আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ২৫-০৯-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

চট্টগ্রামে দুই কিশোরীকে গণধর্ষণ

গ্রেপ্তার ৬

চট্টগ্রাম ব্যুরো
| শেষ পাতা

চট্টগ্রাম নগরীতে চাকরি খুঁজতে আসা দুই কিশোরীকে মোবাইল চুরির অপবাদ দিয়ে আটজন মিলে ধর্ষণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ছয়জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। রোববার রাতে নগরীর কোতোয়ালি থানার রিয়াজউদ্দিন বাজারের জলসা মার্কেটে এ ঘটনা ঘটে। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন আবদুল আউয়াল ডালিম, ফারুক, কবির, জাহাঙ্গীর আলম, বাবলু ও সেলিম।
কোতোয়ালি থানার ওসি মোহাম্মদ মহসিন জানান, ধর্ষণের শিকার দুই কিশোরীকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এনাম ও রুবেল নামে আরও দুজন এখনও পলাতক আছে। কোতোয়ালি থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. কামরুজ্জামান জানান, ধর্ষণের শিকার এক কিশোরী জলসা মার্কেটের এক দোকানে চাকরি করতেন। পরিচয়ের সুবাদে ওই মার্কেটের পঞ্চম তলার জয়ন্তী বোরকা হাউজের মালিক রাশেদ তার দোকানে দুজন নারী কর্মচারী লাগবে বলে তাকে জানান। ওই কিশোরী তার আরেক বান্ধবীকে নিয়ে রোববার দুপুরে সেখানে যান। রাশেদের দোকানে বসে কথা বলে চলে যাওবার সময় সন্ধ্যা ৬টার দিকে ডালিম ও সেলিম মিলে তাদের ডেকে মোবাইল চুরি করেছে কিনা জানতে চায়। পরে অন্যরা মিলে তাদের প্রথমে রাশেদের দোকানে ঢুকিয়ে মোবাইল চুরির বিষয়ে জেরা করে। এরপর সালিশের কথা বলে তাদের দুজনকে মার্কেটের নবম তলায় নিয়ে যায়। সেখানে আটজন মিলে তাদের ধর্ষণ করে। 
ওসি মোহাম্মদ মহসিন বলেন, রাতে বাসায় না ফেরায় একজনের খালা তাদের খুঁজতে জলসা মার্কেটে যান। খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে মালিক সমিতিকে বিষয়টি জানালে তারা মার্কেটের নবম তলার ছাদে গিয়ে দুই কিশোরীকে মেঝেতে পড়ে কাতরাতে দেখেন। দ্রুত দুজনকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। ঘটনায় জড়িতরা সবাই জলসা মার্কেটের বিভিন্ন দোকানের কর্মচারী এবং হকার। তবে দোকান মালিক রাশেদ ঘটনায় জড়িত নয় বলে ওসি জানান। এ ঘটনায় এক কিশোরীর মা বাদী হয়ে কোতোয়ালি থানায় মামলা করেছেন।