট্রেভর মরগানের চোখে, ‘কোনো সন্দেহ নেই, স্বাগতিক বাংলাদেশ দর্শক সমর্থন পাবে। আমরাও জেতার চেষ্টা করব। তারুণ্যনির্ভর হলেও দলে কিছু ভালো খেলোয়াড় আছে। এটা তাদের সুযোগ সামর্থ্য প্রমাণের।’ লক্ষ্য ৪ পয়েন্ট নিয়ে সেমিফাইনালে খেলা। 
তিন বছর পর নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে আন্তর্জাতিক ফুটবলে ফিরছে পাকিস্তান। ব্রাজিলিয়ান কোচ হোসে অ্যান্তোনিও নুরিয়েগো বেশ অভিজ্ঞ, সিয়েরা লিওন, গিনি-বিসাউ, সেইন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিসের পর পাকিস্তান। জানালেন, ‘এশিয়াড দিয়ে চার বছর পর অফিসিয়াল ম্যাচে ফেরা। এরপর সাফে, সব কিছু শুরু করেছি নতুন করে। ভালো খেলে সেটা স্মরণীয় করে রাখতে চাই।’ ফেভারিট প্রশ্নে তার জবাব, ‘বাংলাদেশ স্বাগতিক, শক্তিশালী দল। তবে গ্রুপ থেকে আমরা সেমিফাইনাল খেলতে চাই।’ এশিয়াডে নেপালকে হারিয়েছিল, ঢাকায়ও জিততে চায় তারা। অনেক দিন পর আন্তর্জাতিক ফুটবলে ফিরতে পেরে, সাফের মতো বড় আসরে খেলতে পেরে খুবই খুশি অধিনায়ক সাদ্দাম হোসেন।
গেল সাতটি সাফের বড় আকর্ষণ ছিলেন মালদ্বীপের আলী আশফাক। ক্রোয়েশিয়ান কোচ পিটার সেগার্ট চাইলেও বয়সের ভারে এবার না খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। তারুণ্যনির্ভর হলেও ভালো খেলতে চান তিনি। দলের ফুটবলারদের গড় বয়স সাড়ে ২৩ বছরের কিছু বেশি। চ্যাম্পিয়ন ভারত এবার যুব দল পাঠিয়েছে বলেই যে নিজেদের সবচেয়ে শক্তিশালী বা ফেভারিটÑ মানতে রাজি নন তিনি। ব্যাংককে প্রীতি ম্যাচ ও জাকার্তায় এশিয়াড খেলে সাফের প্রস্তুতি সেরে এসেছে নেপাল। অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে ভালো করতে চায় নেপালের কোচ বালগোপাল মহারজন। নেপাল ১৯৯৩ সালে সাফ গেমস ও ২০১৬ সালে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ জিতেছে ঢাকায়, ট্রফি দুটিকে অনুপ্রেরণা দেখছেন অধিনায়ক বিরাজ মহারজন। মাত্র ক’দিন আগে নীলফামারীতে বাংলাদেশকে হারিয়ে প্রস্তুতি দারুণভাবে সেরেছে শ্রীলঙ্কা; কোচ নিজাম পাকির আলী বলেন, ‘গ্রুপটা কঠিন। আছে ভারত ও মালদ্বীপ। তারপরও আশাবাদী সেমিতে যেতে পারার ব্যাপারে।’ ঢাকা আসার আগে লিথুয়ানিয়ার সঙ্গে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলে গোলশূন্য ড্র করেছে দল।