আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ২৬-০৯-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

তারা বিল গেটসের চেয়েও ধনী!

আলোকিত ডেস্ক
| শেষ পাতা

ফোর্বস প্রতি বছরই পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ ধনীদের নাম প্রকাশ করে। তাতে প্রায়ই শীর্ষে থাকেন বিল গেটস। ফোর্বসের তথ্য অনুযায়ী, তার বর্তমান সম্পত্তির পরিমাণ ৯ হাজার ৮০০ কোটি মার্কিন ডলার। সম্প্রতি তাকেও টপকে গেছেন ‘অ্যামাজন’-এর প্রতিষ্ঠাতা জেফ বেজস। তার সম্পত্তির অঙ্ক ১০ হাজার কোটি মার্কিন ডলার ছাপিয়েছে। তবে অপরাধী হওয়ার কারণেই হোক বা যে কোনো গোপনীয়তার কারণে, অথবা নানা রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে সেই তালিকায় নাম থাকে না এমন কয়েকজনের; যাদের মোট সম্পত্তির পরিমাণ তাদের চেয়ে অনেক বেশি। দেখুন তাদের নাম ও ‘ওপেন সিক্রেট’ সম্পত্তির পরিমাণ।

রথস্চাইল্ড পরিবার : না, কোনো একজনের হিসাব এখানে নেই; কিন্তু আছে এমন এক পরিবারের কথা যাদের সম্পত্তি ছাড়িয়েছে ২ লাখ কোটি মার্কিন ডলার। তাদের পরিবারের কয়েক সদস্যের জেরেই এ বিপুল সম্পত্তির মালিক তারা। ‘বিল্ডারবার্গ’ নামে এক পারিবারিক গোপন বৈঠকে তারা সম্পত্তি বাড়ানোর পদ্ধতি ও কৌশল নিয়ে আলোচনা করেন।
কিম জং উন : উত্তর কোরিয়া মূলত দরিদ্র দেশ হলেও সেই দেশের প্রেসিডেন্টের সম্পত্তির পরিমাণ শুনলে চমকে উঠতে পারেন। দেশের প্রায় সব বড় সংস্থা, বড় ব্যবসাই সামলান কিম জং ও তার পরিবার। যার বাজারদর প্রায় ১৭ হাজার কোটি মার্কিন ডলার। কিমের জীবনযাত্রার মান আর তার টাকা ওড়ানোর প্রবণতা জানান দেয় সেই বিপুল বিত্তের।
মুয়াম্মার গাদ্দাফি : মানুষটি বেঁচে নেই, কিন্তু ২০১১ সালে মৃত্যুর আগেই লিবিয়ার তৎকালীন শীর্ষ নেতার সম্পত্তির পরিমাণ ছিল ১৮ হাজার কোটি মার্কিন ডলার। রাজনৈতিক দুর্নীতি ও নানা অসাধু উপায়েই তিনি এ বিপুল অর্থের মালিক হয়েছিলেন বলে বিরোধীদের অভিযোগ।
ভøাদিমির পুতিন : ফোর্বসের মোস্ট পাওয়ারফুল পিপল হিসেবে নাম আছে পুতিনের। রাজনৈতিক উদ্দেশে নিজের সম্পত্তির পরিমাণ অনেক কমিয়ে জানালেও পানামানিয়ান ব্যাংকে পুতিনের অ্যাকাউন্ট, তার বিলাসী জীবন ও খরচের বহর জানান দেয়, তার সম্পত্তির পরিমাণ কম করে প্রায় ২০ হাজার কোটি মার্কিন ডলার।
সৌদি রাজপরিবার : বিশ্বের অন্যতম ধনী পরিবার। তাদের সম্পত্তির বিষয় নিয়ে তারা খুব একটা আলোচনা না করলেও বিভিন্ন ব্যবসায়িক হিসাবের দাবি, সৌদির এ রাজপরিবারের সম্পত্তির পরিমাণ প্রায় আড়াই লাখ কোটি মার্কিন ডলারের কাছাকাছি।
পাবলো এসকোবার : অপরাধ জগতের ত্রাস এই ড্রাগ মাফিয়া ১৯৯৩ সালে মারা গেলেও সেই সময়েই তার সম্পত্তির পরিমাণ ছিল প্রায় ১৫ হাজার ৫০০ কোটি মার্কিন ডলার। কুখ্যাত হওয়ার কারণে কোনো দিনই ফোর্বস তাকে স্বীকৃতি দেয়নি। তবে কলম্বিয়ার এ ডনের কেনা কয়েক ডজন বিমান, হোটেল তো ছিলই, বাড়িতেই বানিয়েছিলেন চিড়িয়াখানা ও বিমানবন্দর। সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা