আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ২১-০৯-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতেই বিচার চলবে

আদালত প্রতিবেদক
| প্রথম পাতা

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ আসামিদের পক্ষে যুক্তি উপস্থাপনের জন্য ২৪, ২৫ ও ২৬ সেপ্টেম্বর দিন ধার্য করেছেন আদালত। বৃহস্পতিবার রাজধানীর নাজিমউদ্দিন রোডের পুরানো কেন্দ্রীয় কারাগারে অবস্থিত ঢাকার বিশেষ জজ-৫ এর বিচারক মো. আখতারুজ্জামান এ আদেশ দেন। আদেশে আদালত বলেছেন, খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতেই এ মামলার বিচার কাজ চলবে। 

আইনজীবীরা তার প্রতিনিধিত্ব করতে পারবেন।
আদালতে মামলার আসামি জিয়াউল ইসলাম মুন্নার পক্ষে আংশিক যুক্তি উপস্থাপন করেন তার আইনজীবী আমিনুল ইসলাম। তবে আসামিদের পক্ষে যুক্তি উপস্থাপন শেষ না হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে যুক্তি উপস্থাপনের জন্য এদিন ধার্য করেন আদালত। বৃহস্পতিবারও কারাগারে অবস্থিত অস্থায়ী এ আদালতে উপস্থিত হননি খালেদা জিয়া। পরে কারা কর্তৃপক্ষ এক কাস্টডি ওয়ারেন্ট পাঠিয়েছে। কাস্টডি ওয়ারেন্টে বলা হয়েছে, খালেদা জিয়া আদালতে আসতে অপারগতা প্রকাশ করেছেন।
২ সেপ্টেম্বরও আদালতে আসেননি খালেদা জিয়া। ওই সময় কারা কর্তৃপক্ষ বলেছিল, খালেদা জিয়া আদালতে আসতে অনিচ্ছুক। ১৩ সেপ্টেম্বর দুদকের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল আইনের ৫৪০-এ ধারায় একটি আবেদন করেছিলেন। আবেদনে তিনি বলেন, খালেদা জিয়া আদালতে আসতে অনিচ্ছা প্রকাশ করেছেন। তবে তার অনুপস্থিতিতে এ মামলার বিচার কার্যক্রম চলতে পারে। আর খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা আদালতকে বলেন, খালেদা জিয়ার উপস্থিতি ছাড়া মামলার বিচার কাজ চলতে পারে না। আদালত উভয় পক্ষের যুক্তিতর্ক শেষে বৃহস্পতিবার এ বিষয়ের ওপর আদেশ দেওয়ার দিন ধার্য করেন। জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের নামে অবৈধভাবে ৩ কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা লেনদেনের অভিযোগে খালেদা জিয়াসহ চারজনের বিরুদ্ধে ২০১০ সালের ৮ আগস্ট রাজধানীর তেজগাঁও থানায় একটি মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। ২০১২ সালের ১৬ জানুয়ারি মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের উপপরিচালক হারুন-অর-রশীদ খালেদা জিয়াসহ চারজনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।