আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ২৪-০৪-২০১৯ তারিখে পত্রিকা

ভারতের নির্বাচন

শান্তিপূর্ণভাবে সমাপ্ত লোকসভার তৃতীয় দফার ভোট

কলকাতা প্রতিনিধি
| শেষ পাতা

ভারতে সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের তৃতীয় দফার ভোট বিক্ষিপ্ত কিছু সংঘর্ষ ছাড়া মোটামুটি শান্তিপূর্ণভাবে শেষ হয়েছে। মঙ্গলবার তৃতীয় দফার ভোটে ভারতের ১৫টি রাজ্যের ১১৭টি লোকসভা আসনে ভোট নেওয়া হয়।
তৃতীয় পর্বের এ নির্বাচন ছিল বিজেপির কাছে বড়োসড়ো ভাগ্য পরীক্ষা। কারণ এই ১১৭ আসনের মধ্যে বিজেপি গত লোকসভা নির্বাচনে জয়ী হয়েছিল ৬২টি আসনে। গত লোকসভা নির্বাচনে অন্য দলগুলোর মধ্যে কংগ্রেস পেয়েছিল ১৬ আসন, সিপিআই ৭ আসন, বিজেডি ৬ আসন এবং সমাজবাদী পার্টি জয়ী হয়েছিল তিনটি আসনে। স্বাভাবিকভাবেই কেন্দ্রে সরকার গঠনের ক্ষেত্রে এ তৃতীয় পর্বের জয়-পরাজয় প্রতিটি রাজনৈতিক দলের কাছেই গুরুত্বপূর্ণ। বিশেষ করে বিজেপির কাছে তো অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বিজেপি এবার ক’টি আসন ধরে রাখতে পারে, সেদিকে নজর রয়েছে রাজনৈতিক মহলের।
পশ্চিমবঙ্গে গত দুই দফার নির্বাচনে অধিকাংশ বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী না থাকার অভিযোগ উঠেছিল। তাই তৃতীয় দফার নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের পাঁচটি কেন্দ্রের প্রায় ৯২ শতাংশ বুথেই কেন্দ্রীয় বাহিনী রাখা হয়। তবে তা সত্ত্বেও এদিনের ভোটে পশ্চিমবঙ্গে বিক্ষিপ্ত কিছু বিশৃঙ্খলার ঘটনা ঘটে। তৃতীয় দফার নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের পাঁচটি লোকসভা আসনের মধ্যে মালদা ও মুর্শিদাবাদে বেশকিছু বিশৃঙ্খলার ঘটনা ঘটে। মুর্শিদাবাদের ডোমকলে সকালে ভোটগ্রহণ চলাকালীন বোমাবাজির অভিযোগ উঠেছে। মালদার বেশ কয়েকটি কেন্দ্রে পশ্চিমবঙ্গের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে মারধরের অভিযোগ তোলে কংগ্রেস। সকালে রাজ্যের পাঁচটি লোকসভার বিভিন্ন বুথে ইভিএম খারাপ হয়ে যাওয়ায় ভোট শুরু হতে দেরি হয়। আবার কোথাও ভিভিপ্যাটে সমস্যা দেখা গেছে। পাশাপাশি বিভিন্ন বুথে বিরোধী রাজনৈতিক দলের প্রার্থীদের বসতে বাধা দেওয়া হয় বলেও অভিযোগ ওঠে শাসক দলের বিরুদ্ধে। বালুরঘাটের বেশ কয়েকটি বুথের সামনে বহিরাগতদের জমায়েত ঘটায় কেন্দ্রীয় বাহিনী তাদের সরিয়ে দিলে সাময়িক উত্তেজনা ছড়ায়। জঙ্গিপুরের সুতি এলাকায় পুলিশ তৃণমূলের ক্যাম্পে ভাঙচুর চালায় বলেও অভিযোগ করেছে তৃণমূল কংগ্রেস।
অন্যদিকে তৃতীয় দফা লোকসভা নির্বাচন চলাকালীন বুথের মধ্যে সাপ ঢুকে পড়ার ঘটনা ঘটে কেরালা রাজ্যের কান্নুরের মাইইল কান্ডাক্কাইয়ের একটি বুথে। ভোটগ্রহণ শুরুর পর হঠাৎ জানা যায়, ভিভিপ্যাট মেশিনের মধ্যে ঢুকে পড়েছে ছোট্ট একটি সাপ। আর এ জানাজানি হতেই ভোটাররা আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। ফলে সাময়িক বন্ধ হয়ে যায় ওই কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ। পরে অবশ্য ভিভিপ্যাট মেশিন থেকে জ্যান্ত সাপ বের করে ফের শুরু হয় ভোটগ্রহণ। তবে সব মিলিয়ে তৃতীয় দফা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গ ছাড়াও বেশ কয়েকটি রাজ্যে বিক্ষিপ্ত কিছু অশান্তির ঘটনা ঘটলেও ভোট শান্তিপূর্ণ হয়েছে বলেই জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন।