আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ২৯-০৯-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

শেখ হাসিনা সেতু পাল্টে যাচ্ছে রংপুরের অর্র্থনীতি

রংপুর ব্যুরো
| শেষ পাতা
রংপুর-লালমনিরহাট সীমান্তে তিস্তা নদীর ওপর শেখ হাসিনা সেতু খুলে দেওয়া হয়েছে। সেতু খুলে দেওয়ায় বদলে যাচ্ছে এ অঞ্চলের অর্থনীতির সার্বিক দৃশ্যপট। সেতুটিকে ঘিরে এ অঞ্চলের অর্থনীতিতে সমৃদ্ধির পারদ বেড়ে যাচ্ছে। দুই জেলার উৎপাদিত ধান, গম, পাট, আলু, সবজি ও সুপারিসহ বিভিন্ন কৃষিপণ্যের ন্যায্যমূল্য পাচ্ছেন কৃষকরা। নিশ্চিত হয়েছে নিরবচ্ছিন্ন যাতায়াত। রংপুর চেম্বার অব কমার্সের প্রেসিডেন্ট মোস্তফা সোহরাব টিটু বলেন, শেখ হাসিনা সেতু চালু হওয়ায় অর্র্থনীতিসহ প্রত্যেকটি ক্ষেত্রে সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচিত হয়েছে। এ অঞ্চলের ব্যবসা-বাণ্যিজের ক্ষেত্রে তৈরি হলো নতুন মাত্রা। ওই সেতু ঘিরে দুই জেলায় ছোট ছোট কলকারখানা ও ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান গড়ে ওঠা শুরু হয়েছে। এতে হাজারো মানুষের কর্র্মসংস্থানের সৃষ্টি হবে। সেতুর উত্তর কাকিনার কৃষক মাহাতাব হোসেন জানান, আগে সেতু না থাকায় সঠিক সময় পণ্য বাজারে নিয়ে যেতে পারেননি। এ কারণে ন্যায়মূল্য থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। সেতু হওয়ার পর থেকে দ্রুত সব রকম সবজি রংপুর সিটি বাজারে নিয়ে যেতে পারছেন। এ কারণে দামও পাচ্ছেন সঠিক। কৃষক ইসহাক আলী বলেন, আগে যোগাযোগের ব্যবস্থা ভালো না থাকার জন্য পাইকাররা কম দামে কৃষিপণ্য ক্ষেত থেকে নিয়ে যায়। সেতু হওয়ার পর শনিবার পাইকাররা আগের চেয়ে বেশি দামে নেবে বলে ক্রয় করার জন্য আসেন। তিনি পাইকারদের কাছে সবজি বিক্রি করেননি। কারণ হিসেবে জানান, তার বাড়ি থেকে রংপুর সিটি বাজারে আসতে ২০ মিনিট সময় লাগে। তাই নিজেই পণ্য সিটি বাজারে নিয়ে এসে বেশি দামে বিক্রি করেন। লালমনিরহাট জেলার পাটগ্রাম, হাতিবান্ধা, বড়খাতা, কাকিনা, আদিতমারি, নামরি ও পলাশী এলাকার কৃষক জব্বার, আইজার, গণি, কফিল ও লাল মিয়া জানান, আগে নৌকায় পারাপার হতে বেশ সময় লাগত। রংপুর সিটি বাজারেই ঢুকতে দেড় থেকে দুই ঘণ্টা লাগত। এখন লাগে ৩০ মিনিটি। যেমন সময় বাঁচছে তেমনি কৃষিপণ্যের ন্যায্যমূূল্য পাচ্ছেন তারা। গঙ্গাচড়া এলাকার কয়েকজন কৃষকও এমন কথা বলেন। চলতি মাসের ১৭ সেপ্টেম্বর ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে তিস্তা নদীর ওপর গঙ্গাচড়া শেখ হাসিনা সেতুর উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রংপুরের গঙ্গাচড়া উজেলার মহিপুর ও লালমনিরহাটের কাকিনা পয়েন্টে নবনির্মিত এ সেতুর দৈর্ঘ্য ৮৫০ মিটার এবং ৯ দশমিক ৫ মিটার চওড়া। ২০১২ সালের ২০ সেপ্টেম্বর বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গঙ্গাচড়ার- মহিপুর-লালমনিরহাটের কাকিনা পয়েন্টে তিস্তা নদীর ওপর এ সেতুর নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন। এ সেতু নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ১২৪ কোটি টাকা। স্থানীয়রা জানায়, রংপুর ও লালমনিরহাটের বুড়িমারী স্থলবন্দরের সঙ্গে রংপুরের মানুষ প্রায় যুগ যুগ ধরে কষ্ট করে চলাচল করে আসছিলেন। এছাড়া যাতায়াতের সময় মালামাল পরিবহনে তাদের অতিরিক্ত অর্থ ব্যয় করতে হয়। এখন তাদের কষ্ট দূর হয়েছে।