আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ১৫-০৯-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

কিশোরীদের ফুটবল উৎসব

স্পোর্টস রিপোর্টার
| খেলা

এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ বাছাই

 

১৭ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ-বাহরাইন

১৯ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ-লেবানন

২১ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ-আমিরাত

২৩ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ-ভিয়েতনাম

রীতিমতো আন্তর্জাতিক ফুটবল উৎসব বাংলাদেশে; দুই দুটি টুর্নামেন্ট একসঙ্গে চলছে! তবে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে সন্ধ্যা ৭টায় ভারত-মালদ্বীপ ম্যাচ দিয়ে শেষ হবে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ। এর আগে সকালে ভিয়েতনাম-সংযুক্ত আরব আমিরাত ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ নারী ফুটবল বাছাইপর্ব। কমলাপুর স্টেডিয়ামে শুরু হবে বেলা সাড়ে ১১টায়, বিকাল সাড়ে ৩টায় প্রতিপক্ষ বাহরাইন-লেবানন। ‘এফ’ গ্রুপের অন্য দল স্বাগতিক বাংলাদেশ। ঘরের মাঠ বলেই না, গত আসরের চূড়ান্ত পর্বেও দারুণ খেলায় বিদেশি দলগুলোর চোখে ‘অন্যতম ফেভারিট’ বাংলাদেশ। মারিয়া মান্ডাদের মিশন শুরু হবে সোমবার বিকাল সাড়ে ৩টায় বাহরাইন ম্যাচ দিয়ে।

পুরুষ ফুটবলে ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে অন্য দলগুলোর চেয়ে এগিয়ে থাকলেও এশিয়ার সাত নম্বরে বাংলাদেশের মেয়েরা। গত আসরে চূড়ান্ত পর্ব খেলায় এশিয়ার পরাশক্তি দলগুলোও সমীহ করছে বাংলাদেশকে! তবে স্বাগতিক কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন মনে করছেন, ‘এখানে সবার সমান সম্ভাবনা আছে, কোনো দলই পিছিয়ে নেই। চারটি দলই র‌্যাঙ্কিংয়ে আমাদের থেকে এগিয়ে। তবে মাঠে আমরা নিজেদের সেরা খেলাটা খেলব। গত আসরে কোয়ালিফাই করেছিলাম। সেখানে মেয়েরা ম্যাচ বাই ম্যাচ উন্নতি করেছে, ফলও পেয়েছি। এবার খুশির খবর ট্রেনিং সেশনটা ঠিকমতো শেষ করতে পেরেছি।’ প্রস্তুতি শুরু হয়েছে গত ডিসেম্বরে। এর মধ্যে কিশোরীরা দেশ-বিদেশে তিনটি টুর্নামেন্টে খেলেছে, এর দুটিতে চ্যাম্পিয়ন ও একটায় রানার্সআপ। গত মাসে ভুটানে ভারতের কাছে ১-০ গোলে হেরে রানার্সআপ হয় ছোটনের দল, সাফের ভুলগুলো শোধরাতে চেষ্টা করেছেন, পরশু শেষ হয়েছে। ভালোভাবেই নাকি শেষ হয়েছে। প্রতিপক্ষ সম্পর্কেও ধারণা আছে ছোটনের, বলেছেনও, ‘গত আসরে বাছাইয়ে আরব আমিরাতের বিপক্ষে খেলেছি, সেটা ৬-০ গোলে জিতেছি, ভিয়েতনামের ম্যাচ ভিডিও দেখেছি। লেবানন, বাহরাইন সব কিছুতেই এগিয়ে। তবে আমাদের মেয়েরা কঠোর অনুশীলন করেছে। সে কারণেই আত্মবিশ্বাসী।’ অধিনায়ক মারিয়ার প্রতিশ্রুতি, ‘ঘরের মাঠে খেলা। দর্শকরা আমাদের মাঠে এসে উৎসাহ দেবেন এটুকুই চাওয়া। আমাদের সেরা খেলাটাই উপহার দিব।’
২০১৩ সালে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের মূল পর্বে খেলেছিল বাহরাইন। এবার সব দলেরই সমান সম্ভাবনা দেখছেন কোচ খালেদ হাসান, বলেনও, ‘যে কোনো দলেরই লক্ষ্য থাকে চূড়ান্ত পর্ব খেলা। আমরাও চাই। লেবাননের কোচ ডেমির জিয়ান বলেছেন, ‘দুই মাসের প্রস্তুতি। স্থানীয় সিনিয়র ও অনূর্ধ্ব ১৯ দলের সঙ্গে তিনটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছি। একটিতে জয় ও দুটিতে হার। আমাদের লক্ষ্য মেয়েদের ফুটবলের উন্নতি করা। অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্যই এখানে আসা। তবে এখানে ভালো করতে পারলে খুব খুশি হবো।’
বাংলাদেশ ছাড়াও ভিয়েতনামকে শক্তিশালী দেখছে দলগুলো। দুই মাসের প্রস্তুতি ছাড়াও বেশ কিছু টুর্নামেন্টে খেলেছে তারা। দ্বিতীয় রাউন্ডের লক্ষ্য নিয়েই ঢাকা এসেছে। কোচ এনগুয়েন থি মাই ল্যানও বলছেন, ‘আমাদের লক্ষ্য মূল পর্ব। আপাতত দ্বিতীয় রাউন্ডে চোখ। এখানে খেলতে আসা কয়েক দলের ম্যাচ দেখেছি। স্বাগতিক বাংলাদেশই ফেভারিট। লেবাননও ভালো দল। তবে আমাদেরও সম্ভাবনা আছে।’ আমিরাতের কোচ হরিয়া আল তাহিরির চোখে লেবানন ও বাহরাইনের লেভেলটা ভালো। তবে স্বাগতিক হিসেবে বাংলাদেশও শক্ত প্রতিপক্ষ।