আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ১২-০৯-২০১৯ তারিখে পত্রিকা

‘অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে এসডিজি বাস্তবায়ন করতে হবে’

নিজস্ব প্রতিবেদক
| নগর মহানগর

রাজধানীর তথ্য কমিশনের সম্মেলন কক্ষে বুধবার ‘এসডিজি অর্জনে তথ্য অধিকার আইন’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সমন্বয়ক (এসডিজি বিষয়ক) মো. আবুল কালাম আজাদ ষ আলোকিত বাংলাদেশ

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মূখ্য সমন্বয়ক (এসডিজি বিষয়ক) মো. আবুল কালাম আজাদ বলেছেন, এমন কোনো বিষয় নেই যেটি জাতিসংঘ ঘোষিত টেকসই উন্নয়ন অভীষ্টের (এসডিজি) মধ্যে নেই। পৃথিবীর জন্য যা কিছু প্রয়োজন সবকিছু এসডিজির মধ্যে রয়েছে। শুধুমাত্র উন্নয়নের জন্য কিংবা সামনের সুদিনের জন্য নয়, আমাদের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার জন্য এবং পৃথিবীকে ঠিকিয়ে রাখার জন্য এসডিজি বাস্তবায়ন করতে হবে। তাই আমাদের সবাইকে এসডিজি বাস্তবায়নে কাজ করতে হবে।

বুধবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের তথ্য কমিশনের সম্মেলন কক্ষে ‘এসডিজি অর্জনে তথ্য অধিকার আইন’ শীর্ষক এক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। প্রধান তথ্য কমিশনার মরতুজা আহমদের সভাপতিত্বে সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনা কমিশনের সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য (সিনিয়র সচিব) ড. শামসুল আলম এবং মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) শেখ মুজিবুর রহমান এনডিসি। সেমিনারে তথ্য কমিশনার নেপাল চন্দ্র সরকার, তথ্য কমিশনার সুরাইয়া বেগম এনডিসি, তথ্য কমিশনের সচিব মো. তৌফিকুল আলমসহ এসডিজি বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়/বিভাগ/অধিদপ্তর এবং এনজিওগুলোর প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। 
মো. আবুল কালাম আজাদ বলেন, সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্য (এমডিজি) অর্জনে বাংলাদেশ বেশ সফল ছিল। এটার বাস্তবায়ন ছিল শুধু উন্নয়নশীল দেশকে নিয়ে। কিন্তু এসডিজি বাস্তবায়ন করার কথা সব দেশকে নিয়ে। তাই পৃথিবীর সব দেশ এসডিজিতে অংশগ্রহণ না করলে সেটি বাস্তবায়ন করা যাবে না। এসডিজি বাস্তবায়ন করা না গেলে গ্লোবাল ওয়ার্মিং বাড়বে, সমুদ্রের উচ্চতা বাড়বে, নানা রকম রোগ হবে প্রভৃতি। এসব কর্মকা-ের মাধ্যমে পৃথিবী ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে চলে যাবে। তাই এসডিজি বাস্তবায়নে সবাইকে জোরেশোরে এগিয়ে আসতে হবে।
সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপনকালে প্রধান তথ্য কমিশনার মরতুজা আহমদ বলেন, বাংলাদেশে ২০০৯ সালে তথ্য অধিকার আইন নামীয় নিশ্চয়তামূলক আইন প্রণয়ন করেছে এবং একই বছরের ১ জুলাই থেকে পূর্ণাঙ্গ কার্যকর করে বাস্তবায়ন করে চলছে। এ লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে বৈশ্বিক সূচকের নিরিখে বাংলাদেশের অবস্থান সমপর্যায়ের অনেক দেশের তুলনায় অগ্রগামী। আমাদের সংবিধান জনসাধারণের তথ্য অধিকার ও মৌলিক স্বাধীনতার সুরক্ষাদানে একটি বিশাল রক্ষাকবচ। সংবিধানের এ চেতনায় ঋদ্ধ আমাদের তথ্য অধিকার আইন। আইনটি আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধের মূল চেতনার প্রতিফলন। এসডিজির ১৬.১০ লক্ষ্যমাত্রা পূরণের মূল হাতিয়ার, জনগণের তথ্যে অভিগম্যতা নিশ্চিতকরণে একটি সংবিধিবদ্ধ আইন।