আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ১১-১০-২০১৯ তারিখে পত্রিকা

পার্লামেন্টে আইনজীবীদের সংখ্যা কমে যাচ্ছে কিশোরগঞ্জে রাষ্ট্রপতি

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি
| শেষ পাতা

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ কিশোরগঞ্জ জেলা বার প্রাঙ্গণে বৃহস্পতিবার জেলা বারের নতুন ১০ তলাবিশিষ্ট রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন - পিবিএ

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন, দেশের পার্লামেন্টে আইনজীবীর সংখ্যা আগের চেয়ে অনেক কমে গেছে। এ সংখ্যা দিন দিনই হ্রাস পাচ্ছে। বর্তমানে কিশোরগঞ্জের ছয়টি আসনের মধ্যে মাত্র একজন আইনজীবী সংসদ সদস্য রয়েছেন। এক সময় কিশোরগঞ্জের সাতটি আসনে পাঁচজন আইনজীবী সংসদ সদস্য ছিলেন। এমনকি উপজেলা পরিষদ, পৌরসভা, ইউনিয়ন পরিষদেও আইনজীবীদের প্রাধান্য ছিল। এখন নেই। কিন্তু কেন নেই। এটা কি জনগণের সঙ্গে তাদের দূরত্বের কারণে হচ্ছে। যদি এমনটিই হয়ে থাকে, তাহলে এটা অনুসন্ধান করে আইনজীবীদের প্রতি জনগণের আস্থা ফিরিয়ে আনার আহ্বান জানান।

তিনি বৃহস্পতিবার দুপুরে কিশোরগঞ্জ জেলা আইনজীবী 

সমিতির প্রাঙ্গণে জেলা আইনজীবী সমিতি আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন। রাষ্ট্রপতি বলেন, ইয়াবা নামক সর্বনাশা মাদক ছেয়ে গেছে। এলাকায় কিশোররা অপরাধে জড়িয়ে পড়েছে। তাই কিশোর গ্যাং এবং মাদকের বিরুদ্ধে সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তোলার জন্য আইনজীবীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, কেবল পুলিশ দিয়ে মাদক ও কিশোর গ্যাং নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব নয়। যে কোনো অপকর্মের বিরুদ্ধে আইনজীবীদের এগিয়ে আসতে হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, জনগণের আস্থা থাকলে আইনজীবী সমাজ দেশের চিত্র বদলে দিতে পারেন।
রাষ্ট্রপতি আরও বলেন, মানুষের সেবার মনোভাব নিয়ে আইনজীবীদের কাজ করতে হবে। রাষ্ট্রপতি তার অতীতের কথা উল্লেখ করে বলেন, আমি নিজেও এই বারে প্র্যাকটিস করেছি। কখনও কাউকে প্রেসার দিয়ে বা কায়দাকানুন করে বিপদে ফেলে টাকা নিইনি। তিনি বলেন, কিশোরগঞ্জ বারে কল্যাণ তহবিলের নামে ওকালতনামার অতিরিক্ত ফি নেওয়া হচ্ছে। নিজেদের কল্যাণের নামে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা নেওয়া ঠিক না। এছাড়া আইনজীবী বা তার কোনো আত্মীয়স্বজনের নামে মামলা হলে প্রতিপক্ষের হয়ে কোনো আইনজীবী মামলা লড়তে চায় না, এটাও বদলাতে হবে বলে উল্লেখ করেন।
কিশোরগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট মিয়া মো. ফেরদৌসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আফজাল হোসেন এমপি, নূর মোহাম্মদ এমপি, জেলা ও দায়রা জজ সায়েদুর রহমান, জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শহিদুল আলম শহীদ, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট জিল্লুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট এমএ আফজল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এর আগে রাষ্ট্রপতি জেলা আইনজীবী সমিতির ১০ তলা ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।