আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ৩০-০৯-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্প সফরে চার রুশ ব্লগার

ঈশ্বরদী প্রতিনিধি
| শেষ পাতা

ঈশ্বরদীতে নির্মাণাধীন রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প শনিবার পরিদর্শন করেন চার রুশ ব্লগার -আলোকিত বাংলাদেশ

পাবনার রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প সফর করেছেন চার রুশ ব্লগার। বাংলাদেশ ও এ দেশের পর্যটন সম্ভাবনাকে রাশিয়ার জনগণের সামনে তুলে ধরা এবং দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কে নতুন মাত্র যোগ করার লক্ষ্য নিয়ে শনিবার তারা এ সফর করেন। এ সফরের আয়োজন করেছে পাবনার রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প বাস্তবায়নে নিয়োজিত রুশ প্রতিষ্ঠান এএসই গ্রুপ অব কোম্পানিজ এটমস্ত্রয়এক্সপোর্ট। এটি রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় পারমাণবিক শক্তি করপোরেশন-রসাটমের প্রকৌশল শাখা।
প্রকল্প এলাকায় ব্লগারদের স্বাগত জানান সেখানে কর্মরত বাংলাদেশি এবং রুশ কর্মকর্তারা। তাদের ইউনিট-১ এবং ইউনিট-২ এর অধীনে নির্মাণাধীন বিভিন্ন স্থাপনা ঘুরে দেখানো হয় এবং প্রকল্পের ভবিষ্যৎ কর্মকা- সম্পর্কে অবহিত করা হয়। রুশ ব্লগাররা হলেন আলেগ ক্রিকেট, দিমিত্রি লাজিকিন, ইরিনা গোল্ডম্যান ও নিকিতা তেতেরেভ ইনস্টাগ্রামে তাদের মোট অনুসারীর সংখ্যা ১৬ লাখের বেশি বলে জানা গেছে।
এএসই গ্রুপ অব কোম্পানিজের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট ইন্টারন্যাশনাল প্রজেক্টস আলেক্সান্দার খাজিন বলেন, ‘২০৪১ সালে একটি উন্নত দেশে পরিণত হওয়ার লক্ষ্য অর্জনের পথপরিক্রমায় বাংলাদেশে সবুজ ও নির্মল এনার্জির চাহিদা বহুগুণ বৃদ্ধি পাবে। আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, এ চাহিদা মেটাতে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প তাৎপর্যপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।’
সফরকালে ব্লগাররা বাংলাদেশের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পর্যটন স্থাপনা পরিদর্শন করার পাশাপাশি এদেশের জনগণ, জীবনযাত্রা, সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য সম্পর্কে সম্যক জ্ঞান লাভ করবেন। অর্জিত অভিজ্ঞতা তারা তাদের ব্লগের অনুসারীদের সঙ্গে শেয়ার করবেন। শুধু আলেগ ক্রিকেটের অনুসারীর সংখ্যা প্রায় ১০ লাখ। কোনো কোনো সংবাদমাধ্যমের মতে তিনি বর্তমানে রাশিয়ার সর্বাধিক জনপ্রিয় ব্লগার। 
আলেগ তার প্রতিক্রিয়ায় বলেন, ‘রূপপুর সাইটে বিশাল কর্মযজ্ঞ চলছে, কাজের পরিবেশটাও দারুণ। আমার কাছে খুবই ভালো লেগেছে এটি দেখে, কীভাবে রুশ এবং বাংলাদেশিরা কাঁধে কাঁধ মিলে বাংলাদেশের প্রথম পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প নির্মাণে কাজ করে যাচ্ছেন। অন্যান্য প্রকল্পের মতোই পাবনা জেলার অনিন্দ্য সুন্দর প্রকৃতির কোনো ক্ষতি না করেই রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প এ অঞ্চলের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে তাৎপর্যপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।’ এমনই আশাবাদ ব্যক্ত করেন আলেগ।