আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ১০-০৯-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

বরিশালে ভারতীয় হাইকমিশনার

বাংলাদেশের নির্বাচনে ভারত হস্তক্ষেপ করবে না

বরিশাল ব্যুরো
| শেষ পাতা

বরিশাল সফরের শেষ দিন রোববার এক নৌবিহারে সাংবাদিকদের সঙ্গে বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা বলেছেন, বাংলাদেশের আগামী নির্বাচন এবং রাজনীতি একান্তই তাদের নিজস্ব বিষয়। ভারত সরকার বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ রাজনীতি এবং নির্বাচনে কোনোভাবেই হস্তক্ষেপ করবে না। তবে বন্ধুপ্রতিম দেশ হিসেবে বাংলাদেশ কোনো সহযোগিতা চাইলে ভারত সরকার সবসময় সহযোগিতা করতে প্রস্তুত রয়েছে। 
রোহিঙ্গা ইস্যু এবং রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরত নেওয়ার বিষয়ে হাইকমিশনার শ্রিংলা বলেন, ভারত মিয়ানমারকে বলেছে, রাখাইনের বাস্তুহারা রোহিঙ্গাদের ফেরত নিতে হবে। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে রাখাইনের বাস্তুহারা লোকদের কোনো ঘরবাড়ি নেই। এ কারণে রাখাইন রাজ্যে গৃহনির্মাণ শুরু হয়েছে। তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের অবশ্যই ফেরত নিতে হবে। তিস্তা চুক্তি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছিলেন, তার ইনটেনশন আছে, তিস্তা এগ্রিমেন্ট হবে। তিনি বরিশালে শতীন্দ্র স্মৃতি গান্ধী আশ্রম, শেরেবাংলা জাদুঘর, পিরোজপুরের স্বরূপকাঠিতে কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ কলেজ ও নৌবিহারে এ অঞ্চলের প্রাকৃতিক দৃশ্য দেখে অভিভূত হন। 
গান্ধী আশ্রম উন্নয়নে ভারত কাজ করবে : রোববার দুপুরে ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা বাকেরগঞ্জের বেবাজ গ্রামে পৌঁছে শতীন্দ্র স্মৃতি গান্ধী আশ্রমের বিভিন্ন স্থাপনা পরিদর্শন করেন। পরে অমৃত স্মৃতি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক সুধীসমাবেশে বক্তব্য প্রদানকালে হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা বলেন, এ আশ্রমে আসতে পেরে আমি গর্ববোধ করছি। অবকাঠামোগত উন্নয়ন এবং জনকল্যাণকর কার্যক্রম পরিচালনার জন্য এ আশ্রমকে ভারত সরকারের পক্ষ থেকে সহযোগিতা দিতে চাই।
এর আগে ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান মানবেন্দ্র বটব্যাল শতীন্দ্র স্মৃতি গান্ধী আশ্রমের বর্তমান অবস্থা এবং ঐতিহাসিক পটভূমি তুলে ধরে শ্রিংলার উদ্দেশে বলেন, শতীন্দ্র স্মৃতি গান্ধী আশ্রম ভারত সরকারের পৃষ্ঠপোষকতা পেলে এ অঞ্চলের মানুষ মহাত্মা গান্ধীর অহিংস আন্দোলনের আদর্শকে ধারণ করবে। অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন বাকেরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু সালেহ মুনতাজির সকালে হাইকমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা পিরোজপুরের স্বরূপকাঠি উপজেলার কুড়িয়ানা গ্রামে যান। সেখানে কবিগুরুর নামে প্রতিষ্ঠিত রবীন্দ্রনাথ কলেজে অনুষ্ঠিত সুধীসমাবেশে বক্তব্য রাখেন এবং পাশর্^বর্তী আদমকাঠি গ্রামে নদীর ওপর ভাসমান বাজার ও পেয়ারা বাগান পরিদর্শন করেন। রবীন্দ্রনাথ কলেজে অনুষ্ঠিত সুধীসমাবেশে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধারা ’৭১ সালে কুড়িয়ানায় পাক হানাদার বাহিনীর বর্বর অত্যাচার-নির্যাতনের কথা তুলে ধরলে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন হাইকমিশনার শ্রিংলা। তিনি বলেন, ভারত সরকার বাংলাদেশ ও এদেশের মুক্তিযোদ্ধাদের পাশে ছিল এবং থাকবে। শ্রিংলা রবীন্দ্রনাথ কলেজে ভারত সরকার কর্তৃক বৃত্তি চালুর প্রতিশ্রুতি দিয়ে পাঠাগারের জন্য কিছু বই উপহার দেন। 
রবীন্দ্রনাথ কলেজে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন পিরোজপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. মোস্তাফিজুর রহমান, হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি অধ্যক্ষ বিপুল বিহারি হালদার, ইউপি চেয়ারম্যান শেখর কুমার সিকদার, উপাধ্যক্ষ সঞ্জিব কুমার হালদার প্রমুখ। সন্ধ্যায় হাইকমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা বানারীপাড়ার চাখারে অবস্থিত শেরেবাংলা জাদুঘর পরিদর্শন করেন।