আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ৯-০৯-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

পরিচ্ছন্নতা অভিযান শুরু বরিশালের জেলখালে

বরিশাল ব্যুরো
| খবর

নগরীর মাঝ দিয়ে বয়ে যাওয়া ঐতিহ্যবাহী জেলখাল দখলমুক্ত করে জোয়ার-ভাটার প্রবাহ ফিরিয়ে আনতে ফের উদ্যোগী হয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। শনিবার উৎসবমুখর পরিবেশে খালটির ৩ দশমিক ২ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন অভিযান শুরু করা হয়। ২০১৬ সালে প্রথম দফা অভিযানের পর দ্বিতীয় দফায় এ অভিযান চালাচ্ছে প্রশাসন।
নগরীর নথুল্লাবাদ কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল পয়েন্টে বিভাগীয় কমিশনার রামচন্দ্র দাস এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী এবং বেসরকারি সংস্থার উন্নয়ন কর্মীরা এতে অংশগ্রহণ করেন। দুপুর সোয়া ১২টায় বেকু মেশিন দিয়ে খালের ভেতর জমে থাকা ময়লা-আবর্জনা অপসারণের কাজ আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু করা হয়। তার আগে নথুল্লাবাদ সিঅ্যান্ডবি পুলের ওপর অনুষ্ঠিত সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথি রামচন্দ্র দাস এ কার্যক্রমের অনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করেন। জেলা প্রশাসক মো. হাবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে সুধী সমাবেশে আরও বক্তৃতা করেন মহানগর মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার মোকলেছুর রহমান, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার মহিউদ্দিন মানিক বীরপ্রতীক, মুক্তিযোদ্ধা আবদুস সত্তার (বীরউত্তম), বিভাগীয় পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক আহসান হাবিব, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আবুল কালাম তালুকদার, জেলা বাস মালিক গ্রুপের সভাপতি আফতাব হোসেন প্রমুখ।
জেলা প্রশাসক মো. হাবিবুর রহমান জানান, সম্প্রতি ভূমি মন্ত্রণালয় জেলখাল অবৈধ দখলমুক্ত করতে ৬ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়। পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ও সম্প্রতি এক আদেশে হাজামজা জলাশয় ও খালের পানি প্রবাহ স্বাভাবিক রাখার নির্দেশ দিয়েছে। স্থানীয়দের সহায়তায় জেলা প্রশাসন জেলখাল দখলমুক্ত ও পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করার কার্যক্রম ফের শুরু করেছে।
প্রসঙ্গত, জনগণের জেলখাল, আমাদের পরিচ্ছন্নতা অভিযানÑ সেøাগান তুলে ধরে ২০১৬ সালের ৪ সেপ্টেম্বর জেলখাল পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযানের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন তৎকালীন জেলা প্রশাসক মো. সাইফুজ্জামান। কয়েক হাজার নারী-পুরুষ এ কার্যক্রমে অংশ নিয়েছিলেন।