আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ২২-০২-২০১৯ তারিখে পত্রিকা

এক শিক্ষার্থীকে অন্য শিক্ষার্থীর সঙ্গে তুলনা করবেন না বললেন ভিসি

চট্টগ্রাম ব্যুরো
| নগর মহানগর

চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘অ্যাসেসমেন্ট’ বিষয়ে এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার ফৌজদারহাটস্থ বিআইটিআইডি সম্মেলন কক্ষে এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ইসমাইল খান সেমিনারে প্রধান অতিথি থেকে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। 

এ সময় তিনি বলেন, এক শিক্ষার্থীকে অন্য শিক্ষার্থীর সঙ্গে তুলনা করবেন না। তাদের নিজেদের অবস্থা উন্নয়ন হচ্ছে কিনা সেটা দেখতে হবে। ‘ও পারে, তুমি পারো না’ এভাবে শিক্ষার্থীদের হেয় করা যাবে না। কারণ প্রত্যেক শিক্ষার্থীই বিশেষভাবে যোগ্য। তাদের মূল্যায়ন তাদের অবস্থান থেকে করতে হবে। শিক্ষার্র্থীদের মূল্যায়ন করার সময় তিনটি বিষয়ে নজর দিতে হবে জানিয়ে ইসমাইল খান বলেন, অবশ্যই জানতে হবে, জানা উচিত ও জানলে ভালো এ তিনটি বিষয়কে মাথায় রেখে শিক্ষার্থীদের অ্যাসেসমেন্ট করতে হবে। শিক্ষকদের প্রথমে দেখতে হবে শিক্ষার্থীরা অবশ্যই জানতে হবে এমন বিষয়গুলো কতটুকু জানে। অর্থাৎ বেসিক বিষয়গুলো সম্পর্কে ওরা কতটা ধারণা রাখে। জ্ঞান অর্জন একটি চলমান বিষয় উল্লেখ্য করে তিনি বলেন, ছয়টি ধাপে এটি কাজ করে, ১ম নলেজ রিমেম্বার, ২য় আন্ডারস্ট্যান্ড, ৩য় অ্যাপলায়, ৪র্থ এনালায়সিস, ৫ম ইভালুয়েশন ও ৬ষ্ঠ ক্রিয়েটিভ। শিক্ষকদের নিজেদেরও টিচিং পদ্ধতির অ্যাসেসমেন্ট করতে হবে জানিয়ে তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের শিখাতে হলে আগে নিজেদের জানতে হবে। অনেকেই নিজের জ্ঞানের গভীরতা শিক্ষার্থীদের দেখাতে চায়। কিন্তু সেটা ঠিক না। শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ফিডব্যাক নিতে হবে। তারা কতটুকু বুঝতে পারছে বা পারবে সেই অনুযায়ী তাদের পড়াতে হবে। ভাইভা বোর্ডে কঠিন প্রশ্ন করে শিক্ষার্থীদের বিচলিত করা ঠিক না জানিয়ে তিনি বলেন, অনেক শিক্ষক শিক্ষার্থীদের অবস্থা বিবেচনা না করে কঠিন প্রশ্ন করে এটা ঠিক না। শিক্ষার্থীরা কতটুকু বুঝতে পারছে সেটা দেখতে হবে। 
সেমিনারে আরও বক্তব্য রাখেন ডা. শেখ শফিউল আজম। ডা. মামুনুর রশীদের সঞ্চালনায় আলোচক হিসেবে ছিলেন ডা. হাসিনা নাসরিন। উপস্থিত ছিলেন বিআইটিআইডির চিকিৎসক, নার্সিং কলেজের শিক্ষক ও চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তারা।