আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ৬-০৯-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

বিদেশের মাটিতে চ্যালেঞ্জ নেন মুশফিক

স্পোর্টস রিপোর্টার
| খেলা

বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের অন্যতম ব্যাটিং স্তম্ভ মুশফিকুর রহিম। গেল পাঁচ বছরে বিদেশের মাটিতে টেস্টে মুশফিকুর রহিমের ব্যাটিং গড় ৫০। টেস্টে বিদেশের মাটিতে বাংলাদেশ দল যেখানে সংগ্রাম করে, সেখানে মুশফিকুর রহিম ব্যক্তিগতভাবে ভালো খেলেন কীভাবে? এমন প্রশ্নের জবাবে মুশফিকুর রহিম বলেছেন, বিদেশের মাটিতে রান করাকে তিনি চ্যালেঞ্জ হিসেবে গ্রহণ করেছেন।

বুধবার মুশফিকুর রহিমের একটি সাক্ষাৎকার প্রকাশ করেছে ক্রিকেটের অন্যতম জনপ্রিয় ওয়েবসাইট ইএসপিএন ক্রিকইনফো। এ সাক্ষাৎকারে বিষয়টি তুলে ধরেছেন বাংলাদেশের এ উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান। মুশফিকুর রহিম বলেছেন, ‘কেউ শুধু দেশের মাটিতে অথবা বিদেশের মাটিতে বেশি রান করতে চায় না। আমি প্রতি সিরিজেই দলের জন্য অবদান রাখতে চাই। কিন্তু এটা ঠিক যে, বিদেশের মাটিতে রান করাটা আমি চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছি। অনেকের মধ্যে এ ধারণা আছে যে, বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা শুধু দেশের মাটিতে ভালো করে। আমি চেষ্টা করেছি বিদেশের মাটিতে ব্যক্তিগতভাবে ভালো করার।’ তিনি আরও বলেন, ‘তামিম, সাকিব, রিয়াদ (মাহমুদউল্লাহ) ভাই ও আমি প্রায়ই আলোচনা করেছি যে, ব্যাটিংয়ে আমাদের নেতৃত্ব দিতে হবে। ওয়েস্ট ইন্ডিজে টেস্ট সিরিজে আমি ভালো করিনি। আশা করি, পরবর্তীতে আমি ভালো করতে পারব। নিউজিল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা ও শ্রীলঙ্কায় আমি আমার সামর্থ্য অনুযায়ী খেলার চেষ্টা করেছি।’
ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে টি-টোয়েন্টিতে তামিম ইকবালের সঙ্গে ওপেনিংয়ে নেমেছিলেন লিটন কুমার দাস। দলের প্রয়োজনে খেলেছিলেন দুর্দান্ত। যে কারণে এবারের এশিয়া কাপে তার ওপরই আস্থা রেখেছেন নির্বাচকরা। সৌম্য সরকার, এনামুল হক বিজয় ও ইমরুল কায়েস দলে নেই। যে কারণে এবারের এশিয়া কাপে আবারও তামিম ইকবালের ওপেনিং সঙ্গী হওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন লিটন। ব্যাপারটি নিয়ে রোমাঞ্চিত এ ডানহাতি। ১২টি ওয়ানডে খেলা এ ব্যাটসম্যান এবার কাজটিকে বড় চ্যালেঞ্জ হিসেবেই নিচ্ছেন।
দেশের জার্সিতে লিটন সবশেষ ওয়ানডে খেলেছেন গেল বছরের অক্টোবরে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে, যে সিরিজে নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি তিনি। ২৪ বছর বয়সি এ ব্যাটসম্যানের একদিনের ক্রিকেটের পরিসংখ্যানও তার পক্ষে কথা বলছে না। সব মিলিয়ে ১২ ম্যাচে ১৫ গড়ে তিনি করেছেন মাত্র ১৬৫ রান। সর্বোচ্চ ৩৫। তবে এবার নতুন কিছু করে দেখাতে চান বড় মঞ্চে। বুধবার মিরপুর শেরেবাংলায় অনুশীলন শেষে সংবাদ মাধ্যমকে এমনটাই জানিয়েছেন লিটন, ‘ভালো একটি সুযোগ পেয়েছি এবার। অনেক দিন থেকে ওয়ানডে দলের বাইরে। যদি সুযোগ পাই তাহলে অবশ্যই ভালো করার চেষ্টা করব। চ্যালেঞ্জ তো অবশ্যই থাকবে। কারণ একটি বড় ইভেন্টে যাচ্ছি। আর যদি ওপেনিংয়ে খেলি তাহলে এখানে পারফর্ম করাটা অবশ্যই অনেক বড় চ্যালেঞ্জের। চেষ্টা করব নিজের শতভাগ দেওয়ার। সেই অনুযায়ী অনুশীলন করছি। ব্যাটিংয়ের কাজও চলছে।’
এশিয়া কাপে ভালো কিছু করার স্বপ্ন লিটন দেখালেও সাম্প্রতিক সময়ে তামিমের সঙ্গী হিসেবে খেলা বাকি ওপেনারদের মতই তার বড় ইনিংস খেলার সামর্থ্য নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। তবে এবার আর তেমনটি হবে না বলেই বিশ্বাস এ ডানহাতির, ‘আসলে আউট হতে হলে একটি বলই তো প্রয়োজন। সেটি নিয়েই আসলে কাজ করছি যে কোনো শটগুলোর পারফেকশন করা যায়। আর আপনাকে উইকেটে থাকলে তো হবে না শুধু, রানও করতে হবে। আর রান করতে হলে উইকেটে টিকে থাকলেই হবে না, ব্যাটও চালাতে হবে। সেই বিষয়গুলোই এখন বিবেচনা করছি, কোন শটটি খেললে রান পাওয়া যাবে। সেগুলোই চেষ্টা করছি শতভাগ।’ ১৫ সেপ্টেম্বর আরব আমিরাতে শুরু হবে এশিয়া কাপের লড়াই। উদ্বোধনী ম্যাচেই মাঠে নামবে বাংলাদেশ। প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা।