আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ৯-০৯-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

আইসিটি শিক্ষার্থীকে সংবর্ধনা দিল হুয়াওয়ে

| অর্থ-বাণিজ্য

দেশের শীর্ষ পাঁচটি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শীর্ষ ১০ আইসিটি মেধাবী শিক্ষার্থীকে সংবর্ধনা দিল বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় আইসিটি সল্যুশন সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ে। সম্প্রতি গুলশানে প্রতিষ্ঠানটি কাস্টমার সল্যুশন ইনোভেশন অ্যান্ড ইন্টিগ্রেশন এক্সপেরিয়েন্স সেন্টারে (সিএসআইসি) আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এসব শিক্ষার্থীকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়। হুয়াওয়ের সবচেয়ে বড় সিএসআর প্রোগ্রাম ‘সিডস ফর দ্য ফিউচার’ প্রতিযোগিতার আওতায় বাছাই প্রক্রিয়া অনুসরণ করে এসব শিক্ষার্থীর নাম চূড়ান্ত করা হয়।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন হুয়াওয়ে টেকনোলজিস (বাংলাদেশ) লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ঝাং জেংজুন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (ইইই) বিভাগের প্রধান ড. এসএম মোস্তফা আল মামুন, শিক্ষার্থীদের অভিভাবক এবং হুয়াওয়ের অন্য কর্মকর্তারা।

সম্প্রতি প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ে সংশ্লিষ্ট বিভাগের বিভাগীয় প্রধান, সিনিয়র শিক্ষক এবং হুয়াওয়ের বিশেষজ্ঞ দলের সহায়তায় পাঁচটি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১০ আইসিটি মেধাবী শিক্ষার্থীকে বাছাই করা হয়। ১০ শিক্ষার্থী দুই সপ্তাহের জন্য চীনের বেইজিং ও শেনঝেনে শিক্ষা সফরে যাবেন। যেখানে তারা পরবর্তী প্রজন্মের প্রযুক্তি যেমন : ফাইভজি, ইন্টারনেট অব থিংস (আইইউটি) এবং ক্লাউড কম্পিউটিং বিষয়ে অভিজ্ঞতা নিতে পারবেন। গবেষণা ও উন্নয়নে বিপুল পরিমাণ বিনিয়োগ করে নতুন নতুন পণ্য উদ্ভাবন করছে হুয়াওয়ে। ফলে প্রতিষ্ঠানটি বিশ্বের প্রভাবশালী কোম্পানিতে পরিণত হচ্ছে।

অনুষ্ঠানে হুয়াওয়ে টেকনোলজিস (বাংলাদেশ) লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ঝাং জেংজুন আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, ‘সিডস ফর দ্য ফিউচার’ বিশ্বব্যাপী হুয়াওয়ের সবচেয়ে বেশি বিনিয়োগ করা সিএসআর প্রোগ্রাম, যা ২০০৮ সাল থেকে শুরু হয়। এখনও পর্যন্ত বিশ্বের ১০৮টি দেশ ও অঞ্চলে সিডস ফর দ্য ফিউচার প্রতিযোগিতা চালু হয়েছে। ২০১৭ সাল পর্যন্ত বিশ্বের ২৫০ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ৩০ হাজারের বেশি শিক্ষার্থী এ প্রতিযোগিতার মাধ্যমে উপকৃত হয়েছেন, যাদের মধ্যে ৩ হাজার ৬০০ শিক্ষার্থীকে চীনের শেনজেনে হুয়াওয়ের হেডকোয়ার্টারে শিক্ষা সফরে গিয়ে হাতে-কলমে কাজের অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন। এ প্রতিযোগিতার মূল উদ্দেশ্য বিশ্বমানের প্রযুক্তি উদ্ভাবনের জন্য নতুন নতুন আইসিটি মেধাবীদের দক্ষতা উন্নয়নে সহায়তা করা। আমি বিশ্বাস করি, বিশ্বের চলমান আইসিটি ইন্ডাস্ট্রির সঙ্গে মানিয়ে নিতে এই প্রতিযোগিতার মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের দক্ষতা বৃদ্ধি পাবে এবং সর্বশেষ প্রযুক্তি সম্পর্কে জানতে পারবে। হুয়াওয়ে সব সময় বাংলাদেশের আইসিটি ও টেলিকম খাতের উন্নয়নে অবদান রাখবে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি