আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ৭-০৯-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

পঞ্চম বৃহৎ পারমাণবিক শক্তিধর হয়ে উঠতে পারে পাকিস্তান!

আলোকিত ডেস্ক
| আন্তর্জাতিক

বিশ্বের পঞ্চম বৃহৎ পারমাণবিক শক্তিধর দেশ হয়ে উঠতে পারে পাকিস্তান। ‘পাকিস্তান নিউক্লিয়ার ফোর্সেস ২০১৮’ শীর্ষক এক প্রতিবেদনে এ দাবি করা হয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়, পাকিস্তানের কাছে এখন ১৪০ থেকে ১৫০টি নিউক্লিয়ার ওয়ারহেড রয়েছে। বর্তমান গতিতে দেশটির পরমাণু উন্নয়ন কার্যক্রম চলতে থাকলে ২০২৫ সাল নাগাদ এ অস্ত্রের সংখ্যা দাঁড়াবে ২২০ থেকে ২৫০টি। এতে ২০২৫ সাল নাগাদ বিশ্বের পঞ্চম পারমাণবিক শক্তিধর রাষ্ট্র হয়ে উঠতে পারে পাকিস্তান। পাকিস্তানের পারমাণবিক অস্ত্রের মজুত অনুসরণ করা পর্যবেক্ষকরা এ প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পাকিস্তানের এখনকার ওয়ারহেডের সংখ্যা মার্কিন সামরিক বাহিনীর ধারণার চেয়েও বেশি। প্রতিবেদনটির তিন লেখক হ্যান্স এম ক্রিস্টেনসন, রবার্ট এস নরিস ও জুলিয়া ডায়মন্ড বলেছেন, বর্তমান গতিতে পারমাণবিক উন্নয়নের ধারা চলতে থাকলে ২০২৫ সালের মধ্যে পাকিস্তানের মজুত বেড়ে ২২০ থেকে ২৫০টি ওয়ারহেডে পৌঁছাতে পারে বলেই আমাদের হিসাব। যদি তাই হয়, তাহলে এটি পাকিস্তানকে বিশ্বের পঞ্চম সর্বোচ্চ পারমাণবিক অস্ত্রধর দেশে পরিণত করবে। পাকিস্তানের পারমাণবিক অস্ত্র সম্পর্কে এ প্রতিবেদনটি বুলেটিন অব দ্য অ্যাটমিক সায়েন্টিস্টে প্রকাশিত হয়েছে। প্রতিবেদনের মূল লেখক এম ক্রিস্টেনসন ওয়াশিংটনভিত্তিক ফেডারেশন অব আমেরিকান সায়েন্টিস্টের (এফএএস) সঙ্গে সম্পর্কিত নিউক্লিয়ার ইনফরমেশন প্রজেক্টেরও পরিচালক। গেল এক দশকে পাকিস্তানের পরমাণু নিরাপত্তা নিয়ে মার্কিন পর্যবেক্ষণ ‘আত্মবিশ্বাস থেকে উদ্বেগে পরিণত’ হয়েছে বলে প্রতিবেদনে মন্তব্য করা হয়েছে। চারটি প্লুুটোনিয়াম উৎপাদন রিঅ্যাক্টরসহ ইউরেনিয়াম সক্ষমতা ক্রমেই বাড়ছে বিধায় আগামী দশ বছরে দেশটির মজুত বাড়বে বলেই মনে করা হচ্ছে। প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, পাকিস্তানের সেনাবাহিনী ও বিমান বাহিনীর ঘাঁটিতে বাণিজ্যিক স্যাটেলাইট ইমেজ বিশ্লেষণ করে পারমাণবিক অস্ত্র সম্পর্কে এসব তথ্য বের করে আনা হয়েছে। দি ইকোনমিক টাইমস