আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ৬-০৯-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

পর্তুগালের বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচ

বিশ্বকাপ স্মৃতি নিয়ে শুরু ক্রোয়েশিয়ার

স্পোর্টস ডেস্ক
| খেলা

ঐতিহাসিক বিশ্বকাপ সাফল্যের রেশ এখনও কি কেটেছে ক্রোয়েশিয়ানদের! সম্ভবত না। কারণ বিশ্বকাপ পরবর্তী সময়টা সুখের সম্মোহনে আচ্ছাদিত থেকেই কেটেছে তাদের। ইতিহাস গড়ার সেই সম্মোহন এখনও শেষ হওয়ার নয়। তবে এ ভালো লাগা নিয়েই ভবিষ্যতের দিকে তাকিয়ে ক্রোয়েশিয়া। বিশ্বকাপ রানার্সআপদের টুর্নামেন্ট শেষে প্রথম অ্যাসাইনমেন্ট পর্তুগালের বিপক্ষে। ফিফা প্রীতি ম্যাচে পর্তুগিজ শহর ফারোতে মুখোমুখি হবে দুই দল। ইতিহাসে প্রথমবার বিশ্বকাপ ফাইনালে ওঠার সাফল্য এ ম্যাচেও স্মরণ করবেন ক্রোয়াটরা। যদিও ফাইনালে খেলা একাদশের আট তারকার অনুপস্থিতির কথা রয়েছে। 

এছাড়া পর্তুগালের হয়ে খেলবেন না ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। তাই রিয়াল মাদ্রিদের সাবেক দুই সতীর্থ লুকা মডরিচ ও রোনালদোর এ ম্যাচে দেখা হচ্ছে না। বিশ্বকাপ শেষেই ২০১৮ টুর্নামেন্টে ক্রোয়েশিয়ার সাফল্যের অন্যতম তারকা মারিও মানজুকিচ ও গোলরক্ষক ড্যানিয়েল সুবাসিচ অবসরে গেছেন। সঙ্গে অভিজ্ঞ মিডফিল্ডার ভেদ্রান করলুকাও অবসরে। এছাড়া গত রোববার ৩৩-এ পা দিয়েছেন মডরিচ। ভবিষ্যতের প্রয়োজনেই নতুনদের দিকে চোখ রাখতে হচ্ছে কোচ দালিচকে। বিশ্বকাপ স্মৃতি সঙ্গে নিয়ে ২০২০ ইউরোর প্রস্তুতিতে নামছেন ক্রোয়াট কোচ। তাই সেরা একাদশে ইউরোপের বিভিন্ন লিগে খেলা সাত তরুণকে নিয়ে পর্তুগালের বিপক্ষে নামার ইঙ্গিত দেন। 
তবে বিশ্বকাপ পরবর্তী সময়ে নতুন একটি দলকে এক করতে সময় লগবে বলে জানান, ‘সবাই দেখেছে আমরা কী দারুণ একটা টুর্নামেন্ট শেষ করেছি। এমন একটি টুর্নামেন্টের পর দলে রদবদল আসবেই। সবাই মাথা উঁচু করে বিদায় নিতে চায়। ওই দলটির অনেকেই তা করেছে। এখন আমাকে ভবিষ্যৎ নিয়ে ভাবতে হবে। বিশ্বকাপ সাফল্যকে পুঁজি করেই আমি ২০২০ ইউরোর লক্ষ্যে নামছি। আমি এ ম্যাচ অথবা নেশন্স কাপ নিয়ে ভাবছি না। আমার কাজ ২০২০ এর জন্য একটি দল তৈরি করা। যেন ২০১৮ বিশ্বকাপের মতো একটি শক্তিশালী দল নিয়ে ২০২০ ইউরোয় যেতে পারি। অবশ্যই পর্তুগাল ও পরের ম্যাচে স্পেনের বিপক্ষে আমরা জিততে চাই। নতুন শুরুর জন্য এ দুই দলকে প্রতিপক্ষ হিসেবে পাওয়া লাভ হয়েছে। আমরা বেশি বেশি কঠিন প্রতিপক্ষের সঙ্গে খেলতে চাই। যেন নিজেদের ভুলগুলো শুধরে শক্তিশালী হয়ে উঠতে পারি।’