আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ৫-০৯-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

সুযোগ পেলে সেরাটা দিতে চান রনি

স্পোর্টস রিপোর্টার
| খেলা

এশিয়া কাপের চূড়ান্ত দলে জায়গা পেয়েছেন। আবু হায়দার রনি বাংলাদেশের একাদশে সুযোগ পাবেন কিনা, তা অবশ্য নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। তবে সুযোগ পেলে নিজের সেরাটা উজাড় করে দিতে চান বাঁ-হাতি এ পেসার। অনুশীলনে নিজেকে সেভাবেই প্রস্তুত করছেন ২০১৬ সালে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে অভিষেক হওয়া এ ক্রিকেটার। 

গেল মাসে ফ্লোরিডায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশের শেষ দুটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে খেলেছেন রনি। দুই ম্যাচ মিলিয়ে মাত্র ১টি উইকেট পেলেও বোলিংটা খারাপ করেননি। প্রথম ম্যাচে বোলিং উদ্বোধন করে ৪ ওভারে দিয়েছিলেন ২৬ রান। পরের ম্যাচে ৩ ওভারে ২৭ রানে নেন ১টি উইকেট। আত্মবিশ্বাসের তাই কমতি নেই তার। এশিয়া কাপে নিজের লক্ষ্য নিয়ে সংবাদ মাধ্যমকে রনি বলেন, ‘আমার ব্যক্তিগত লক্ষ্য বলতে যদি বলি, ম্যাচ খেলব কিনা, এখনও নিশ্চিত নয়। এটা টিম ম্যানেজমেন্টের ব্যাপার। এখন অনুশীলন চলছে, অনুশীলনে নিজেকে ভালোভাবে প্রস্তুত করা এখন আমার লক্ষ্য। আর যদি সুযোগ পাই, তাহলে কীভাবে নিজের সেরাটা দিতে পারি।’ গতকাল মিরপুরে দলের সঙ্গে অনুশীলনের পর সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে আলাপকালে ২২ বছর বয়সি এ পেসার যোগ করেন, ‘আমার আত্মবিশ্বাস খুব ভালো আছে। এখন পর্যন্ত খুব ভালো বোলিং হচ্ছে। শেষ দুটি সিরিজও খুব ভালো বোলিং হয়েছে। আমি চেষ্টা করব ওই ধারাটাই যেন ধরে রাখতে পারি। অনুশীলনেও খুব পরিশ্রম করছি। যদি সুযোগ পাই সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করব।’ সুযোগ পেলেই যেন নিজেকে মেলে ধরতে পারেন সেজন্য দলের স্কিল অনুশীলনে নিজের বোলিং বৈচিত্র্য নিয়ে কাজ করছেন রনি, ‘বৈচিত্র্য নিয়েও কাজ হচ্ছে। আগে যেমন অফ কাটারটাও মারতাম, এখন ব্যাক অব দ্য হ্যান্ড, নাকল বলটাও চেষ্টা করছি। ইয়র্কারগুলো চেষ্টা করছি। পারফেকশন আনার চেষ্টা করছি, হয়ত একদিনে হবে না। দিনকে দিন অনুশীল করতে করতে আসবে।’
বাংলাদেশের এশিয়া কাপের দলে পেসার চারজনÑ মাশরাফি বিন মুর্তজা, মোস্তাফিজুর রহমান, রুবেল হোসেন ও রনি। এর মধ্যে রনির অভিজ্ঞতাটাই একটু কম। তাই সিনিয়রদের থেকে শিখছেন রনি, ‘জাতীয় দলে যারা আছে সবাই প্রতিষ্ঠিত বোলার। এর মধ্যে আমার অভিজ্ঞতা একটু কম। আমি চেষ্টা করছি, এখান থেকে যতটুকু পারা যায়, নিজেকে অভিজ্ঞ করা যায়। সিনিয়রদের দেখে যতটুকু শেখা যায়।’ সবার মধ্যে ভালো করার যে একটি অদৃশ্য প্রতিযোগিতা থাকে, সেটাও উপভোগ করেন জাতীয় দলের হয়ে ১০টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলা এ পেসার।’