আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ১২-০৯-২০১৯ তারিখে পত্রিকা

পবিত্র আশুরা পালিত

নিজস্ব প্রতিবেদক
| শেষ পাতা

পবিত্র আশুরা উপলক্ষে হোসেনি দালানের ইমামবাড়া থেকে তাজিয়া মিছিল বের হয়ে রাজধানীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। ছবিটি মঙ্গলবার রাজধানীর আজিমপুর থেকে তোলা- আলোকিত বাংলাদেশ

যথাযোগ্য মর্যাদা ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের সঙ্গে মঙ্গলবার সারা দেশে পবিত্র আশুরা পালিত হয়েছে। নফল রোজা, ইবাদত বন্দেগি, আলোচনা সভাসহ নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে ইসলামের তাৎপর্যপূর্ণ এ দিনটি পালন করেছেন ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা। অপরদিকে আশুরা উপলক্ষে কারবালার স্মরণে শিয়া সম্প্রদায়ের আয়োজনে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় তাজিয়া মিছিল বের করা হয়। পবিত্র আশুরা উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দেন।
হিজরি ৬১ সনের (৬৮০ খ্রিস্টাব্দ) ১০ মহররম ইরাকের কুফা নগরের অদূরে ফোরাত নদীর তীরে কারবালা প্রান্তরে এজিদ বাহিনীর হাতে সপরিবারে সঙ্গী-সাথীসহ নির্মমভাবে শহীদ হন মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.) এর দৌহিত্র ইমাম হোসাইন (রা.)। অন্যায়-অবিচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে ইমাম হোসাইনের (রা.) আত্মত্যাগের এ ঘটনা ইসলামের ইতিহাসে সমুজ্জ্বল হয়ে আছে। এছাড়াও আশুরার দিন মহান আল্লাহ তায়ালা পৃথিবী সৃষ্টি, এই দিনে হজরত আদমকে (আ.) সৃষ্টি করে দুনিয়ায় পাঠানো, হজরত ইব্রাহিম (আ.) নমরুদের অগ্নিকু- থেকে রক্ষাসহ ইসলামের আরও বেশ কিছু তাৎপর্যপূর্ণ বিষয় জড়িত রয়েছে।
বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মতো বাংলাদেশের শিয়া ধর্মাবলম্বীরাও মঙ্গলবার পালন করছে পবিত্র আশুরা। প্রতিবছরের মতো এবারও রাজধানীর হোসেনি দালান ইমামবাড়া থেকে মঙ্গলবার সকালে তাজিয়া মিছিল বের হয়। ইমামবাড়ার সংশ্লিষ্টরা জানান, সকাল ১০টায় মিছিলটি হোসেনি দালান থেকে বের হয়ে বকশী বাজার লেন, কলপাড়, উমেশ দত্ত রোড, উর্দু রোড ঢাল, লালবাগ চৌরাস্তা, এতিমখানা রোড, আজিমপুর মেটারনিটি, নীলক্ষেত মোড়, সিটি কলেজ, ধানমন্ডি-২, রাইফেলস স্কয়ার হয়ে ‘অস্থায়ী কারবালায়’ (বিজিবি সদর দপ্তরের গেটের উল্টো দিকে) মিছিলটি শেষ হয়। এ ছাড়া ১ মহররম থেকে প্রতিদিনই ভিন্ন ভিন্ন অনুষ্ঠান, তাজিয়া মিছিল, শোকসভা, শোক মজলিস, মর্সিয়া মাতম ও ইবাদত-বন্দেগির মাধ্যমে অতিবাহিত করছে শিয়া মতাবলম্বীরা।
এবার তাজিয়া মিছিলে দা, ছোরা, কাঁচি, বর্শা, বল্লম, তরবারি, লাঠি ইত্যাদি বহন এবং আতশবাজি ও পটকা ফোটানো সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ ঘোষণা করে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ।
তাজিয়া মিছিল ও সংশ্লিষ্ট অন্যান্য অনুষ্ঠান ঘিরে হোসেনি দালান এলাকা ও আশপাশে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করে ডিএমপি। পুরো এলাকা  সিসি ক্যামেরার মাধ্যমে পর্যবেক্ষণ করা হয়। পুলিশের পাশাপাশি সাদা পোশাকধারী অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরাও দায়িত্ব পালন করেন। এবার আশুরা উপলক্ষে হোসেনি দালানে প্রবেশের ক্ষেত্রে ছিল যথেষ্ট কড়াকড়ি। পুলিশের পাশাপাশি ইমামবাড়া কর্তৃপক্ষ প্রায় ২০০ স্বেচ্ছাসেবক দিয়ে নিজস্ব নিরাপত্তা ব্যবস্থা গড়ে তোলে।
পবিত্র আশুরা উপলক্ষে মঙ্গলবার ছিল সরকারি ছুটির দিন। এ উপলক্ষে বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক বিশেষ ক্রোড়পত্র প্রকাশ করে। বাংলাদেশ বেতার ও বাংলাদেশ টেলিভিশনসহ বিভিন্ন বেসরকারি রেডিও-টিভি চ্যানেলও এ দিনের তাৎপর্য নিয়ে বিশেষ অনুষ্ঠান সম্প্রচার করে।