আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ১১-১০-২০১৯ তারিখে পত্রিকা

সড়কে ঝরল আট প্রাণ

আলোকিত ডেস্ক
| প্রথম পাতা

বরগুনার বেতাগী উপজেলার সোনারবাংলা নামক এলাকায় সত্তার পরিবহন নামে একটি যাত্রীবাহী বাস খাদে পড়ে দুইজন নিহত হন। প্রথমে স্থানীয়রা পরে খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার কাজ শুরু করেন। বৃহস্পতিবারের ছবি - পিবিএ

দেশের পাঁচ জেলায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছে আটজন। এর মধ্যে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ট্রাকচাপায় দুই মোটরসাইকেল আরোহী, কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় ১, বরগুনায় যাত্রীবাহী বাস খাদে পড়ে শিশুসহ ২, চকরিয়ায় কাভার্ডভ্যানের ধাক্কায় ট্রলিচালকসহ ২ এবং বগুড়ার শেরপুরে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে মোটরসাইকেল আরোহী এক নারী নিহত হয়েছেন। এছাড়া এসব দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত আরও ১৫ জন। সংবাদদাতা ও প্রতিনিধিদের খবরÑ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া : বৃহস্পতিবার ভোরে কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ট্রাকচাপায় দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত 

হয়েছে। নিহতরা হলেন দোলন সরকার (৩৬) ও রাজিব চৌধুরী (৩৮)। ভোর ৬টার দিকে মহাসড়কের ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরতলী ঘাটুরা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত দোলন সরকার গাজীপুর সদর থানার হাইলপুর এলাকার আবদুল জলিল সরকারের ছেলে ও রাজিব চৌধুরী ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার চিনাইর গ্রামের শহীদ চৌধুরীর ছেলে। তারা দুইজন ব্রাহ্মণবাড়িয়া বন বিভাগ কার্যালয়ে অফিস সহকারী হিসেবে কর্মরত ছিলেন। 
খাঁটিহাতা হাইওয়ে থানার উপপরিদর্শক (এসআই) গিয়াসউদ্দিন জানান, সকালে মোটরসাইকেল যোগে দোলন সরকার ও রাজিব চৌধুরী জেলা সদর থেকে বিশ্বরোডের দিকে যাচ্ছিল। পথিমধ্যে ঘাটুরা এলাকায় বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ট্রাক মোটরসাইকেলটিকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে দোলন সরকার মারা যায়। গুরুতর আহত রাজিব চৌধুরীকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় রেফার্ড করে। পথিমধ্যে তার মৃত্যু হয়। 
হোসেনপুর (কিশোরগঞ্জ) : কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় রহমত আলী (৫৫) নামের একজন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। তিনি ময়মনসিংহের পাগলা থানার কান্দিপাড়া গ্রামের মৃত তাইজ উদ্দিনের ছেলে। 
জানা যায়, বৃহস্পতিবার সকালে হোসেনপুর বাজার থেকে পারিবারিক অনুষ্ঠানের জন্য ১০ কেজি মাংস কিনে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা যোগে বাড়ি ফেরার পথে হোসেনপুর-গফরগাঁও সড়কের দ্বীপেশ্বর চত্বরের পাশে বালুবাহী একটি ট্রাক্টর নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে অটোরিকশাকে চাপা দেয়। এ সময় রহমত আলী ও চালক রতন মিয়া গুরুতর আহত হয়। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে হোসেনপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। তাদের অবস্থার অবনতি ঘটলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করলে পথেই রহমত আলীর মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় হোসেনপুর থানার সহকারী পরিদর্শক মো. সাইফুল ইসলাম দুর্ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। 
বরগুনা : বরগুনায় একটি যাত্রীবাহী বাস খাদে পড়ে নারী ও শিশুসহ দুইজন নিহত এবং আহত হয়েছেন ১২ জন। বৃহস্পতিবার বেলা সোয়া ১১টার দিকে বরগুনা-বেতাগী আঞ্চলিক মহাসড়কের সোনারবাংলা নামক এলাকায় এ দুর্ঘটনাটি ঘটে। তবে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত নিহতদের নাম-পরিচয় পাওয়া যায়নি। বাস দুর্ঘটনায় আহত ১২ জনকে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। দুর্ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছেন বাসের চালক ও তার সহকারী। তাদের ধরতে অভিযান শুরু করেছে পুলিশ।
বেতাগী থানার ওসি মো. কামরুজ্জামান মিয়া জানিয়েছেন, পানিতে ডুবে থাকা বাসের ভিতর থেকে এক নারী ও এক শিশুর লাশ উদ্ধার করা হলেও তাদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।
চকরিয়া (কক্সবাজার) : কক্সবাজারের চকরিয়ায় টিউবওয়েল সরঞ্জাম বোঝাই একটি ট্রলির সঙ্গে পন্যবাহী কাভার্ডভ্যানের ধাক্কায় দুইজন নিহত ও একজন আহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার সকাল পৌনে ৯টার দিকে চট্টগ্রাম কক্সবাজার মহাসড়কের উপজেলার হারবাং ইউনিয়নের কলাতলী এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন পেকুয়া উপজেলার সদর ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের উত্তর মেহেরনামা তেইল্যাকাটা এলাকার নুরুল আবছারের ছেলে (ট্রলিচালক) মো. আসিফ (২৩) এবং একই এলাকার আবদুল খালেকের ছেলে মামুনুর রশীদ (২৬)। এসময় জাহাঙ্গীর আলম নামে তাদের অপর এক সহপাঠীও আহত হন। 
চিরিংগা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ উপপরিদর্শক মাহবুব আলম বলেন, দুর্ঘটনার পরপরই হাইওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে দুর্ঘটনা কবলিত গাড়ি দুটি জব্দ ও নিহত ট্রলিচালক মো. আসিফের লাশ উদ্ধার করে ফাঁড়িতে নিয়ে আসে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত দুর্ঘটনার ব্যাপারে নিহত মো. আসিফের পরিবারের কোনো অভিযোগ না থাকায় এবং নিহতের পরিবারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে মানবিক দিক বিবেচনা করে তার লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে।
শেরপুর (বগুড়া) : বগুড়ার শেরপুরে মালবাহী ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে মোটরসাইকেল আরোহী এক নারী নিহত হয়েছেন। তার নাম আসমা বেগম (৪৫)। তিনি উপজেলার বিশালপুর ইউনিয়নের ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও স্থানীয় তেঘরি গ্রামের আবদুর রশিদের স্ত্রী।  ঘটনায় আবদুর রশিদও আহত হন। স্থানীয় একটি হাসপাতালে তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। বুধবার উপজেলার শেরপুর-রানীরহাট আঞ্চলিক সড়কের আড়ংশাইল এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। শেরপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) বুলবুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, ওয়ার্ড আ.লীগের নেতা আবদুর রশিদ তার স্ত্রীকে নিয়ে মোটরসাইকেলযোগে শেরপুর শহরের দিকে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে ওই স্থানে পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে আসা দ্রুতগতির একটি মালবাহী ট্রাক মোটরসাইকেলটিকে ধাক্কা দেয়। এতে মোটরসাইকেল আরোহী আসমা বেগম ছিটকে পড়ে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান। পাশাপাশি মোটরসাইকেলচালক স্বামী আবদুর রশিদ আহত হন। এদিকে ঘটনার পরপরই দ্রুত পালিয়ে যাওয়ায় ঘাতক ট্রাক ও ট্রাকের চালক-হেলপারকে আটক করা সম্ভব হয়নি বলে এই পুলিশ কর্মকর্তা জানান।