আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ১৬-০৬-২০১৯ তারিখে পত্রিকা

চলন্ত বাসে প্রবাসী নারীকে ধর্ষণচেষ্টায় গ্রেপ্তার ২

আরও দুই স্থানে কলেজছাত্রী ও গৃহবধূকে ধর্ষণচেষ্টা

আলোকিত ডেস্ক
| শেষ পাতা

মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলায় চলন্ত বাসে প্রবাসী এক নারীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে বাসচালক ও হেলপারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শুক্রবার রাতে ঘিওর-দৌলতপুর আঞ্চলিক মহাসড়কে এ ঘটনা ঘটে। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেনÑ স্বপ্ন পরিবহনের চালক নায়েব আলী ও হেলপার সোহাগ। শনিবার বিকালে আসামিদের সাত দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়। এদিকে রংপুরের তারাগঞ্জ উপজেলায় এক বাকপ্রতিবন্ধী 

গৃহবধূকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ওই গৃহবধূর স্বামী ধর্ষণচেষ্টাকারীর নামে থানায় মামলা করেছেন। তাছাড়া রাজশাহীর বাগমারা উপজেলায় এক যুবকের বিরুদ্ধে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় বাগমারা থানায় মামলা করেছেন ওই ছাত্রীর বাবা। ব্যুরো ও প্রতিনিধিদের খবরÑ

মানিকগঞ্জ : ঘিওর থানার ওসি আশরাফুল আলম জানান, জর্ডানপ্রবাসী ওই নারী শুক্রবার সন্ধ্যায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে রওনা দিয়ে মানিকগঞ্জ বাসস্ট্যান্ডে পৌঁছেন। এরপর স্বপ্ন পরিবহনের একটি বাসে তার গ্রামের বাড়ি ঘিওরের উদ্দেশে রওনা দেন। রাস্তায় সব যাত্রী নেমে গেলে বাসের আলো অফ করে দিয়ে চালক নায়েব আলী ও হেলপার সোহাগ তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। এ সময় ওই নারী চিকৎকার করলে তাকে বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে বাসটি দ্রুত বেগে দৌলতপুর দিকে চলে যায়। এ সময় স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেন এবং গাড়ির পেছনে ধাওয়া করেন। পরে দৌলতপুর থানা পুলিশের সহায়তায় চালক ও হেলপারকে আটক করা হয়। এ ঘটনায় নির্যাতনের শিকার ওই নারী বাদী হয়ে ঘিওর থানায় মামলা করেন।

তারাগঞ্জ : মামলা সূত্রে জানা গেছে, তারাগঞ্জ উপজেলার কুর্শা ইউনিয়নের ঘনিরামপুর তেলিপাড়া গ্রামের বাকপ্রতিবন্ধী এক গৃহবধূকে বিভিন্ন সময় কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন পাশের বাড়ির রফিকুল ইসলাম বিষাদুর ছেলে তারাজুল ইসলাম। ৮ জুন সন্ধ্যায় ওই গৃহবধূকে বাড়িতে রেখে তার স্বামী তারাগঞ্জ সদরে বাজার করতে এলে তারাজুল সুযোগ বুঝে তার ঘরে প্রবেশ করে ধর্ষণের চেষ্টা চালান। এ সময় বাকপ্রতিবন্ধী ওই গৃহবধূর বিকট চিৎকারে এলাকাবাসী ছুটে এলে তারাজুল পালিয়ে যান। এ ঘটনায় ১১ জুন রাতে তারাজুলকে আসামি করে থানায় মামলা করেন ওই প্রতিবন্ধীর স্বামী। এ বিষয়ে শনিবার মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মমিনূল ইসলাম মমিন জানান, আসামিকে গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে।

রাজশাহী : বাগমারা থানার ওসি আতাউর রহমান বলেন, উপজেলার গোপালপুর গ্রামের হাসান আলী বেশ কিছুদিন থেকে ওই কলেজছাত্রীকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন। কিন্তু প্রস্তাবে সাড়া দেননি কলেজছাত্রী। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে শুক্রবার দুপুরে বাসায় কেউ না থাকার সুযোগে হাসান ওই কলেজছাত্রীর ঘরে প্রবেশ করে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। এ সময় ওই ছাত্রীর চিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে এলে হাসান পালিয়ে যান। ওসি আরও জানান, এ ঘটনায় শুক্রবার রাতে ওই কলেজছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে হাসান আলীর বিরুদ্ধে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে মামলা করেন। এ ঘটনার পর থেকে হাসান পলাতক রয়েছেন। তাকে গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে।