আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ২৪-০৪-২০১৯ তারিখে পত্রিকা

সৌম্য ঝড়ে শিরোপা আবাহনীর

আহসান হাবিব সম্রাট
| খেলা

ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগে (ডিপিএল) দুই ম্যাচ আগেও সমালোচনার তোপ সইতে হচ্ছিল সৌম্য সরকারকে। ১১ ম্যাচে মোটে ১৯৭ রান করায় বিশ্বকাপ দলে তার অন্তর্ভুক্তি নিয়েও প্রশ্ন তুলছিলেন কেউ কেউ। রূপগঞ্জের বিপক্ষে লিগের অঘোষিত ‘ফাইনালে’ দুর্দান্ত সেঞ্চুরিতে সব সমালোচনাকে তুড়ি মেরে উড়িয়ে দিয়েছিলেন এ ওপেনার। তবে রানের ক্ষুধা মেটেনি সৌম্যর। গতকাল বিকেএসপিতে শেখ জামাল ধানমন্ডির বিপক্ষে অপরাজিত ২০৮ রানের ইনিংস খেলে শুধু রেকর্ডই গড়লেন না তিনি, একই সঙ্গে নিশ্চিত করেন আবাহনীর শিরোপা। শেখ জামালের ৯ উইকেটে করা ৩১৭ রানের জবাবে দুই ওপেনার সৌম্য ও জহুরুল ইসলাম অমির ৩১২ রানের রেকর্ড জুটিতে ১৭ বল বাকি থাকতেই ১ উইকেট হারিয়ে টপকে যায় আবাহনী।
বিকেএসপিতে শেখ জামালের বিপক্ষে আগে ফিল্ডিং করতে নেমে দারুণ শুরু হয়েছিল আবাহনীর। মাশরাফি বিন মুর্তজার তোপে ৮৫ রানেই ৫ উইকেট হারায় শেখ জামাল। ৬ নম্বরে নামা তানভীর হায়দারের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে ৩০০ পেরোনো স্কোর গড়ে শেখ জামাল। ষষ্ঠ উইকেটে ইলিয়াস সানিকে (৪৫) নিয়ে ৯১ ও সপ্তম উইকেটে মেহরাব হোসেনের (৪৪) সঙ্গে ৯৮ রানের জুটি গড়েন তানভীর। ৯৯ বলে তুলে নেন ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি। আর ৫৫ বলে ফিফটি করেছিলেন তানভীর। মারকুটে এ ব্যাটসম্যান নিজের শেষ ৩২ রান করেন মাত্র ১৬ বলে। যার সুবাদে ৩১৭ রানে থামে শেখ জামাল। বল হাতে আবাহনীকে নেতৃত্ব দেওয়া মাশরাফি ৫৬ রানে নেন ৪ উইকেট। তবে প্রিমিয়ার লিগের এ মৌসুমে ৩০০ বা এর বেশি রান তাড়া করে এর আগে জিতেছিল শুধু শাইনপুকুর; শেখ জামাল হয়তো ছিল স্বস্তিতেই। তবে শেখ জামাল বোলারদের ওপর ব্যাট হাতে ‘কালবৈশাখি’ বইয়ে দিয়ে সব এলোমেলো করে দেন সৌম্য। তাকে যোগ্য সঙ্গ দেন জহুরুল। সৌম্য লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে বাংলাদেশের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি পূরণ করে ১৫৩ বলে খেলেছেন হার না মানা ২০৮ রানের ইনিংস। সৌম্যর শুরুটা ছিল ধীরগতির। হাফসেঞ্চুরি করতে তার লাগে ৫২ বল। তবে ফিফটির পরই গর্জে ওঠে তার ব্যাট। ৭৮ বলেই পূরণ করে ফেলেন সেঞ্চুরি। এরপর ১০৪ বলে ১৫০ পূরণ করা এ বাঁহাতি ওপেনার ডাবল সেঞ্চুরি করতে খেলেন ১৪৯ বল। ১৪টি ?চার ও ১৬টি ছক্কায় সাজানো ইনিংসে নতুন করে লিখেছেন বেশ কয়েকটি রেকর্ড। ৫০ ওভারের ক্রিকেটে বাংলাদেশের আগের সর্বোচ্চ স্কোর ছিল রকিবুল হাসানের ১৯০। রকিবুল একটুর জন্য মিস করেছিলেন লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে দেশের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরিয়ান হওয়ার সুযোগ। তবে সৌম্য সুযোগ নষ্ট না করে প্রথম ডাবল সেঞ্চুরির সঙ্গে লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ ইনিংসেরও রেকর্ড গড়েন। ছক্কার সংখ্যায়ও সৌম্য গড়েছেন নতুন রেকর্ড। ভেঙেছেন সাইফ হাসান ও মাশরাফির সঙ্গে যৌথভাবে নিজের গড়া ১১ ছক্কার রেকর্ড। সৌম্যর ১৬ ছক্কা লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেট ইতিহাসের তৃতীয় সর্বোচ্চ। আবাহনীর অপর ওপেনার জহুরুল ১২৮ বলে ৭টি চার ও ৩টি ছক্কায় ১০০ রান করে আউট হওয়ার আগে সৌম্যর সঙ্গে গড়ে যান লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে যে কোনো উইকেটে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রানের (৩১২) জুটি; যা বাংলাদেশের লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটের সর্বোচ্চ ও প্রথম ৩০০ ছাড়ানো ওপেনিং জুটি। ২০০৭ সালে যে কোনো উইকেটে আগের সর্বোচ্চ ২৯০ রানের জুটির রেকর্ড ছিল চট্টগ্রাম বিভাগের মাহবুবুল করিম ও ধীমান ঘোষের। আর প্রথম উইকেটে আগের সর্বোচ্চ ২৩৬ রানের জুটির রেকর্ডটি ছিল আবাহনীর এনামুল হক বিজয় ও নাজমুল হোসেন শান্তর। ২০১৮ প্রিমিয়ার লিগের সুপার লিগে তারা গড়েন রেকর্ডটি।
চ্যাম্পিয়নের মতোই এবারের প্রিমিয়ার লিগ শুরু করেছিল আবাহনী। তবে প্রথম পর্বে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের দাপটে শিরোপার আশা ফিকে হয়ে আসে তাদের। 
অন্যদিকে শেখ জামালের কাছে হারের পর আবাহনীর সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচও হেরে শিরোপা-দৌড় থেকে পিছিয়ে পড়ে রূপগঞ্জ। সুপার লিগের শেষ রাউন্ড শেষে ১৬ খেলায় আবাহনী ও রূপগঞ্জের পয়েন্টও সমান ২৬ হলে নিট রান রেটে এগিয়ে থাকায় শিরোপা উল্লাসে মাতে আকাশি-নীলরা। তাই প্রাইম ব্যাংকের বিপক্ষে গতকাল ৮৮ রানে জিতলেও হতাশায় ডুবেছে রূপগঞ্জ। দিনের অন্য খেলায় মোহামেডান ৩ রানে হেরেছে প্রাইম দোলেশ্বরের কাছে।