আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ৭-০৯-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

সাকিব ৬০-৭০ ভাগ ফিট থাকলেও খুশি কোচ!

স্পোর্টস রিপোর্টার
| খেলা

এশিয়া কাপ উপলক্ষে গতকাল মিরপুরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে কথা বলেন জাতীয় দলের হেড কোচ স্টিভ রোডস ও অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা

এশিয়া কাপের মতো গুরুত্বপূর্ণ টুর্নামেন্ট বিবেচনায় নিজের আঙুলের সার্জারি পিছিয়ে দিয়েছেন সাকিব আল হাসান। দেশকে ভালোবেসে এমন সিদ্ধান্ত নিলেও মর্যাদার আসরে দলের সেরা এ অলরাউন্ডার কতটা দিতে পারবেন, তা নিয়ে শঙ্কা থেকেই যাচ্ছে। তবে ফিটনেস নিয়ে সমস্যা থাকা সত্ত্বেও ভক্ত-সমর্থকের আশ্বস্ত করতে সাকিবকে নিয়ে কথা বলেছেন বাংলাদেশ দলের হেড কোচ স্টিভ রোডস। জানিয়েছেন, এশিয়া কাপে সাকিব অন্তত ৬০ থেকে ৭০ ভাগ পারফরম্যান্স দিতে পারলেই তা দলের জন্য অনেক হবে। আর রোডসের বিশ্বাস, সাকিব যা বলেছে, তার চেয়েও সে অনেক বেশি ফিট। সম্প্রতি এক ইংরেজি পত্রিকায় দেওয়া সাক্ষাৎকারে সাকিব বলেছেন এ মুহূর্তে তিনি ২০ থেকে ৩০ ভাগ ফিট। হাতের আঙুলে এখনও ব্যথা রয়েছে।.অনুশীলন থেকে বেশ কিছুদিন দূরে আছেন। তাই কীভাবে ব্যাটিং-বোলিং করবেন, সেটাও নিশ্চিত নন! এশিয়া কাপের আগে তার এ বক্তব্য নিয়েই তৈরি হয়েছে সংশয়। তবে ফিটনেস নিয়ে সাকিবের বক্তব্যকে উড়িয়ে দিলেন হেড কোচ রোডস। গতকাল মিরপুরে এশিয়া কাপ উপলক্ষে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে রোডস বলেন, ‘আমি বিশ্বাস করি না, সে (সাকিব) মাত্র ২০ থেকে ৩০ শতাংশ ফিট। আমার মনে হয়, সে এর চেয়ে অনেক বেশি ফিট। এসব কথা হেডলাইনে সাড়া ফেলে। আমি নিশ্চিত, সাকিব এর চেয়ে অনেক বেশি ফিট। যে অবস্থায় থেকে ওয়েস্ট ইন্ডিজে ব্যাটিং, বোলিং, ফিল্ডিংয়ে চমৎকার ক্রিকেট খেলেছে। তার চেয়ে ভিন্ন কোনো অবস্থায় নেই সে।’ দলের জন্য সাকিব কতটা গুরুত্বপূর্ণ সেটা তুলে ধরে হেড কোচ যোগ করেন, ‘সবাই জানে, তার অস্ত্রোপচার লাগবে। প্রেসিডেন্টের সঙ্গে কথা বলেই সে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এশিয়া কাপ বাংলাদেশের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সে পুরো ফিট নয়। তবে সে যদি ক্যারিবিয়ানের মতো একটু করে হলেও খেলে, সেটাই বাংলাদেশের জন্য অনেক পাওয়া হবে। এ ছেলেটা অসাধারণ এক ক্রিকেটার। সাকিব যদি ৬০ থেকে ৭০ শতাংশ ফিটও হয়, তবুও আপনি তার কাছ থেকে অনেক কিছু পাবেন।’ 

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের পর কন্ডিশনিং ক্যাম্প বা অনুশীলন ক্যাম্পে যোগ দেননি সাকিব। এ ছুটি তার ক্রিকেটে আরও সাহায্য করবে বলে মনে করেন রোডস, ‘সাকিব ড্রেসিংরুমে তার বাকি সহকারীদের কাছে খুবই সম্মানীয়। এটা একটা দিক। তারা সাকিবকে বোঝে ও সম্মান করে। পরিবারের সঙ্গে সময় কাটানো তো গুরুত্বপূর্ণ। সবাই বুঝতে পারে, সাকিব অনেক ক্রিকেট খেলে। সে শুধু ব্যাটিং করে না। বোলিং করে, ফিল্ডিং করে, অধিনায়কত্ব করে, তাও আবার সব ফরম্যাটে।’ অনুশীলনে না থাকলেও ক্রিকেটই সাকিবের ধ্যান-জ্ঞান। যথেষ্ট সচেতনও সে এবং বং অনুশীলন ছাড়াও সাকিব কেমন খেলে সেটাও জানাতে ভুললেন না রোডস, ‘সে ঠিক লাইন-লেন্থটা জানে। সবসময়ই অনুশীলন করতে হবেÑ এমন কিছু নয়। অনুশীলন ছাড়াই কেমন ক্রিকেটার সে হতে পারে, এটা ক্যারিবিয়ানে দেখা গেছে। সে সচেতন একটা ছেলে, সে জানে তাকে কখন কোথায় থাকতে হবে। আমি আত্মবিশ্বাসী, (তার অনুপস্থিতি) প্রভাব ফেলবে না।’ আর সাকিব খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেনÑ এমন মনে করে ব্যাপারটা তার ওপরই ছেড়ে দিতে চাইলেন ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি, ‘নিঃসন্দেহে সিদ্ধান্ত তো সাকিবের। 
এখানে কারো কোনো হাত নেই। সে নিজেই সিদ্ধান্ত নিয়েছে (এশিয়া কাপ খেলার) তাই এখানে কোনো অজুহাতের জায়গা নাই। সে যখন খেলবে আমি নিশ্চিত সে তার শতভাগ দেবে।’ মাশরাফি যোগ করেন, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে সাকিব যখন খেলেছে ব্যাটিংয়ে... নিঃসন্দেহে ওই সব খুব ভালো বুঝতে পারবে, ও কেমন করেছে। সব মিলিয়ে যদি পারফরম্যান্স দেখেন, আমাদের জেতার জন্য খুব কার্যকরি ছিল এ পারফরম্যান্স। আমার কাছে মনে হয়, অতটুকু সুস্থ থাকলে যথেষ্টর চেয়েও বেশি।