আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ১৩-০৯-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

দশেরে উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় মন্দরিভত্তিকি শশিু ও গণশক্ষিা র্কাযক্রম প্রকল্প

| খবর

রঞ্জিত কুমার দাস

মন্দরিভত্তিকি শশিু ও গণশক্ষিা র্কাযক্রম-৫ম র্পযায় র্শীষক প্রকল্প সারা দশেে ৬০০০টি মন্দরিে প্রতি বছর ১,৮০,০০০ শশিুকে প্রাক-প্রাথমকি শক্ষিা, ২৫০টি মন্দরিে প্রতি বছর ৬,২৫০ জন বয়স্ক ব্যক্তকিে নরিক্ষরমুক্ত করা শক্ষিা এবং ২০০টি মন্দরিে প্রতি বছর ৫,০০০ শক্ষর্িাথীকে গীতা শক্ষিা প্রদানরে কাজ করে যাচ্ছ।ে প্রকল্পরে আওতায় ৮৫ শতাংশ মহলিা শক্ষিক নয়িোজতি আছনে। তারা শশিুদরে নতৈকি শক্ষিার পাশাপাশি সাধারণ শক্ষিায় শক্ষিতি করে প্রাথমকি বদ্যিালয় র্ভতরি উপযোগী করে গড়ে তুলছনে। এছাড়া বয়স্ক শক্ষর্িাথীদরে অক্ষরজ্ঞানসম্পন্ন করে গড়ে তুলছনে। এ প্রকল্পরে আওতায় ২০১৮ শক্ষিার্বষে নতুন করে ২০০টি গীতা শক্ষিাকন্দ্রে চালু করা হয়ছে।ে গীতা শক্ষিাকন্দ্রেরে মাধ্যমে ১০ থকেে ১৮ বছর বয়সি ছলে-েময়েদেরে গীতা শক্ষিায় প্রকৃত মানুষ হসিবেে গড়ে তোলার চষ্টো করা হচ্ছ।ে যাতে করে সমাজ থকেে কুসংস্কার, সাম্প্রদায়কিতা ও জঙ্গবিাদ দূরীভূত হয়। প্রকল্প পরচিালক রঞ্জতি কুমার দাস বলনে, অনগ্রসর জনগোষ্ঠীকে অগ্রাধকিার দয়িে চলমান প্রাক-প্রাথমকি শক্ষিাকন্দ্রেরে মাধ্যমে শশিুদরে মানসকি বকিাশরে গুরুত্বর্পূণ ভূমকিা পালন করছ।ে অধকিন্তু বয়স্ক শক্ষিাকন্দ্রেরে মাধ্যমে অনগ্রসর শ্রণেরি শক্ষিার হার বৃদ্ধি পাচ্ছ।ে গীতা শক্ষিার মাধ্যমে শক্ষর্িাথীরা নতৈকি শক্ষিায় সমৃদ্ধ হচ্ছ।ে র্বতমান সরকাররে সময়ে বাস্তবায়নাধীন এ প্রকল্পরে সফল পরচিালনায় সবাইকে সহযোগতিা করার জন্য আহ্বান জানানো হয়।  সংবাদ বজ্ঞিপ্তি