আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ২০-০৯-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটিতে অনুমোদন

ভাঙন রোধে হাজার কোটি টাকার কাজ শুরু হচ্ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক
| অর্থ-বাণিজ্য

শরীয়তপুর জেলার জাজিরা ও নড়িয়া উপজেলার নদীভাঙন রোধে ১ হাজার ৭৭ কোটি ৫৮ লাখ টাকার প্রকল্প গ্রহণ করেছে সরকার। এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করবে রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান খুলনা শিপইয়ার্ড লিমিডেট। শিগগিরই এ প্রকল্পের কাজ শুরু হবে। এ সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। বুধবার সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সম্মেলন কক্ষে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কমিটির বেঠকে এ প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়। বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোসাম্মৎ নাসিমা বেগম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। 

অতিরিক্ত সচিব মোসাম্মৎ নাসিমা বেগম বলেন, বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের বাস্তবায়ণাধীন ‘শরীয়তপুর জেলার জাজিরা ও নড়িয়া উপজেলায় পদ্মা নদীর ডান তীর রক্ষা’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় ৮ দশমিক ৯০ কিলোমিটার নদীর তীর সংরক্ষণ কাজ ৯ দশমিক ৭৫ কিলোমিটার ড্রেজিং, ০.০৮৯ কিলোমিটার ইন্ড টার্মিনেশন এবং আটটি আরসিসি পাকা ঘাট নির্মাণ কাজ সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে বাস্তবায়নের ক্রয় প্রস্তাবের অনুমোদ দেওয়া হয়েছে। এতে ব্যয় হবে ১ হাজার ৭৭ কোটি ৫৮ লাখ টাকা। এটি বাস্তায়ন করবে খুলনা শিপয়ার্ড লিমিটেড।
বৈঠকে ১ লাখ ৭৫ হাজার মেট্রিক টন ইউরিয়া ও ডিএপি সার আমদানির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এতে ব্যয় হবে ৫৪৪ কোটি ২৭ লাখ টাকা। এর মধ্য ১ লাখ ৫০ হাজার মেট্রিক টন ইউরিয়া সার সরবরাহের কাজ পেয়েছে মেসার্স প্রোটন ট্রেডার্স লিমিটেড। বাকি ২৫ হাজার মেট্রিক টন ডিএপি সার জিটুজি (সরকার টু সরকার) ভিত্তিতে আমাদানি করা হবে। 
মোসাম্মৎ নাসিমা বেগম বলেন, কোটেশন ইনকুয়ারির বিপরীতে ৭৫ হাজার মেট্রিক টন ব্যাগড গ্রানুলার ইউরিয়া সার চট্টগ্রাম বন্দরের মাধ্যমে আমদানির প্রস্তাবের অনুমোদন দিয়েছে কমিটি। ২২৪ কোটি ১৭ লাখ টাকা ব্যয়ে এ সার সরবরাহ করবে মেসার্স প্রোটন ট্রেডার্স লিমিটেড। অতিরিক্ত সচিব বলেন, আর ৭৫ হাজার মেট্রিক টন ব্যাগড গ্রিল্ড ইউরিয়া সার মংলা বন্দরের মাধ্যমে আমদানির অন্য একটি প্রস্তাব অনুমোদন করেছে কমিটি। ২২৬ কোটি ৮৮ লাখ টাকা ব্যয়ে এ সারও সরবরাহ করবে মেসার্স প্রোটন ট্রেডার্স লিমিটেড।
এছাড়া রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে ওসিপি, মরক্কো ও বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশনের (বিএডিসি) মধ্যে স্বাক্ষরিত চুক্তির অধীন প্রথম লটের ২৫ হাজার মেট্রিক টন ডিএপি সার আমদানির প্রস্তাবও অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। ২৫ হাজার মেট্রিক টন সার আমদানিতে সরকারের ব্যয় হবে ৯৩ কোটি ২২ লাখ টাকা।
বৈঠকে ঢাকার উত্তরার আশকোনায় র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) হেড কোয়ার্টার্স কমপ্লেক্স নির্মাণের একটি প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এজন্য ব্যয় হবে ৪৩৭ কোটি ২০ লাখ টাকা। অতিরিক্ত সচিব বলেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ কর্তৃক বাস্তবায়ণাধীন ‘র‌্যাব ফোর্সেস সদর দপ্তর নির্মাণ’ প্রকল্পের আওতায় ‘কনস্ট্রাকশন অব র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন হেড কোয়ার্টার্স কমপ্লেক্স অ্যাট আশকোনা উত্তরা ঢাকা’, শীর্ষক কাজের ক্রয় প্রস্তাবের অনুমোদন দিয়েছে কমিটি। ৪৩৭ কোটি ২০ লাখ টাকা ব্যয়ে এ কমপ্লেক্স জয়েনভেঞ্জারে নির্মাণের কাজ পেয়েছে জিকেবিপিএল অ্যান্ড এমএসসিএল লিমিডেট।