আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ৯-০৯-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

প্রতিযোগিতামূলক বাণিজ্য সক্ষমতা বেড়েছে দেশের

মাইডাসের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে বাণিজ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
| অর্থ-বাণিজ্য

বিশ্ব বাণিজ্যে বাংলাদেশ নিজেদের অবস্থান পাকা করে নিচ্ছে। একই সঙ্গে উন্নত বিশে^র সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে বাণিজ্য করার ক্ষেত্রেও বাংলাদেশ বেশ সক্ষমতা অর্জন করেছে বলেই মনে করেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। শনিবার ঢাকায় মাইডাস সেন্টারে মাইক্রো ইন্ডাস্ট্রিজ ডেভেলপমেন্ট অ্যাসিস্টেন্স অ্যান্ড সার্ভিসের (মাইডাস) ৩৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাণিজ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে মাইডাসের সহযোগিতায় ব্যবসায় বিভিন্ন ক্ষেত্রে অসামান্য কৃতিত্ব অর্জনের জন্য আট বিশিষ্ট উদ্যোক্তাকে মাইডাসের পরিচালনা পরিষদ ‘মাইডাস উদ্যোক্তা পুরস্কার-২০১৮’ প্রদান করা হয়। বাণিজ্যমন্ত্রী তাদের হাতে ক্রেস্ট এবং সার্টিফিকেট তুলে দেন।

মাইডাস পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি পারভীন মাহমুদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশে নিযুক্ত নেদারল্যান্ডসের রাষ্ট্রদূত এইচ হেরি ভারউইজি, ইউএসএইডের বাংলাদেশ মিশন পরিচালক ডেরিক এস ব্রাউন, পাম নেদারল্যান্ডের সিনিয়র বিশেষজ্ঞ আকি ওকমা, মাইডাস পরিচালনা পর্ষদের পরিচালক রোকেয়া এ রহমান এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. এএসএম মশিউর রহমান। তোফায়েল আহমেদ বলেন, উন্নত বিশে^র সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে বাণিজ্য করতে বাংলাদেশ সক্ষমতা অর্জন করেছে। তিনটি শর্ত পূরণ করে বাংলাদেশ এরই মধ্যে এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল দেশে প্রবেশের প্রথম ধাপ সফলভাবে অতিক্রম করেছে। ২০২৪ সালে বাংলাদেশ পরিপূর্ণভাবে উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হবে। ২০২৭ সালের পর বাংলাদেশ আর এলডিসিভুক্ত দেশের বাণিজ্য সুবিধা পাবে না। তাই এর জন্য প্রয়োজন প্রতিযোগী দেশগুলোর সঙ্গে বাণিজ্যে টিকে থাকার সক্ষমতা অর্জন। এজন্য বাংলাদেশ প্রস্তুতিও শুরু করেছে। নির্ধারিত সময়ের আগেই বাংলাদেশ এজন্য প্রয়োজনীয় সক্ষমতা অর্জন করবে। বিশ^ বাণিজ্যে প্রতিযোগিতা করে এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ। 

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, দেশের উন্নয়ন এখন দৃশ্যমান। বাংলাদেশ অর্থনৈতিক, সামাজিকসহ সব ক্ষেত্রে সফলভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। অর্থনীতির সব সূচকও ইতিবাচক। রপ্তানি দিন দিন বাড়ছে। ৩৪৮ মিলিয়ন ডলার থেকে গেল বছর মোট রপ্তানি দাঁড়িয়েছে ৪১ দশমিক ৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে। পদ্মা সেতু, মেট্রোরেল, কর্ণফুলী টানেল, মাতারবাড়ী বিদ্যুৎ কেন্দ্রের মতো বৃহৎ প্রকল্পগুলো বাংলাদেশ বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত ভিষণ-২০২১ অর্জিত হয়েছে। বাংলাদেশ এখন ডিজিটাল মধ্য আয়ের দেশ। ২০৪১ সালে বাংলাদেশ হবে উন্নত দেশ। তোফায়েল আহমেদ বলেন, বাংলাদেশ বিশে^ উন্নয়নের রোল মডেল। যারা একসময় এ দেশকে তলাবিহীন ঝুড়ি এবং দরিদ্র দেশের রোল মডেল হিসেবে তিরষ্কার করেছে, তারাই বিশে^র মধ্যে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে স্বীকৃতি দিচ্ছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শূন্যহাতে যুদ্ধ বিধ্বস্ত বাংলাদেশ পরিচালনার দায়িত্বভার গ্রহণ করেছিলেন। সোনার বাংলা গড়ার কাজ শুরু করলেও তা তিনি শেষ করতে পারেননি। তারই কন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণ করছেন। বাংলাদেশ পাকিস্তান থেকে সব ক্ষেত্রে এগিয়ে গেছে। এমনকি বাংলাদেশকে পাকিস্তানের মানুষও উন্নয়নের মডেল হিসেবে বেছে নিয়েছে। পাকিস্তানের মানুষ তাদের নতুন প্রধানমন্ত্রীর কাছে বাংলাদেশের মতো উন্নয়ন দাবি করেছে।