আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ১২-০৭-২০১৯ তারিখে পত্রিকা

ফেদেরার-নাদাল সেমিফাইনাল

সিমোনা-সেরেনা ফাইনাল

স্পোর্টস ডেস্ক
| খেলা

সেমিফাইনালে সাবেক নাম্বার ওয়ান সিমোনা হালেপকে হারিয়ে উইম্বলডনে নিজের ইতিহাস গড়তে চেয়েছিলেন ইউক্রেনের তরুণী এলিনা সভেতলানা। কিন্তু পারেননি ইউক্রেট হার্টথ্রুব, অভিজ্ঞতার কাছে মার খেয়েছেন। সরাসরি ২-০ সেটে তাকে হারিয়ে ফাইনালে উঠে গেছেন রোমানিয়ান সিমোনা। বর্তমানে বিশ্বের নাম্বার সেভেন সিমোনোর এটি তৃতীয় গ্র্যান্ড স্ল্যাম ফাইনাল। ২০১৮ অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে হারলেও এ বছর জিতেছেন ফ্রেঞ্চ ওপেন। ফাইনালে তার প্রতিপক্ষ উইম্বলডনের সাতবারের চ্যাম্পিয়ন সেরেনা উইলিয়ামস। শেষ চারে চেক প্রজাতন্ত্রের বারবোরা স্ট্রাইকোভাকে হারিয়েছেন সাতবার অস্ট্রেলিয়ান ওপেন, ছয়বার ইউএস ওপেন ও দুইবার ফ্রেঞ্চ ওপেনজয়ী সেরেনা।

মুখোমুখি রজার ফেদেরার-রাফায়েল নাদাল দ্বৈরথ; উইম্বলডনে স্বপ্নের সেমিফাইনাল। ১১ বছর আগে টেনিসের শতবর্ষী উইম্বলডনের ঐতিহাসিক ফাইনালে ফেদেরারকে হারিয়ে ছিলেন নাদাল, যেটি টেনিসের ইতিহাসে অন্যতম সেরা ম্যাচ বলা হচ্ছে। আজ আবারও দুই মহারথীর লড়াইয়ে সাক্ষী থাকার সুযোগ টেনিসপ্রেমীদের। অন্য সেমিফাইনালে নোভাক জোকোভিচ মুখোমুখি ২৩ নম্বর বাছাই রবের্তো বাউতিস্তা আগুতের। কোয়ার্টার ফাইনালে ফেদেরার চার সেটের লড়াইয়ে ৩-১এ হারান জাপানের কেই নিশিকোরিকে; গ্র্যান্ড স্ল্যামে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে ১০০তম ম্যাচ জয় তার। নাদাল সরাসরি ৩-০ সেটে হারান যুক্তরাষ্ট্রের স্যাম কোয়েরিকে। অল ইংল্যান্ড ক্লাবে নবমবার সেমিফাইনালে উঠলেন জোকোভিচ। খেলোয়াড়ি জীবনে প্রথমবার গ্র্যান্ড স্ল্যামের শেষ চারে ওঠার পরই রবের্তোর হুঙ্কার, ‘নোভাক বিশ্বের এক নম্বর খেলোয়াড়, এখানেও দুর্দান্ত খেলছে। ওকে হারাতে গেলে আমাকেও ভালো খেলতে হবে।’ তবে অঘটন ঘটাতে চান তিনি।
সেমিফাইনাল নিয়ে ফেদেরার জানান, ‘পরস্পরকে খুব ভালো করে চিনি আমরা। দুইজনের কাছেই একে অন্যের বিষয়ে অনেক তথ্য আছে। সেমিফাইনালের আগেও ট্যাকটিক্স নিয়ে প্রচুর কাজ করব। তবে এটি ঘাসের কোর্টের টেনিস। তাই নিজের খেলাটা খেলার চেষ্টা করব। উত্তেজিত নাদালও। দারুণ ব্যাপার। আবার রজারের বিরুদ্ধে খেলব ভেবে অন্য রকম অনুভূতি হচ্ছে।
এককের ফাইনালে উঠলেও সেরেনা টিকতে পারেননি মিশ্র দ্বৈতে। সেরেনা-অ্যান্ডি মারে জুটিকে ২-১ সেটে হারিয়েছেন শীর্ষবাছাই ব্রুনো সোয়ারেস ও নিকোল মেলিশার