আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ১৩-০৯-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মূলত ‘অন্ধকার’ বাংলাদেশকে আলোকিত বাংলাদেশ বানিয়েছেন

নির্বাচনের মাঠে ফাউল করলে লাল কার্ড : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
| নগর মহানগর

রাজধানীর জাতীয় নাক-কান-গলা ইনস্টিটিউটের অডিটরিয়ামে বুধবার কক্লিয়ার ইমপ্ল্যান্টের বরাদ্দপত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির সঙ্গে ফটোসেশনে অংশগ্রহণ করেন রোগীরা ষ আলোকিত বাংলাদেশ

স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, বিএনপি নেতারা বলেছেন তারা নির্বাচন করতে দেবেন না। তারা সংবিধানের বিরোধিতা করছেন স্বৈরাচারী আচরণের মাধ্যমে। সংবিধানকে বাদ দিয়ে কিছুই হবে না। আমি তাদের আহ্বান জানাব আপনারা নির্বাচনের উদ্দেশে খেলার মাঠে আসেন। আর খেলার মাঠে ফাউল করলে লাল কার্ড দেওয়া হবে। বুধবার রাজধানীর জাতীয় নাক-কান-গলা ইনস্টিটিউটের অডিটরিয়ামে কক্লিয়ার ইমপান্টের বরাদ্দপত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আগামীতে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালকে পাঁচ হাজার বেডে উন্নীত করা হবে। তখন আমরা উন্নত বিশ্বের সঙ্গে আমাদের স্বাস্থ্যসেবার তুলনা করতে পারব। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের সব কর্মকা-ের বিষয়ে অবগত রয়েছে। তার নির্দেশনাতেই স্বাস্থ্য খাতসহ সব উন্নয়ন কার্যক্রম সম্পাদন হচ্ছে। আমরা দ্রুত এ খাতে উন্নতি করছি। কক্লিয়ার ইমপান্ট বিষয়ে তিনি বলেন, গরিব-অসহায় মানুষ এ সরকারের সহযোগিতা না পেলে এ ধরনের চিকিৎসার আওতায় আসতে পারত না। প্রতিবন্ধীরাও স্বপ্ন দেখে চিকিৎসার। আমাদের সরকার তাদের স্বপ্নপূরণের কাজ বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মূলত ‘অন্ধকার’ বাংলাদেশকে আলোকিত বাংলাদেশ বানিয়েছেন। এ সময় বিএনপিকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, বিএনপি নেতারা বলেছেন তারা নির্বাচন করতে দেবেন না; কিন্তু তারা সংবিধানের বিরোধিতা করছেন স্বৈরাচারী আচরণের মাধ্যমে। সংবিধানকে বাদ দিয়ে কিছুই হবে না। আমি তাদের আহ্বান জানাব আপনারা নির্বাচনের উদ্দেশে খেলার মাঠে আসেন। আর খেলার মাঠে ফাউল করলে লাল কার্ড দেওয়া হবে।
সাম্প্রতিক উন্নয়নের কার্যক্রমের বিষয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আজ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তর্গত সুপার স্পেশালাইজড হাসপাতাল উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী। এছাড়া অবৈধ দখল উচ্ছেদ করে ৫০০ বেডের শেখ হাসিনা বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউট ২০ অক্টোবর উদ্বোধন করা হবে। জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানের (নিটোর) বর্ধিত অংশও ১৮ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করবেন। অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, আমরা ১০ লাখেরও কম টাকায় কক্লিয়ার ইমপান্ট বিতরণ করছি। বাইরে যার খরচ ১৫ লাখেরও বেশি। দেশে প্রায় দেড় কোটির বেশি শ্রবণপ্রতিবন্ধী রয়েছে। সে তুলনায় আজ মাত্র ৪০ জনকে কক্লিয়ার ইমপান্ট বিতরণ করা হচ্ছে; যা খুব অল্প সংখ্যক হলেও আমরা শুরু করেছি। বর্তমান বাংলাদেশে ৬০ ভাগের বেশি মানুষ নন-কমিউনিকেবল রোগে মারা যাচ্ছে। কমিউনিকেবল রোগে কেউ মারা যাচ্ছে না। এ ধরনের মানবিক ও উন্নয়নমূলক কাজ সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় চালিয়ে যাচ্ছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে। তারা আর্থিকভাবেও সহযোগিতা করে যাচ্ছে।
অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, বাংলাদেশে ২ হাজার ৬০০ বধির বা শ্রবণপ্রতিবন্ধী শিশু প্রতি বছর জন্মগ্রহণ করে। এক লাখের ওপর বধির জনগোষ্ঠীর কক্লিয়ার ইমপান্ট করা প্রয়োজন। এর মধ্যে ৩০০ জনকে এর আওতায় আনা হয়েছে। এ বিষয়ক সেবা বৃদ্ধির লক্ষ্যে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সার্বিক সহযোগিতায় এ হাসপাতালটিকে উন্নতকরণ ও রোগীদের সহায়তা করা হচ্ছে। যেখানে কক্লিয়ার ইমপান্ট ছাড়াও হেয়ারিং এইড দেওয়া হচ্ছে। অনুষ্ঠানে জাতীয় নাক-কান-গলা ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক ডা. মাহমুদুল হাসানের সভাপতিত্বে আরও উপস্থিত ছিলেন সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব জিলার রহমান।