আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ২৫-০৯-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

চুল পড়া রোধে প্রাকৃতিক উপায়

আলোকিত ডেস্ক
| শেষ পাতা

চুল পড়ার সমস্যা কমবেশি সবারই দেখা দেয়। পরিচর্যা করলে এর সমাধান সম্ভব। চুল পড়া কমানোর কয়েকটি ঘরোয়া উপায় দেওয়া হলোÑ

গরম তেল মালিশ করা : নারিকেল বা জলপাইয়ের তেল চুল পড়া রোধে গরম করে আঙুলের সাহায্যে ধীরে ধীরে মাথার ত্বকে মালিশ করুন। এটা চুলের গোড়ায় রক্ত সঞ্চালন বাড়ায়, গোড়া শক্ত হয় এবং মাথার ত্বকের উন্নতি হয়।
পেঁয়াজের রস : এর সালফার উপাদান চুল পড়া রোধে সাহায্য করে, চুলের ফলিকলে রক্ত সঞ্চালন বাড়ায়, ফলিকলের সংক্রমণ কমিয়ে পুনরুজ্জীবিত করে। এর অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল উপাদান মাথার ত্বকে সংক্রমণ সৃষ্টিকারী জীবাণু ধ্বংস করে। ফলে চুল পড়া কমে।
বিটের রস : বলা হয়ে থাকে শরীরের সর্বরোগের সমাধান রান্নাঘরেই রয়েছে। চুল পড়া কমাতে ও সার্বিক পুষ্টির চাহিদা পূরণ করতে বিট সাহায্য করে। তাই চুল পড়ার সমস্যা সমাধানে প্রতিদিন খাবার তালিকায় বিট রাখার চেষ্টা।
গ্রিন টি : চুলের ফলিকল পুনরুজ্জীবিত করতে ও চুল গজাতে সাহায্য করে। এছাড়া গ্রিন টি বিপাক বাড়ায়, ফলে স্বাভাবিকভাবেই চুলের বৃদ্ধি হয়। গ্রিন টির দ্রবণ দিয়ে চুল ধুয়ে নিন। নিজেই পার্থক্য বুঝতে পারবেন।
প্রাকৃতিক উপায়ে চুলের যতœ
আমলকী : চুল পড়ার অন্যতম কারণ ভিটামিন ‘সি’র অভাব। আমলকী ভিটামিন ‘সি’র ভালো উৎস। চুল সুন্দর রাখতে এর বিকল্প নেই। আমলকীতে রয়েছে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ও ব্যাকটেরিয়া রোধী উপাদান, যা খুশকি ও মাথার ত্বকের সংক্রমণ দূর করে। আমলকী মাথার ত্বক পরিষ্কার রাখে এবং প্রয়োজনীয় পুষ্টি সরবারহ করে চুল শক্ত ও উজ্জ্বল রাখতে সাহায্য করে।
নিম পাতা : এর ঔষধি গুণ সবারই জানা। এটা চুল পড়া কমাতেও সাহায্য করে। নিম পাতার ব্যাকটেরিয়া ও ফাঙ্গাস রোধী উপাদান খুশকি দূর করতে সাহায্য করে। চুলের ফলিকল শক্ত করতে ও বৃদ্ধি করতে নিম পাতা সহায়তা করে। চাইলে নিম পাতার প্যাক ব্যবহার করতে পারেন। নিম পাতা গরম পানিতে ফুটিয়ে পেস্ট বানিয়ে মাথার ত্বকে লাগিয়ে ৩০ মিনিট অপেক্ষার পর শ্যাম্পু করে নিন। ভালো ফলের জন্য সপ্তাহে দুই দিন এ পদ্ধতি অনুসরণ করুন।