আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ১২-০৯-২০১৯ তারিখে পত্রিকা

মার্তিনেজের রাতে ব্রাজিলের হার

প্রীতি ম্যাচ

স্পোর্টস ডেস্ক
| খেলা

জাতীয় দলের জার্সিতে প্রথম হ্যাটট্রিকের দেখা পেলেন লাউতারো মার্তিনেজ। ম্যাচের প্রথমার্ধেই ব্যক্তিগত মাইলফলক অর্জন করলেন এ তরুণ ফরোয়ার্ড। তার নৈপুণ্যে মেক্সিকোর বিপক্ষে আর্জেন্টিনা পেল দুর্দান্ত জয়। বুধবার মেক্সিকোকে ৪-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে আর্জেন্টিনা।
যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে অনুষ্ঠিত হওয়া আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে দুইবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা সব গোলই করে বিরতির আগে। ইন্টার মিলান স্ট্রাইকার মার্তিনেজের পা থেকে আসে তিন গোল, পেনাল্টি থেকে লক্ষ্যভেদ করেন পিএসজি মিডফিল্ডার লেয়ান্দ্রো পারেদেস।
নিষেধাজ্ঞার কারণে নেই লিওনেল মেসি। সার্জিও আগুয়েরোকেও দলে রাখেননি কোচ লিওনেল স্কালোনি। আগের লড়াইয়ে চিলির সঙ্গে হতাশাজনক ড্রয়ের পর এ ম্যাচের একাদশের আক্রমণভাগে পরিবর্তন আনেন তিনি। ফলে পাওলো দিবালাকেও জায়গা নিতে হয় বেঞ্চে। কিন্তু তাদের অনুপস্থিতি আর্জেন্টিনাকে টের পেতে হয়নি মার্তিনেজ জ্বলে ওঠায়।
অন্যদিকে কোপা আমেরিকার ফাইনালে ৩-১ গোলে পেরুকে হারিয়ে নবমবারের মত চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ব্রাজিল। মাত্র কিছুদিন আগের কথা সেটি। এরপর এই প্রথম মুখোমুখি দুই দেশ। এবার আমেরিকার লস এঞ্জেলেসে শেষ মুহূর্তের গোলে ব্রাজিলকে পরাজিত করে কোপার ফাইনালে হারের ক্ষতে কিছুটা হলেও প্রলেপ দিতে পেরেছে পেরুভিয়ান ফুটবলাররা।
পেরুর বিপক্ষে ম্যাচের ৮৫ মিনিট পর্যন্ত গোল হজম করতে হয়নি। শেষ মুহূর্তে এসে গোল হজম করে ফেললো সেলেসাওরা। এ গোলের পরাজয় নিয়েই মাঠ ছাড়তে হলো ব্রাজিলকে। মাঠে নামার আগেই ব্রাজিল কোচ তিতে বলে দিয়েছিলেন, পেরুর বিপক্ষে একটু ভিন্ন টেস্ট নিতে চান। সামনেই বিশ্বকাপের বাছাই পর্ব। সে কারণে তিনি চান ব্রাজিলের রিজার্ভ বেঞ্চের পরীক্ষা নিতে। এ কারণে নেইমারকে খেলাননি। মাঠে নামাননি দুই সেরা ডিফেন্ডার দানি আলভেজ এবং থিয়াগো সিলভাকেও। মূল গোলরক্ষক অ্যালিসন তো দলেই ছিলেন না। রবার্তো ফিরমিনো, রিচার্লিসন এবং ডেভিড নেরেসকে দিয়ে আক্রমণভাগ সাজান তিতে। মাঝ মাঠে কৌতিনহো এবং ক্যাসেমিরোর সঙ্গে ছিলেন অ্যালেন। অ্যাডার মিলিতাও, মার্কুইনহোস, অ্যালেক্স সান্দ্রো এবং ফ্যাগনাররা ছিলেন ডিফেন্সে। তাতে কিছুটা এলোমেলোই লেগেছে ব্রাজিল ফুটবলকে।