আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ১০-০৯-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

থামছেই না বালু উত্তোলনথামছেই না বালু উত্তোলন

ফেনীতে হুমকিতে নির্মাণাধীন সাহেবের ঘাট সেতু

জাবেদ হোসাইন মামুন, সোনাগাজী
| দেশ

ফেনীর সোনাগাজীতে ছোট ফেনী নদীর ওপর নির্মাণাধীন সাহেবের ঘাট সেতুর ১০০ গজের মধ্যে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে। সেতুটি নির্মাণে ৫৩ কোটি টাকা ব্যয় করা হচ্ছে। সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের প্রচেষ্টায় নোয়াখালী-ফেনীর যোগাযোগে নতুন মাত্রা যোগ করতে নির্মিত হচ্ছে এ সেতু। বালু উত্তোলনে হুমকির মুখে রয়েছে নির্মাণাধীন এ সেতু। সরেজমিন দেখা গেছে, ছয়টি ড্রেজার মেশিন বসিয়ে এখানে বালু উত্তোলন চলছে। এর আগে এভাবে বালু উত্তোলনের ফলে নির্মাণাধীন সেতুটির গার্ডার ভেঙে নদীতে পড়ে গিয়েছিল। এতে কয়েকজন নির্মাণ শ্রমিক আহত হয়েছিলেন।
স্থানীয়রা জানান, অব্যাহতভাবে বালু উত্তোলনের ফলে ফসলি জমি ও ঘরবাড়ি নদীগর্ভে বিলীন হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন কৃষক। বালুদস্যুরা প্রভাবশালী হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে ভয়ে কেউ মুখ খোলার সাহস পান না। স্থানীয়দের মাঝে এ নিয়ে চরম ক্ষোভ ও অসন্তোষ বিরাজ করছে। এলাকাবাসী, ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক ও উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে একটি সংঘবদ্ধ চক্র ছোট ফেনী নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছে। ফলে পশ্চিম চরদরবেশ ও পশ্চিম চরচান্দিয়া গ্রামের শতাধিক ঘরবাড়ি নদীগর্ভে বিলীন হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। বিস্তীর্ণ এলাকায় নতুন করে জেগে ওঠা দুটি চর ভাঙনের মুখে পড়েছে। দেখা যায়, বালু পরিবহনকারী যানবাহনগুলো অবাধে চলাচলের কারণে এসব এলাকার রাস্তাঘাট এরই মধ্যে ভেঙে চুরমার হয়ে গেছে। অনেক সড়ক যান চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। পশ্চিম চরচান্দিয়া গ্রামের কৃষক আবুল কালাম জানান, বালু উত্তোলনের কারণে তার দুই একর ফসলি জমি নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। বালু উত্তোলনকারী প্রভাবশালীদের ভয়ে তিনি এর প্রতিবাদ করতে সাহস পাচ্ছেন না। জসিম উদ্দিন নামে আরেক কৃষক জানান, বালু লুটেরাদের ভয়ে তিনিও মুখ খোলার সাহস পাচ্ছেন না।
এ বিষয়ে ফেনীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) কুলদীপ চাকমা বলেন, আমাদের কাছে বালু উত্তোলনের ব্যাপারে অভিযোগ এসেছে। প্রশাসনের লোকজন ঘটনাস্থলে যাওয়ার খবর পেলে বালু উত্তোলনে ব্যবহৃত ড্রেজার মেশিন সরিয়ে নেওয়া হয়। তাই তাদের পাকড়াও করতে এবার ভিন্ন কৌশল ব্যবহারের প্রস্তুতি নিয়েছি।