আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ১৮-০৯-২০১৯ তারিখে পত্রিকা

মোমেন্টামের খোঁজে আত্মবিশ্বাস হারানো বাংলাদেশ

জিম্বাবুয়ের মুখোমুখি আজ

আহসান হাবিব সম্রাট
| প্রথম পাতা

আফগানিস্তানের কাছে টেস্ট সিরিজ এবং তিনজাতি টি-টোয়েন্টি সিরিজে হারের পর বাংলাদেশ ক্রিকেট দল এখন টলটলায়মান অবস্থায় আছে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম মুখোমুখিতে হারের মুখ থেকে দলকে রক্ষা করেন আফিফ হোসেন। তবে আফগানিস্তানের বিপক্ষে হার এড়াতে পারেনি বাংলাদেশ। সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচে দল হিসেবে খেলতে পারেনি স্বাগতিকরা। দলের আত্মবিশ্বাস প্রায় তলানিতে গিয়ে ঠেকেছে। ঠিক যাকে বলে ভাঙাচোরা অবস্থায় থাকা। আসরের চট্টগ্রাম পর্বে আজ ফের জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মাঠে নামছে বাংলাদেশ। ফাইনালের আশা বাঁচিয়ে রাখতে এ ম্যাচে দুই দলেরই চাওয়া অভিন্নÑ জয়। জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে ম্যাচটি মাঠে গড়াবে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায়।
চট্টগ্রামে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ম্যাচ জিতলেই ফাইনালে উঠে যাবে স্বাগতিকরা। অন্যদিকে এ ম্যাচে হারলে গ্রুপ পর্বেই বিদায় লেখা হয়ে যাবে প্রথম দুই ম্যাচেই হেরে যাওয়া জিম্বাবুয়ের। দেওয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়ায় জিম্বাবুয়ে ঘুরে দাঁড়াতে মরিয়া। যে কোনো মূল্যেই জয় পেতে চান মাসাকাদজা-উইলিয়ামসরা। টাইগার দলও রয়েছে ‘ভঙ্গুর’ অবস্থায়। বিভিন্ন সংস্করণ মিলিয়ে টানা হারে কোণঠাসা বাংলাদেশ। সাকিবরা কতটা চাপে, সেটা বোঝা গেছে আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচের পরই দলে বড় পরিবর্তন আনায়। পরের দুই ম্যাচের জন্য আগের ১৪ সদস্যের দল থেকে বাদ পড়েন ওপেনার সৌম্যসহ চার ক্রিকেটার। তাদের পরিবর্তে দলে অন্তর্ভুক্ত হয়েছেন নাঈম শেখ, আমিনুল ইসলাম বিপ্লব ও নাজমুল হোসেন শান্তসহ ৫ ক্রিকেটার।
আত্মবিশ্বাস তলানিতে চলে যাওয়া বাংলাদেশ আবারও জয়ে ফিরতে চায়। ব্যর্থতার বৃত্ত থেকে বেরিয়ে আসার জন্য সতীর্থদের নিজস্ব পরিকল্পনা সাজানোর বার্তা দিয়েছেন সাকিব আল হাসান, ‘প্রত্যেককে নিজের দায়িত্ব নিজেকে নিতে হবে। তাদের নিজস্ব গেম প্ল্যান তাদের তৈরি করতে হবে। কীভাবে তারা এটা ওভারকাম করতে পারবে।’ টাইগার অধিনায়ক যোগ করেন, ‘কোচ যতই বলুক, অন্যরা যতই বলুক, দিন শেষে খেলাটা নিজেকে খেলতে হয়। ব্যাটিং, বোলিং ও ফিল্ডিংÑ তিনটাই নিজেকে করতে হয়। এ তিনটা জায়গায় আপনি কীভাবে নিজেকে মেলে ধরবেন, কীভাবে সফলতা পাবেন, তা আপনাকে চিন্তা করতে হবে। কোচ, ম্যানেজমেন্ট সব ধরনের চেষ্টা করছে। কিন্তু দিন শেষে বাস্তবায়ন আপনাকেই করতে হবে।’ বিশেষ করে ব্যাটিং-বোলিংয়ে কেউ ব্যক্তিগতভাবে ভালো পারফরম্যান্স করলেও সম্মিলিত পারফরম্যান্স মেলে ধরতে পারছে না টাইগাররা। আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচে হারের পর দল হিসেবে খেলতে না পারার আক্ষেপ ঝরেছে সাকিবের কণ্ঠেও, ‘দল হিসেবে খেলতে না পারার ঘাটতি প্রকট আকারে দাঁড়াচ্ছে। দল হয়ে যতক্ষণ না খেলতে পারছি, ততক্ষণ ভালো ফল পাওয়া সম্ভব নয়।’
বোলিংয়ে মোটামুটি লড়াই করলেও ব্যাটসম্যানরা একেবারেই ছন্দহীন। প্রথম ম্যাচে জিম্বাবুয়ের দেওয়া ১৪৫ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ৬০ রানেই শীর্ষ ৬ ব্যাটসম্যানকে হারায় বাংলাদেশ। সেখান থেকে তরুণ অলরাউন্ডার আফিফ হোসেনের ব্যাটিং-বীরত্বে জয় পায় বাংলাদেশ। আফগানিস্তানের বিপক্ষে বোলিংয়ে দুর্দান্ত শুরু এনে দিয়েছেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ও সাকিব আল হাসান। কিন্তু সাইফের দুর্দান্ত বোলিং সত্ত্বেও (৩৩/৪) মোহাম্মদ নবীর ব্যাটিংয়ে শুরুর ধাক্কা সামলে চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়ে আফগানরা। আফগানিস্তানের দেওয়া ১৬৫ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ২৫ রানে হেরে যায় স্বাগতিকরা। ব্যাটসম্যানদের স্কিল নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। তবে স্কিলের চেয়ে মোমেন্টামই বড় বলে মানছেন গতকাল ম্যাচপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে টাইগার দলের প্রতিনিধি হয়ে আসা মোসাদ্দেক হোসেন। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আজকেরই জয়ই দলকে হারানো আত্মবিশ্বাস ফিরিয়ে দিতে পারে বলেন বলে মনে করেন এ মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যান, ‘স্কিলেরও হয়তো কিছু ব্যাপার আছে। ব্যাটসম্যানদের প্রয়োগও মোটামুটি ঠিক আছে। কিছু জায়গায় হয়তো ঘাটতি রয়ে গেছে। এগুলো যত দ্রুত ওভারকাম করা যায়, ততই আমাদের জন্য ভালো। আমাদের একটা মোমেন্টাম দরকার। একটা ম্যাচ জিতেছি। সামনের ম্যাচটা জেতা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।’
প্রথম দুই ম্যাচে হারায় আজ হারলেই জিম্বাবুয়ের নিশ্চিত হয়ে যাবে বিদায়। তবু বিশ্বাস বা সাহস, কোনোটিরই কমতি নেই তাদের। দলের অভিজ্ঞ ক্রিকেটার শন উইলিয়ামস জানালেনÑ ফাইনালে ওঠার বিশ্বাস নিয়েই মাঠে নামবে জিম্বাবুয়ে, ‘এ ম্যাচ আমাদের জিততেই হবে। শুধু তাই নয়, দুটি ম্যাচই আমাদের জিততে হবে। আমরা যদি মৌলিক কাজগুলো ঠিকঠাক করতে পারি; যেমন ফিল্ডিং, বোলিংসহ ছোট বিষয়গুলো, তাহলে আমাদের দুটি ম্যাচ জয়ের ভালো সম্ভাবনা আছে।’ আফগানিস্তানের বিপক্ষে হেরে চাপে আছে বাংলাদেশ। আর এ সুযোগটাই কাজে লাগাতে চায় জিম্বাবুয়ে, ‘আমরা যদি নিজেদের কাজ মন দিয়ে করতে পারি, বাকি সব নিজে থেকে ঠিক হয়ে যাবে। তারা (বাংলাদেশ) চাপে আছে, আমরা সেটা জানি। কিন্তু আমাদের মৌলিক বিষয়গুলো ঠিকঠাক করতে হবে। আগেই বলেছি, খেলার পার্থক্য গড়ে ছোট বিষয়গুলো। মাঠের খেলা যদি আমরা সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারি, তাহলে এ দুই ম্যাচে ভালো কিছু করা সম্ভব।’