আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ১০-০৯-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

ইদলিবে রাশিয়া ও সিরীয় বাহিনীর তুমুল বোমাবর্ষণ

আলোকিত ডেস্ক
| আন্তর্জাতিক

সিরিয়ার ইদলিব প্রদেশে রাশিয়া ও সিরীয় বাহিনীর যুদ্ধবিমানগুলো থেকে তুমুল বোমাবর্ষণ করা হয়েছে। হেলিকপ্টারগুলো থেকে ব্যারেল বোমা বর্ষণ করা হয়েছে। অধিকার কর্মী, উদ্ধার কর্মী ও স্থানীয় বাসিন্দারা একথা জানিয়েছেন। তারা জানান, যুদ্ধবিমানগুলো থেকে কমপক্ষে ৬০ দফা হামলা চালানো হয়েছে। এছাড়া  ইদলিবের দক্ষিণাঞ্চলের দুটি গ্রামে উচ্চমাত্রার বিস্ফোরক ও গোলার টুকরো ভর্তি ব্যারেল বোমা নিক্ষেপ করার অভিযোগ করেছেন তারা। তবে ব্যারেল বোমা নিক্ষেপের অভিযোগ অস্বীকার করেছে সিরীয় বাহিনী। বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত সর্বশেষ শক্ত ঘাঁটি ইদলিব পুনরুদ্ধারে জোরালো পদক্ষেপ নিয়েছে সিরিয়া সরকার। ধারণা করা হচ্ছে, দেশটির দীর্ঘদিনের গৃহযুদ্ধের শেষ বড় ধরনের লড়াই এখানেই হবে। এর আগে তেহরানের বৈঠকে ইদলিবে যুদ্ধবিরতি দিতে একমত হতে ব্যর্থ হন রাশিয়া, তুরস্ক ও  ইরানের প্রেসিডেন্টরা। জাতিসংঘের তথ্য অনুসারে, ইদলিবে এখনও ১০ হাজার আল-নুসরা ও আল-কায়দা সদস্য অবস্থান করছেন। আসাদ সরকার যদি ইদলিবে অভিযান চালায় তাহলে প্রায় ২৫ লাখ মানুষ তুরস্ক সীমান্তের দিকে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এতে নতুন করে আরেকটি শরণার্থী সংকট তৈরি হবে। 
কুর্দিদের সংঘর্ষে নিহত ১৮ : সিরিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় কামিশলি শহরে সামরিক বাহিনীর সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের মদতপুষ্ট কুর্দি যোদ্ধাদের সংঘর্ষে কমপক্ষে ১৮ জন নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে কুর্দি বাহিনীগুলো। শনিবার সিরীয় সামরিক বাহিনীর একটি বহর শহরটির কেন্দ্রস্থলে প্রবেশের পর দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। কুর্দিদের ওয়াইপিজি মিলিশিয়া বাহিনীর অন্তর্ভুক্ত নিরাপত্তা বাহিনী দাবি করেছে, কামিশলির ওই এলাকাটি তাদের নিয়ন্ত্রণে ছিল। দুই পক্ষের সংঘর্ষে কুর্দিদের সাত যোদ্ধা ও সিরীয় সামরিক বাহিনীর ১১ সেনাসদস্য নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে কুর্দি বাহিনীগুলো। সিরিয়ার সরকারপন্থি সূত্রগুলো জানিয়েছে, বিমানবন্দরের দিকে যাওয়ার সময় সেনাবাহিনীর একটি টহল দলের ওপর কুর্দি বাহিনীগুলো হামলা চালায় । এতে বেশ কয়েকজন সেনা নিহত হয়েছেন। আলজাজিরা