আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ১৫-০৯-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

তোলারাম কলেজের দুটি বাস ফিটনেসবিহীন

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি
| নগর মহানগর

নিরাপদ সড়কের দাবিতে যেখানে শিক্ষার্থীরা রাস্তায় নেমে আন্দোলন করল সেখানে নারায়ণগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী সরকারি তোলারাম কলেজের শিক্ষার্থীরাই রয়েছেন ঝুঁকিতে। কলেজের শুধু দুটি বাস, এ দুটি বাসের অবস্থাও ভয়াবহ। যে কোনো সময় তোলারাম কলেজের শিক্ষার্থীরাই পড়তে পারেন ভয়াবহ দুর্ঘটনার কবলে। জানা গেছে, সরকারি তোলারাম কলেজের ছাত্রছাত্রীদের যাতায়াতের সুবিধার জন্য ২০১১ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দুইটি বাস উপহার দেন। অবহেলা আর সংস্কারের অভাবে এখন বাস দুইটি ব্যবহারের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। বর্তমানে সরকারি তোলারাম কলেজের শিক্ষার্থী রয়েছে কমপক্ষে ২০ হাজার। 

২৯ জুলাই রাজধানীর কুর্মিটোলায় দুই বাসের প্রতিযোগিতায় দুই শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় সারা দেশের ছাত্রছাত্রীরা নিরাপদ সড়কের দাবিতে রাস্তায় নেমে আসে। এর ধারাবাহিকতায় নারায়ণগঞ্জের ছাত্রছাত্রীরাও নেমে আসে রাস্তায়। টানা পাঁচ দিন ক্লাস না করে রাস্তায় নেমে আন্দোলন করে তারা। কিন্তু নারায়ণগঞ্জের অন্যতম স্বনামধন্য কলেজের বাসের কোনো ফিটনেস নেই। ফিটনেসবিহীন বাস দুইটি প্রতিদিন অসংখ্য ছাত্রছাত্রী নিয়ে রাস্তায় নামছে। সোমবার সরেজমিন কলেজে গিয়ে দেখা যায় বাস দুইটির ভয়াবহ অবস্থা। ওপর থেকে চকচকে মনে হলেও ভেতরে এর অবস্থা ভয়াবহ। বাসটি দেওয়ার আগে বাসের গায়ে মোটা রং করা হয়েছিল। এখন যেখানে রং উঠে গেছে সেখানে দেখলে বোঝা যায় রং ছাড়া বাসের গায়ে অন্য কিছু নেই। বাসের বডির লোহার আস্তরণ মরিচা ধরে খসে পড়তে পড়তে এখন শুধু মোটা রঙের আস্তরণ রয়েছে। সেই বাসে চড়েই ছাত্রছাত্রীরা যাতায়াত করছে। এ অবস্থায় ছাত্রদের আন্দোলন কতটা সফল হলো তা সবার কাছেই প্রশ্নবিদ্ধ।
বাসের ফিটনেস প্রসঙ্গে তোলারাম কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির এক ছাত্র জানান, রাস্তায় নেমে আমরা আন্দোলন করলাম। যে নিরাপদ সড়কের জন্য রক্ত দিলাম এখনও তো আমরা নিরাপদ হতে পারলাম না। বাইরের বাসগুলোর অবস্থা না হয় পরেই বললাম। আমাদের নিজেদেরগুলোই তো ঠিক নেই। এর জন্য কাকে ধরব?
অপর এক ছাত্র জানান, আন্দোলন করার সময় নিজেকে খুব গর্বিত মনে করেছিলাম। ভেবেছিলাম দেশের জন্য কিছু করতে পেরেছি। কিন্তু যখন নিজের কলেজের বাসের এ অবস্থা দেখি তখন মনে হয় নিজেদের আন্দোলন ব্যর্থ। রাজপথে রক্ত দিয়েও কোনো লাভ হলো না। অপর এক ছাত্র জানান, কলেজে ভর্তি হওয়ার পর থেকেই এ অবস্থা দেখছি। বাইরের রং চকচকে মনে হলেও রঙের ভেতরের অবস্থা ভালো নয়। অনেক জায়গায় খসে পড়ে গেছে। বাসের বডির অবস্থা ভালো নয়। রং তুলে বডি মেরামত করে আবার রং করা জরুরি। নয় তো ছোট দুর্ঘটনা ঘটলেও মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে। সরকারি তোলারাম কলেজের শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক জীবন কৃষ্ণ মোদক জানান, পরিবহনের একটি কমিটি রয়েছে। তারাই এসব বিষয় দেখাশোনা করে। তবে বাসগুলো দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার হয় না এর সত্যতা স্বীকার করে তিনি বলেন, কলেজের ২০ হাজার শিক্ষার্থীর জন্য আরও দুটি বাসের প্রয়োজন। তবে এ প্রসঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে সরকারি তোলারাম কলেজের অধ্যক্ষ বেলা রানী সিংহ কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি। তিনি বলেন, আমাদের টেলিফোনে কোনো বক্তব্য দিতে নিষেধ করে দেওয়া হয়েছে।