আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ২৪-০৯-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

বরিশালে যমজ মেয়ের বাল্যবিয়ে

বাবা ও বরকে কারাদন্ড

বরিশাল ব্যুরো
| শেষ পাতা

বরিশালের আগৈলঝাড়ায় একই সঙ্গে দুটি বাল্যবিয়ের অপরাধে কনের বাবা ও বরকে কারাদ- দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। তাদের শনিবার রাতে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করলে বিচারক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিপুল চন্দ্র দাস বর রমজানকে সাত দিন ও কনের বাবা আমীর আলীকে ১০ দিনের কারাদ-ের আদেশ দেন। দ-প্রাপ্তদের রোববার বরিশাল কেন্দ্রীয় কারাগারে প্রেরণ করেছে পুলিশ।
থানা সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার বারপাইকা গ্রামের আমীর আলী শাহের যমজ মেয়ে বারপাইকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী রুনু ও রানুর বিয়ের আয়োজন করে তার পরিবার। শুক্রবার ও শনিবার বিয়ের দিন ধার্য করেন তারা। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট ৫নং রতœপুর ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা সরদার জেনে বিয়ে বন্ধ করতে ব্যর্থ হয়ে উপজেলা প্রশাসনকে অবহিত করেন। ফলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বাল্যবিয়ে বন্ধের নির্দেশ দেন। তার নির্দেশ উপেক্ষা করে রহমতপুরের শাহ আলম সরদারের ছেলে আবুল কাশেমের সঙ্গে বড় মেয়ে রুনুর বিয়ে দেওয়া হয়। রানুকে একই উপজেলার ফুল্লশ্রী গ্রামের মোতালেব সরদারের ছেলে রমজান সরদারের সঙ্গে বিয়ে হয়। জাল জন্ম সনদে উভয় ছাত্রীর বয়স বাড়িয়ে এ বিয়ে সম্পন্ন করেন বাকাল ইউনিয়নের কাজী মনিরুজ্জামান।
বিষয়টি জেনে উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা সুশান্ত বালা ও এসআই মোশারফ হোসেন বারপাইকা গ্রামে আমীর আলীর শাহের বাড়ি উপস্থিত হন। এর আগে কাজী মরিুজ্জামান বিয়ে পড়িয়ে পালিয়ে যান। এ অবস্থায় বিয়েবাড়ি থেকে কনের বাবা আমীর আলী শাহ ও নববিবাহিত রমজানেকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে পুলিশ।