আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ১২-০৯-২০১৯ তারিখে পত্রিকা

আইনি প্রক্রিয়ায় পাওয়া সফটওয়্যার ব্যবহার করবে গণপূর্ত মন্ত্রণালয়

নিজস্ব প্রতিবেদক
| নগর মহানগর

রাজধানীর একটি হোটেলে মঙ্গলবার বেসরকারি প্রতিষ্ঠান আইটেক আনলিমিটেডের উদ্যোগে স্থাপত্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের ‘অ্যাডভান্সড ট্রেনিং অন লাইসেন্সড অটোক্যাড’ বিষয়ক প্রশিক্ষণের সনদ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম ষ আল

ভবিষ্যতে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় এবং এর আওতাধীন গণপূর্ত অধিদপ্তর, রাজউকসহ অন্য দপ্তরে আইনগত প্রক্রিয়ায়প্রাপ্ত সফটওয়্যার ব্যবহার করা হবে বলে জানিয়েছেন গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের আইনবিষয়ক সম্পাদক শ ম রেজাউল করিম।

মঙ্গলবার রাজধানীর একটি হোটেলে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান আইটেক আনলিমিটেডের উদ্যোগে স্থাপত্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের ‘অ্যাডভান্সড ট্রেনিং অন লাইসেন্সড অটোক্যাড’ বিষয়ক প্রশিক্ষণের সনদ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তার পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।
শ ম রেজাউল করিম বলেন, আইনসঙ্গত কাজ করাই আইনের শাসন। সে আঙ্গিকে অন্যভাবে সংগৃহীত সফটওয়্যার ব্যবহার করা আইনসঙ্গত নয়। বাংলাদেশে বিদ্যমান আইন অনুযায়ী পাইরেসি করা শাস্তি যোগ্য অপরাধ। এ অপরাধে সর্বোচ্চ সাত বছরের সাজা হতে পারে। তথ্য-প্রযুক্তি সংক্রান্ত সাইবার অপরাধও এর অন্তর্ভুক্ত। আমরা এখন আইনসম্মত প্রক্রিয়ায় স্থাপত্য অধিদপ্তরে সফটওয়্যার এনেছি। এটি অত্যন্ত ভালো একটা দিক।
মন্ত্রী বলেন, প্রযুক্তিনির্ভরতা বাংলাদেশকে উন্নত, সমৃদ্ধ, আধুনিক ও বিশ্বমানের একটি রাষ্ট্রের জায়গায় নিয়ে যেতে সহায়তা করেছে। বাংলাদেশ এখন ডিজিটাল বাংলাদেশে পরিণত হয়েছে। এ ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি শুধু স্বপ্ন দেখেন না, স্বপ্ন বাস্তবায়ন করেন। বাংলাদেশে ডিজিটাল রাষ্ট্রব্যবস্থা সরকারি-বেসরকারি ও সাধারণ নাগরিকের কর্মকা- সর্বত্র পৌঁছে গেছে।
স্থাপত্য অধিদপ্তরের প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত স্থপতিদের উদ্দেশে গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী বলেন, স্থাপত্য অধিদপ্তর স্বল্প জনবল নিয়ে সারা বাংলাদেশে কাজ করে যাচ্ছে। স্থাপত্য অধিদপ্তরের স্থপতিদের বিরুদ্ধে সরকারি দায়িত্ব পালনে বড় কোনো অভিযোগ নেই। এটি প্রতিষ্ঠানটিকে একটি স্বাতন্ত্র্য দিয়েছে; বিশেষায়িত হিসেবে চিহ্নিত করেছে। অধিদপ্তরের স্থপতিদের এ জায়গা ধারণ করতে হবে, বিশ্বাস করতে হবে এবং চর্চা করতে হবে যাতে আরও বেশি উৎকর্ষ সাধন করা যায়। সৃষ্টির ভেতর থেকে স্থপতিদের টিকে থাকতে হবে। রক্ত মাংসের দেহ নশ্বর; কিন্তু কীর্তি অবিনশ্বর। অবিনশ্বর কীর্তির ভেতরে টিকে থাকার জন্য আমি চাই স্থপতিদের মধ্যে প্রতিযোগিতা হোক।
স্থপতিদের উদ্দেশে তিনি আরও বলেন, সৃজনশীলতা হচ্ছে মানুষের সুকুমার বৃত্তি বিকাশের জায়গা। নান্দনিকতা ও শৈলী বিকাশের একটা ক্ষেত্র আপনাদের শিক্ষা ও কর্মজীবনে রয়েছে। আপনাদের মানসিকতাকে আরও ইতিবাচক করে তুলতে হবে, রুদ্ধতা ও সীমাবদ্ধতার জায়গায় থাকা যাবে না। মনে রাখবেন সৃষ্টির ভেতরে যে আনন্দ আছে অনুকরণের ভেতরে সে আনন্দ নেই। নিজের কীর্তিকে সৃষ্টি করার মধ্য থেকে জীবন উল্লাসে মেতে উঠতে হবে। আইটেক আনলিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কেএমএইচ শহীদুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. শহীদ উল্লা খন্দকার এবং আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন স্থাপত্য অধিদপ্তরের প্রধান স্থপতি কাজী গোলাম নাসির।