আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ২৫-০৯-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

বেনাপোলে তিন দিন ধরে বন্ধ আমদানি-রপ্তানি

সিদ্ধান্ত ছাড়াই শেষ যৌথ সভা

বেনাপোল প্রতিনিধি
| দেশ

বেনাপোলে বন্দর দিয়ে গত তিন দিনেও চালু হয়নি দুই দেশের মধ্যে আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য। সোমবার সকালে দুই দেশের ব্যবসায়ী, বন্দর শ্রমিক ও প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের ৩ ঘণ্টার যৌথ সভা কোনো সিদ্ধান্ত ছাড়াই  শেষ হয়েছে। দুই দেশের ব্যবসায়ী, বন্দর শ্রমিক ও  প্রশাসনিক কর্মকর্তারা আমদানি-রপ্তানি চালু করার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করলেও ভারতের বনগাঁও পৌরসভার মেয়রের হস্তক্ষেপে তা বাতিল হয়ে যায়। এদিকে, ধর্মঘটের কারণে বেনাপোল ও ভারতের পেট্রাপোল বন্দর এলাকায় আমদানি-রপ্তানি পণ্য বোঝাই কয়েক হাজার ট্রাক আটকা পড়েছে। বেনাপোল থেকে  কোনো পণ্য চালানও যায়নি ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে। তবে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ থাকলেও বেনাপোল বন্দর থেকে পণ্য খালাসের ও দুই দেশের মধ্যে পাসপোর্ট যাত্রী চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। বেনাপোল সিএন্ডএফ এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি কামাল উদ্দিন শিমুল জানান, পরিকল্পিতভাবে বনগাঁও পৌরসভার সহায়তায় ক্ষোভে পড়ে তুচ্ছ ঘটনায় আমদানি-রপ্তানি বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে। বেনাপোল আমদানি-রপ্তানিকারক সমিতির নেতা নুরুজ্জামান জানান, বিষয়টি দ্রুত সমাধানের চেষ্টা চলছে। রোববার রাতে বেনাপোল বন্দরের বিভিন্ন সংগঠনের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম ফের চালু হবে। বেনাপোল স্থলবন্দরের ডাইরেক্টর আমিনুল ইসলাম বলেন, সোমবার সকালে দুই দেশের ব্যবসায়ী, বন্দর শ্রমিক ও  প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের ৩ ঘণ্টার যৌথ সভা কোনো সিদ্ধান্ত ছাড়াই শেষ হয়। দুই দেশের শ্রমিকদের কোন্দলের কারণে শনিবার দুপুর থেকে বেনাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ রয়েছে। বেনাপোল কাস্টমস কমিশনার বেলাল হোসেন চৌধুরী জানান, এভাবে ঘন ঘন আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য বন্ধ থাকলে রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ সম্ভব নয়।