আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ১৬-০৬-২০১৯ তারিখে পত্রিকা

নতুন করে ভাবাচ্ছে বৃষ্টি

স্পোর্টস ডেস্ক
| খেলা

বিশ্বকাপের দুই সপ্তাহ কেটেছে মাত্র। এরই মধ্যে বৃষ্টিতে ভেসে যাওয়া ম্যাচের রেকর্ড গড়ে ফেলেছে ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ, চারটি ম্যাচ ভেসেছে বৃষ্টিতে। অতীতে ছিল সর্বোচ্চ দুটি ম্যাচ পরিত্যক্তের রেকর্ড। বাকি সময়ে কী হবে, শঙ্কিত ক্রিকেটামোদীরা। তবে বৃষ্টি কখনোই ইংল্যান্ডের জন্য জাতীয় সমস্যা নয়। কিন্তু চলতি বিশ্বকাপ ক্রিকেটের জন্মস্থানকে নিয়ে এসেছে আলোচনার শীর্ষে, কঠোর সমালোচনাও। কেন এ সময়টাকে বিশ্বকাপের জন্য বেছে নেওয়া হলো?
ভারত-নিউজিল্যান্ড ম্যাচ বৃষ্টিতে ভেস্তে যেতেই সোশ্যাল মিডিয়ায় শুরু হয়েছে নতুন ট্রেন্ডস। অনেকে ক্রীড়াসূচি নিয়ে তোপ দেগেছেন আইসিসিকে। বৃষ্টি নিয়ে বিভিন্ন মিম পোস্ট করে হাসিঠাট্টায় মেতেছেন নেটিজেনরা। বিভিন্ন সিনেমা, গানের লাইন ধার করে বৃষ্টির জন্য ম্যাচ ভেস্তে যাওয়া নিয়ে মিম বানাচ্ছেন তারা। এর মধ্যে বেশ কয়েকটি মিম বেশ জনপ্রিয়ও হয়েছে। যেমন একটি ছবিতে দেখা যাচ্ছে, মাঠ ভরা পানি, কিউই ক্রিকেটাররা পানির মধ্যে আউট করার চেষ্টা করছেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে। আর তিনি ডাইভ দিয়ে রানআউট থেকে বাঁচার চেষ্টা করছেন।
ইংল্যান্ডের আবহাওয়া বিচিত্রময়Ñ এই রোদ, এই বৃষ্টি। গত গ্রীষ্মেও ৭০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে বেশি শুষ্ক ও গরম ছিল ইংল্যান্ডের আবহাওয়া। তখন অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ইংল্যান্ড ওয়ানডে ম্যাচের রেকর্ড ৪৮১ রান করেছিল। বিশ্বকাপেও রানের বন্যা বইবেÑ এমন ভবিষ্যদ্বাণী ছিল ক্রিকেট বোদ্ধাদের। কিন্তু বাস্তবে অবস্থার ব্যাপক পরিবর্তন। ব্যাটসম্যানদের ব্যাটে রান আসবেÑ এ সম্ভাবনা তো এখনও আছে। কিন্তু সবকিছু শেষ করে দিচ্ছে বৃষ্টি। দলগুলো ভাবছে এক রকম, মাঠে নেমে পরিকল্পনা করতে হচ্ছে আরেক রকম। সবই বৃষ্টি আর বৈরী আবহাওয়ার জন্যই।
কিছু কিছু ক্ষেত্রে হয়ে যাওয়া ম্যাচগুলোর বিজয়ীরা ইংল্যান্ডে প্রথম তিনটি বিশ্বকাপের সূত্র কাজে লাগিয়ে সুবিধা নিতে পেরেছে। এর বাইরে দলগুলোকে পরিকল্পনায় পরিবর্তন এনে খেলতে হচ্ছে; যেমন অজি মারমুখী উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান ওয়ার্নারকে স্বভাবসুলভ স্টাইলে লাগাম টানতে বাধ্য করেছে বৃষ্টি। শুধু একজন ক্রিকেটার নন, পুরো দলই বাধ্য হচ্ছে কৌশল ও পরিকল্পনায় পরিবর্তন আনতে। যেটা বিশ্বকাপে পুরোপুরি অপ্রত্যাশিত।
সারমর্ম হলো, বিশ্বকাপে বড় ভূমিকা রাখছে বৃষ্টি। দলগুলোর ভাগ্য এখন অনাসৃষ্টি নামের বৃষ্টির ওপর। বৃষ্টির বলি হয়ে কখন কোন দলের অবস্থান নড়বড়ে হয়, সেটাই এখন বড় দুশ্চিন্তার।